kalerkantho

ধারাবাহিক তাফসির গ্রন্থনা ► মুফতি কাসেম শরীফ

কোরআন তার জন্য উপদেশস্বরূপ যে আল্লাহকে ভয় করে

২৬ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কোরআন তার জন্য উপদেশস্বরূপ যে আল্লাহকে ভয় করে

১. ত্বহা ২. আমি কোরআন এ জন্য নাজিল করিনি যে তুমি (এর দ্বারা) কষ্ট পাবে। ৩. বরং (এই কোরআন) তার জন্য উপদেশস্বরূপ, যে ভয় করে।

[সুরা : ত্বহা, আয়াত : ১-৩) (দ্বিতীয় পর্ব)]

 

তাফসির : উল্লিখিত আয়াতগুলো একটি বিশেষ প্রেক্ষাপটে নাজিল হয়েছে। তাফসিরবিদ মুকাতিল (রহ.) বলেন, একবার আবু জাহেল, ওয়ালিদ বিন মুগিরা, নজর বিন হারেস ও মুতইম বিন আদি মহানবী (সা.)-এর কাছে এসে বলল, হে মুহাম্মদ! আপনি আপনার পিতৃপুরুষের ধর্ম ত্যাগ করে কষ্টে আছেন। এ কথার জবাবে রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, বরং আমি বিশ্ব জাহানের জন্য রহমতস্বরূপ প্রেরিত হয়েছি। তারা আবার বলল, বরং এতে আপনার দুর্ভোগ বেড়েছে। তাদের এমন কথার পরিপ্রেক্ষিতে আলোচ্য আয়াতগুলো নাজিল হয়েছে। এখানে তাদের কথা খণ্ডন করা হয়েছে। এ আয়াতগুলোর মূল কথা হলো, দ্বিন-ইসলাম বরাবরই সৌভাগ্যের প্রতীক। দ্বিন-ইসলাম আসার পর অবিশ্বাসীদের দুর্ভোগ ও দুর্ভাগ্য হয়েছে।

এখানে তিনটি আয়াত রয়েছে। প্রথম আয়াত হলো ‘ত্বহা’। এটি কোরআনে বর্ণিত সেসব বিচ্ছিন্ন হরফসমূহের অন্যতম, যেগুলোর অর্থ আল্লাহ ছাড়া আর কেউ জানে না। পবিত্র কোরআনের বেশ কয়েকটি সুরার শুরুতে এ ধরনের হরফ আনা হয়েছে। এ হরফগুলো আরব বা আরবি জানা লোকদের প্রতি এক ধরনের চ্যালেঞ্জ—কোরআনের বিশেষ কিছু জায়গার অর্থই যখন তোমরা বোঝো না, তখন এর সমকক্ষ কোনো সুরা বা আয়াত তোমরা কিভাবে রচনা করবে? আর এই চ্যালেঞ্জের মাধ্যমে প্রমাণিত হয়, কোরআন আল্লাহর কালাম। এটি মানবরচিত কোনো গ্রন্থ নয়।

তাফসিরবিদদের কেউ কেউ বলেছেন, ‘ত্বহা’ শব্দটি রাসুলুল্লাহ (সা.)-এর নামবিশেষ। এর অর্থ হলো, ‘হে মুহাম্মদ! তুমি জমিনে বিচরণ করো।’ ইবনুল আম্বারি (রহ.) এভাবে এর ব্যাখ্যা দিয়েছেন : রাসুলুল্লাহ (সা.) নামাজ ও কোরআন তিলাওয়াতে অধিক আগ্রহী ছিলেন। দীর্ঘ নামাজে তাঁর পা মোবারক ফুলে যেত। ফলে মাঝে মাঝে তাঁর বিশ্রামের প্রয়োজন ছিল। তাই তাঁর উদ্দেশে বলা হয়েছে, ‘হে মুহাম্মদ! তুমি জমিনে বিচরণ করো।’ অর্থাৎ নামাজকে তোমার জন্য অধিক কষ্টকর করে নেবে না। তৃতীয় আয়াতের মূল কথা হলো, রাসুলুল্লাহ (সা.)-এর দায়িত্ব হলো আল্লাহর বাণী যথাযথভাবে পৌঁছে দেওয়া। তাই কেউ ঈমান না আনলে এটা নিয়ে আফসোস করতে করতে নিজেকে কষ্টের মধ্যে ফেলে দেওয়ার প্রয়োজন নেই।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা