kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১৪ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

আইইএর প্রতিবেদন

গ্যাসের উচ্চমূল্যে বিশ্বে তেলের চাহিদা বাড়বে

বাণিজ্য ডেস্ক   

১২ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিশ্বজুড়ে তীব্র দাবদাহের পাশাপাশি গ্যাসের দাম বাড়ায় অনেক দেশই বিদ্যুৎ উৎপাদনে জীবাশ্ম জ্বালানি ব্যবহার করছে। এতে আগের দেওয়া পূর্বাভাসের চেয়ে অনেক বেশি বাড়বে জ্বালানি তেলের চাহিদা। আন্তর্জাতিক জ্বালানি সংস্থা (আইইএ) গতকাল বৃহস্পতিবার প্রকাশিত মাসিক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানায়। প্যারিসভিত্তিক সংস্থাটি জানায়, সরবরাহ বাড়ায় জুন মাসের সর্বোচ্চ দাম থেকে সম্প্রতি জ্বালানি তেলের দাম প্রতি ব্যারেলে ৩০ ডলার কমেছে।

বিজ্ঞাপন

এ ছাড়া বিশ্ব অর্থনীতিতে একটি মন্দা আসছে—এমন শঙ্কাও তেলের বাজার কমাতে প্রভাব ফেলেছে। এরই মধ্যে প্রাকৃতিক গ্যাস ও বিদ্যুতের দাম রেকর্ড ছোঁয়ায় অনেক দেশই তেলনির্ভরতা বাড়াচ্ছে। ইউরোপসহ বিশ্বের অনেক অঞ্চলেই এবার মানুষ ভয়াবহ দাবদাহে পড়েছে। সংস্থার সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী অতিরিক্ত গরমে শীতলীকরণ যন্ত্রের ব্যবহার বাড়ায় বিদ্যুৎ উৎপাদনও বাড়াতে হচ্ছে। এ ক্ষেত্রে বিশেষ করে ইউরোপ, মধ্যপ্রাচ্য ও এশিয়ার দেশগুলো বিদ্যুৎ উৎপাদনে তেলের ব্যবহার বাড়িয়েছে। আইইএ বলছে, ইউরোপীয় পরিশোধনাগারসহ শিল্পপ্রতিষ্ঠানগুলো তেলের দিকে ঝুঁকছে। ফলে বিশ্বে তেলের চাহিদা বাড়বে দৈনিক তিন লাখ ৮০ হাজার ব্যারেল। ২০২২ সালে বিশ্বে তেলের চাহিদা থাকবে দৈনিক ৯৯.৭ মিলিয়ন ব্যারেল। ২০২৩ সালে এ চাহিদা বেড়ে হবে দৈনিক ১০১.৮ মিলিয়ন ব্যারেল, যা করোনা পূর্ববর্তী সময়ে ছিল।

আইইএ জানায়, রাশিয়ার ওপর গ্যাসনির্ভরতা কমাতে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) দেশগুলো তাদের নীতিতে পরিবর্তন আনছে। তারা এখন তেলের দিকে ঝুঁঁকছে। এ ছাড়া তীব্র দাবদাহের কারণেও বিদ্যুৎ উৎপাদনে তেলের ব্যবহার বাড়াচ্ছে তারা। সূত্র : এএফপি



সাতদিনের সেরা