kalerkantho

ওফাত স্মরণ

হাদিসশাস্ত্রে ইমাম দারাকুতনি (রহ.)-এর অবদান

আবরার আবদুল্লাহ   

১ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



হাদিসশাস্ত্রে ইমাম দারাকুতনি (রহ.)-এর অবদান

হাদিসশাস্ত্রে অসামান্য অবদান রেখে ইসলামের ইতিহাসে স্মরণীয় হয়ে আছেন যাঁরা, ইমাম দারাকুতনি (রহ.) তাঁদের অন্যতম; যাঁর পুরো নাম আবুল হাসান আলী ইবনে আমর ইবনে আহমদ ইবনে মাহদি আল বাগদাদি। বাগদাদের দারাকুতনি নামক স্থানের প্রতি সম্পৃক্ত করে তাঁকে আদ-দারাকুতনি বলা হতো এবং এ নামেই তিনি অধিক পরিচিত। ইমাম দারাকুতনি (রহ.) একই সঙ্গে কোরআনের ব্যাখ্যাকার, হাদিসবিশারদ, কারি, সাহিত্যিক ও ভাষাবিদ ছিলেন।

ইমাম দারাকুতনি (রহ.) ৩০৬ হিজরিতে বাগদাদে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বাবা ছিলেন সে সময়ের অন্যতম গ্রহণযোগ্য আলেম। তাঁদের পারিবারিক পরিমণ্ডলে ছিল জ্ঞানচর্চার আবহ। ফলে শৈশব থেকে জ্ঞানার্জনের প্রতি বিশেষ আগ্রহ ছিল ইমাম দারাকুতনির। বয়সের সঙ্গে সঙ্গে যা ক্রমেই বৃদ্ধি পেতে থাকে। তিনি উলামায়ে কেরামের সঙ্গ ও সান্নিধ্য ভালোবাসতেন। তাঁদের কাছ থেকে জ্ঞানের কথা শুনতেন, ইলম অর্জন করতেন। মাত্র ৯ বছর বয়সে তিনি জীবনের প্রথম গ্রন্থ রচনা করেন।

ইমাম দারাকুতনি (রহ.)-এর সময়ে বাগদাদ ছিল জ্ঞান-বিজ্ঞানের তীর্থ। পৃথিবীর সেরা পণ্ডিতরা বাগদাদে অবস্থান করছিলেন। শৈশব থেকে তিনি তাঁদের কাছে যেতেন এবং উপকৃত হতেন। তার পরও তিনি হিজাজ, মিসর ও সিরিয়া সফর করেন। ইমাম দারাকুতনি (রহ.)-এর বিখ্যাত শিক্ষক হলেন আবু মুহাম্মদ হাসান বিন আহমদ হামদানি, যিনি হাফেজে হাদিস ছিলেন। ইমাম দারাকুতনি (রহ.) তাঁর কাছে অসংখ্য হাদিস শুনেছেন এবং বর্ণনা করেছেন। তিনি ঘরে-বাইরে তাঁর প্রিয় এই শিক্ষককে অনুসরণ করতেন। তাঁর সামনে ছোট্ট শিশুর মতো বসে থাকতেন। অন্য শিক্ষকদের মধ্যে রয়েছেন—ইবনে হিব্বান বুসতি, আবু আবদুল্লাহ হুসাইন ইবনে ইসমাইল, আবু বকর আহমদ ইবনে মুসা, মুসলিম ইবনে উবায়দুল্লাহ, আবুল কাসেম বাগাভি, মুহাম্মদ বিন হাসান আশ-শায়বানি, আবু মুয়াবিয়া আদ-দারির প্রমুখ। ইমাম দারাকুতনি (রহ.) ছিলেন আহলুস সুন্নাহ ওয়াল জামাতের আকিদায় বিশ্বাসী এবং শাফেয়ি মাজহাবের অনুসারী।

তাঁর বিখ্যাত শিষ্যদের ভেতর রয়েছেন—ইবরাহিম ইবনুল হুসাইন, ইবরাহিম ইবনে উবাইদ দামেস্কি, আহমদ ইবনে আবদুল্লাহ, শায়খুল ইসলাম আহমদ ইবনে মুহাম্মদ, আবু বকর আহমদ ইবনে মুহাম্মদ ও হামজা বিন ইউসুফ।

হাকিম আবু আবদুল্লাহ নিশাপুরী (রহ.) বলেন, দারাকুতনি তাঁর সমকক্ষ কাউকে দেখেননি। ইমাম ইবনে কাসির (রহ.) বলেন, সমকালে তিনি ছিলেন একজন বড় শিক্ষক ও হাফিজে হাদিস।

তাঁর উল্লেখ্যযোগ্য কয়েকটি রচনা হলো—১. কিতাবুস সুনান, ২. আল-ইলালুল ওয়ারিদা, ৩. আল-মুজতাবা মিনাস সুনানিল মাসুরা, ৪. আল-মুখতালাফ ওয়াল মুতালাফ ফি আসমায়ির রিজাল, ৫. কিতাবুল আফরাদ, ৬. সুওয়ালাতুল হাকিম।

ইমাম দারাকুতনি (রহ.) ৩৮৫ হিজরিতে ৭৭ বছর বয়সে ইন্তেকাল করেন। বাগদাদেই তাঁকে দাফন করা হয়।

মন্তব্য