kalerkantho

রবিবার । ২ অক্টোবর ২০২২ । ১৭ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

৬২ বছর বয়সে মারা গেলেন রাকেশ ঝুনঝুনওয়ালা

ভারতের ‘ওয়ারেন বাফেট’ আর নেই

সম্পদ : ৫৮০ কোটি ডলার

বাণিজ্য ডেস্ক   

১৫ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ভারতের ‘ওয়ারেন বাফেট’ আর নেই

শেয়ারবাজারে সফল বিনিয়োগের জন্য তিনি সবচেয়ে বেশি পরিচিত। সে কারণেই তাঁকে ভারতের ‘ওয়ারেন বাফেট’ বলে ডাকা হয়। বিলিয়নেয়ার রাকেশ ঝুনঝুনওয়ালা আর নেই। ৬২ বছর বয়সে থেমে গেছে শেয়ারবাজারে হার না মানা এই ব্যবসায়ীর জীবন।

বিজ্ঞাপন

নিজ প্রচেষ্টায় সফলতার শীর্ষে ওঠা এই ধনকুবের একই সঙ্গে দেশের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধিতেও বড় ভূমিকা রেখেছেন।

গতকাল রবিবার সকাল ৬টা ৪৫ মিনিটে ভারতের মুম্বাইয়ের ব্রিচ ক্যান্ডি হাসপাতালে মারা যান তিনি। বার্ধক্যজনিত সমস্যাসহ একাধিক রোগে ভুগছিলেন।

রাকেশ ঝুনঝুনওয়ালা একজন ব্যবসায়ী ও চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট ছিলেন। তিনি হাঙ্গামা মিডিয়া ও অ্যাপটেকের চেয়ারম্যান। পাশাপাশি ভাইসরয় হোটেল, কনকর্ড বায়োটেক, প্রভোগ ইন্ডিয়া ও জিওজিৎ ফিন্যানশিয়াল সার্ভিসেসের একজন পরিচালক। ভারতের কমপক্ষে তিন ডজন কম্পানিতে তাঁর শেয়ার রয়েছে। এক সপ্তাহ আগেই তাঁর পৃষ্ঠপোষকতায় ‘আকাসা এয়ারলাইনস’ চালু হয়। বলা হয়, রাকেশ শেয়ারবাজারে বিনিয়োগে কখনোই ভুল করতেন না। তিনি যেখানেই বিনিয়োগ করতেন, লাভের মুখ দেখতেন।

১০ বছর আগে বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে রাকেশ বলেছিলেন, ‘আমি শুধু জানি ব্যবসা ও বিনিয়োগ। এ ছাড়া জীবনে আর কিছুই করতে চাই না। একমাত্র মৃত্যুর দিনই এগুলো ছেড়ে যাব। ’ ১৯৮৫ সালে শেয়ারবাজারে মাত্র পাঁচ হাজার রুপি দিয়ে বিনিয়োগ শুরু করেছিলেন রাকেশ। তাঁর শেয়ারবাজারের গল্পটাও বেশ মজার। কলেজে পড়ার সময় থেকেই তিনি শেয়ার ব্যবসা শুরু করেন। ১৯৮৬ সালে টাটা টি-এর শেয়ার থেকে বিপুল লাভ করেছিলেন। ৪৩ রুপিতে পাঁচ হাজারটি শেয়ার কিনেছিলেন তিনি। তিন মাসের মধ্যেই তার দাম পৌঁছে ১৪৩ রুপিতে। এক ধাক্কায় প্রায় তিন গুণ লাভ করেন রাকেশ। অর্থাৎ সব মিলিয়ে ২০ থেকে ২৫ লাখ রুপি। গত শতকের আটের দশকে ওই অর্থের ‘মূল্য’ আজকের দিনের হিসাবে কোটি কোটি রুপি। এর পর থেকে আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি তাঁকে।

তাঁর জীবনের আরেক গুরুত্বপূর্ণ বছর ২০০৩ সাল। টাইটান কম্পানি লিমিটেডের শেয়ার থেকে বিপুল লাভ করেন তিনি। ২০০৬ সালে লুপিন সংস্থার শেয়ার থেকেও বিপুল লাভ করেন রাকেশ। এভাবে ক্রমেই দূরদৃষ্টিসম্পন্ন রাকেশের পদক্ষেপে সম্পত্তির পরিমাণ বাড়তে থাকে। তিনি বিশ্বাস করতেন, জীবনে ঝুঁকি নেওয়াটাও একটা বড় পদক্ষেপ। তবে তা ভেবেচিন্তেই করা উচিত। ফোর্বস ম্যাগাজিনের তথ্যানুসারে রাকেশ ঝুনঝুনওয়ালার সম্পদের মূল্য প্রায় ৫.৮ বিলিয়ন ডলার।

গত ৭ আগস্ট যাত্রা শুরু করেছে তাঁর এয়ারলাইনস ‘আকাসা এয়ার’। এই সংস্থা নিয়ে অনেক স্বপ্ন ছিল রাকেশের। আগামী চার বছরের মধ্যে ৭০টি বিমান ওড়ানোর লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে এবং অন্য সংস্থাগুলো থেকে অপেক্ষাকৃত সস্তায় পরিষেবা দেওয়ার পরিকল্পনা করেই এগোতে চেয়েছিলেন তিনি। সূত্র : রয়টার্স, এনডিটিভি, ইকোনমিক টাইমস



সাতদিনের সেরা