kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১ নভেম্বর ২০২২ । ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ ।  ৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

আমানতের সুদহারে ক্যাপ প্রত্যাহারের দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আমানতের সুদহারে ক্যাপ প্রত্যাহারের দাবি

আমানতের সুদের ওপর নির্ধারিত ৭ শতাংশ সুদহারের বিধান বাতিল চায় দেশের ব্যাংকবহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো। গতকাল বুধবার বিকেলে এফবিসিসিআইয়ের নন-ব্যাংকিং ফাইন্যানশিয়াল ইনস্টিটিউশনসংক্রান্ত স্ট্যান্ডিং কমিটির প্রথম বৈঠকে এ দাবি জানান এই খাতের সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।

সভায় বক্তারা জানান, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনা অনুযায়ী আমানতের ওপর গ্রাহকদের ৭ শতাংশের বেশি সুদ দিতে পারছে না ব্যাংকবহির্ভূত প্রতিষ্ঠানগুলো। অন্যদিকে ব্যাংকগুলো বাড়তি সুদে আমানত সংগ্রহ করছে।

বিজ্ঞাপন

এতে অসম প্রতিযোগিতায় পড়ছে নন-ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো। এ ছাড়া তাঁরা জানান, কভিড পরিস্থিতি মোকাবেলায় ঋণখেলাপিসংক্রান্ত নীতিতেও ব্যাংকগুলো বাড়তি সুবিধা পাচ্ছে। অন্যান্য আর্থিক প্রতিষ্ঠানকেও একই সুবিধার দাবি জানান তাঁরা। ব্যাংকবহির্ভূত প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য পুনরর্থায়ন তহবিলের আকার আরো বাড়ানোর আহ্বান জানান কমিটির সদস্যরা।

বৈঠকে উঠে আসা দাবির সঙ্গে একমত প্রকাশ করে এফবিসিসিআই সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন বলেন, সুদের সর্বোচ্চ হারের ব্যাপারে বাংলাদেশ ব্যাংকের সঙ্গে শিগগিরই আলোচনা করবে এফবিসিসিআই। এ ছাড়া ব্যাংক ও ব্যাংকবহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নীতি সহায়তায় পার্থক্য থাকা উচিত নয় বলে মন্তব্য করেন এফবিসিসিআই সভাপতি।

শিল্পে দীর্ঘমেয়াদি ঋণের প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করে সভাপতি বলেন, এ ক্ষেত্রে ব্যাংকবহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো ভূমিকা রাখতে পারে। এ সময় এসব প্রতিষ্ঠানকে প্রান্তিক উদ্যোক্তা ও এসএমই খাতে ঋণ অর্থায়নে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান মো. জসিম উদ্দিন।

সীমিত নীতি সহায়তার মধ্যেও দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও শিল্পায়নে ব্যাংকবহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠানের অবদানের কথা তুলে ধরেন কমিটির ডিরেক্টর ইন চার্জ এস এম জাহাঙ্গীর আলম (মানিক)। তিনি বাংলাদেশ ব্যাংককে সমান নীতি সহায়তা দেওয়ার আহ্বান জানান। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন কমিটির চেয়ারম্যান উত্তরা ফিন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডের ভাইস চেয়ারম্যান মতিউর রহমান।



সাতদিনের সেরা