kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০২২ । ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

ঋণ বিতরণ ক্ষমতা বাড়ল ক্ষুদ্রঋণ প্রতিষ্ঠানের

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরি অথরিটি বিধিমালা-২০১০ সংশোধন করেছে সরকার। এরই মধ্যে প্রকাশ করা হয়েছে এই সংশোধনীর গেজেট। এতে ক্ষুদ্রঋণ প্রতিষ্ঠানের ঋণ বিতরণ ক্ষমতা বাড়ানো হয়েছে। এ জন্য বিধিমালায় সংশোধন এনে তারল্য সঞ্চিতি ও সংরক্ষিত তহবিল রক্ষণাবেক্ষণ কমানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সেই সঙ্গে বাড়ানো হয়েছে ক্ষুদ্র উদ্যোগে ঋণের অংশ এবং মেয়াদি আমানত নেওয়ার হার।

মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরি অথরিটি বিধিমালা-২০১০-এর ৩৪ ধারায় বলা হয়েছে, প্রতিষ্ঠানের মোট আমানতের ১৫ শতাংশ বাধ্যতামূলক তারল্য সঞ্চিতি হিসেবে শাখা কার্যালয়ের তফসিলভুক্ত ব্যাংক হিসাবে রাখতে হবে। এর মধ্যে ৫ শতাংশ নগদ এবং বাকি ১০ শতাংশ মেয়াদি সঞ্চয় হিসেবে রাখতে হয়।

বিধিমালা সংশোধন করে এখন এই হার কমিয়ে ১০ শতাংশ করা হয়েছে। ফলে ক্ষুদ্রঋণ প্রতিষ্ঠানের ঋণ বিতরণের জন্য নিজস্ব তহবিল বড় হবে এবং এর মাধ্যমে ঋণ বিতরণের সক্ষমতা বাড়বে।

এ ছাড়া বিধিমালার ২৮(ঙ) ও ২৯(ঙ) ধারায় সংশোধন আনা হয়েছে। ২৮(ঙ) ধারা অনুযায়ী, ক্ষুদ্রঋণ প্রতিষ্ঠান যে আমানত সংগ্রহ করে তার মধ্যে সর্বোচ্চ ২৫ শতাংশ স্বেচ্ছা আমানত নিতে পারবে। এই ধারায় সংশোধন এনে এখন স্বেচ্ছা আমানতের সর্বোচ্চ সীমা ২৫ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ৪০ শতাংশ করা হয়েছে।

একইভাবে ২৯(ঙ) ধারা অনুযায়ী, ক্ষুদ্রঋণ প্রতিষ্ঠান যে আমানত সংগ্রহ করে তার মধ্যে সর্বোচ্চ ২৫ শতাংশ মেয়াদি আমানতে নিতে পারে। এখন এই ধারায় সংশোধন এনে মেয়াদি আমানতের সর্বোচ্চ হার ২৫ থেকে বাড়িয়ে ৫০ শতাংশ করা হয়েছে।

বিধিমালার ২৪(৩) বিধিতেও সংশোধন আনা হয়েছে। ২৪(৩) ধারায় বলা হয়েছে, ক্ষুদ্র উদ্যোগ ঋণের পরিমাণ যেকোনো নির্দিষ্ট সময়ের মোট ঋণ পোর্টফোলিওর অর্ধেক বা ৫০ শতাংশের বেশি হবে না। এখন সংশোধন এনে এটি বাড়িয়ে ৬০ শতাংশ করা হয়েছে।



সাতদিনের সেরা