kalerkantho

আরাফাতের ময়দান একটি নাম, একটি ইতিহাস

মাওলানা সাখাওয়াত উল্লাহ   

১০ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আরাফাতের ময়দান একটি নাম, একটি ইতিহাস

জিলহজ মাসের ৯ তারিখ পবিত্র আরাফাতের দিন। আরাফাতের ময়দান পবিত্র মক্কা নগরী থেকে ১৩-১৪ কিলোমিটার পূর্বে জাবালে রহমতের পাদদেশে হেরেমের সীমানার বাইরে অবস্থিত। তা দৈর্ঘ্যে দুই কিলোমিটার এবং প্রস্থেও দুই কিলোমিটার। তা তিন দিক দিয়ে পাহাড়বেষ্টিত। এর দক্ষিণ পাশ ঘেঁষে রয়েছে মক্কা হাদাহ তায়েফ রিং রোড। এ সড়কের দক্ষিণ পাশে আবেদি উপত্যকায় রয়েছে মক্কা নগরীর সুপ্রসিদ্ধ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান উম্মুল কুরা বিশ্ববিদ্যালয়। উত্তরে রয়েছে সাদ পাহাড়।

আরাফাত শব্দটি আরবি। অর্থ জানা, চেনা, পরিচয় লাভ করা, অবহিত হওয়া, স্বীকার করা, স্বীকৃতি দান করা ইত্যাদি।

 

আরাফাত নামটি যেভাবে এলো

আরাফাতের নামের ব্যাপারে মনীষীদের বিভিন্ন উক্তি রয়েছে। যেমন—

১. জিবরাঈল (আ.) যখন ইবরাহিম (আ.)-কে হজের বিধি-বিধান শিক্ষা দেন তখন তাঁরা আরাফাতের ময়দানে মসজিদে নামিরার পাশে ছিলেন। জিবরাঈল (আ.) শিক্ষা দেওয়ার পর তাঁকে জিজ্ঞেস করেন, ‘হাল আরাফতা’ আপনি কি বুঝতে পেরেছেন? হজরত ইবরাহিম (আ.) বলেন, হ্যাঁ। এর থেকে এ ময়দানের নাম হয়ে  গেছে আরাফাত।

২. হজযাত্রীরা আরাফাতের ময়দানে উপস্থিত হয়ে নিজেদের গুনাহসমূহের কথা স্বীকার করেন। অতঃপর মহান আল্লাহর সমীপে কৃত পাপের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করেন। এ ময়দানে পাপের স্বীকৃতি দান করেন বলে এ ময়দানকে আরাফাতের ময়দান বলা হয়।

৩. মহান আল্লাহ গন্দম ফল খাওয়ার ফলে হজরত আদম (আ.)-কে জান্নাত থেকে সিংহলে এবং হাওয়া (আ.)-কে জিদ্দায় নিক্ষেপ করেন। অতঃপর তাঁরা একে অন্যকে খোঁজ করতে থাকেন। সাড়ে তিন শ বছর কান্নাকাটির পর আরাফাতের মাঠে তাঁদের পরিচয় হয় এবং মহান আল্লাহ তাঁদের গুনাহ ক্ষমা করেন। দীর্ঘ বিচ্ছেদের পর এ মাঠে তাঁদের পরিচয় ঘটে বলে এর নাম হয়ে যায় আরাফাত।

 

আরাফাতে অবস্থান কী ও কেন

মহান আল্লাহ চান সব মুসলমান একতাবদ্ধ হয়ে থাকুক। পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ জামাতের সঙ্গে আদায় করা, সপ্তাহে এক দিন জুমাবার একসঙ্গে জুমার নামাজ আদায় করা, দুই ঈদে একসঙ্গে ঈদের নামাজ পড়া, বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে আগত লোকদের সঙ্গে আরাফাতে অবস্থান করা মুসলমানদের একতার ইঙ্গিত বহন করে। আরাফাতের মাঠে অবস্থানকেই হজ বলা হয়েছে। অথচ এ মাঠে নির্দিষ্ট কোনো ইবাদত নেই। আরাফাতে অবস্থান হজের শ্রেষ্ঠ রুকন। কারণ আরাফাতের ময়দান যেন বিশ্ব সম্মেলন। এ সম্মেলন থেকে মুসলমানদের ঐক্য, শৃঙ্খলা ও শান্তির বার্তা সমগ্র বিশ্বে ছড়িয়ে দেওয়া হয়।

 

মন্তব্য