kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৬ অক্টোবর ২০২২ । ২১ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

বিকল্প মুদ্রায় রাশিয়ার কয়লা আনল ভারতের ক্রেতারা

বাণিজ্য ডেস্ক   

১১ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



বিকল্প মুদ্রায় রাশিয়ার কয়লা আনল ভারতের ক্রেতারা

রাশিয়ার কয়লা আমদানির অর্থ পরিশোধে ভারতীয় কম্পানিগুলো বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই এশীয় মুদ্রা ব্যবহার করছে। এতে মার্কিন ডলার এড়িয়ে চলা এবং মস্কোর বিরুদ্ধে পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘনের ঝুঁকি থেকেও রক্ষা পাচ্ছে। কাস্টম ডাটা ও শিল্প সংশ্লিষ্ট সূত্র থেকে এসব তথ্য জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। এর আগে রয়টার্সের আরেকটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল, কিভাবে ভারতের কয়লা আমদানির একটি বড় চুক্তি করা হয়েছে চীনা মুদ্রা ইউয়ানে।

বিজ্ঞাপন

নতুন করে কাস্টম ডাটায় দেখা যাচ্ছে, ডলারের বিকল্প মুদ্রায় অর্থ পরিশোধ সাধারণ চিত্র হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ইউক্রেন যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে ভারত রাশিয়ার জ্বালানি তেল ও কয়লা ক্রয় বাড়িয়েছে ব্যাপকভাবে। এতে পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞার বিপরীতে মস্কোর পক্ষে পণ্য রপ্তানি যেমন সহজ হচ্ছে, তেমনি ভারতও ছাড়কৃত দামে কাঁচামাল আমদানি করতে পারছে। গত জুলাই মাসে রাশিয়া ভারতের তৃতীয় বৃহৎ কয়লা সরবরাহকারী দেশে পরিণত হয়েছে। এর পাশাপাশি জ্বালানি তেল সরবরাহেও দ্বিতীয় বৃহৎ দেশ। জুনের তুলনায় জুলাইতে রাশিয়া থেকে ভারতের কয়লা আমদানি এক-পঞ্চমাংশ বেড়ে হয়েছে রেকর্ড ২.০৬ মিলিয়ন টন।

গত জুন মাসে ভারতীয় ক্রেতারা কমপক্ষে সাত লাখ ৪২ হাজার টন রাশিয়ান কয়লা ক্রয়ে মার্কিন ডলার ছাড়া অন্য মুদ্রায় পেমেন্ট দিয়েছেন, যা ছিল ওই মাসের রাশিয়া থেকে ১.৭ মিলিয়ন টন কয়লা আমদানির ৪৪ শতাংশ। কাস্টমের এসব তথ্য রয়টার্সের হাতে এসেছে।

এতে আরো দেখা যায়, ভারতের স্টিল ও সিমেন্ট উৎপাদক প্রতিষ্ঠানগুলো সংযুক্ত আরব আমিরাতের (ইউএই) দিরহাম, হংকং ডলার, ইউয়ান ও ইউরো ব্যবহার করে সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে রাশিয়ার কয়লা ক্রয় করেছে। ডলার বহির্ভূত পেমেন্টের ৩১ শতাংশ হয়েছে ইউয়ানে, ২৮ শতাংশ হয়েছে হংকং ডলারে। ইউরোতে পরিশোধ এক-তৃতীয়াংশের কম এবং আমিরাতি দিরহাম এক-ষষ্ঠাংশ।

এসব তথ্য নিশ্চিত হওয়ার জন্য রয়টার্স ভারতের অর্থ মন্ত্রণালয়, কাস্টম বোর্ড, বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রণলায়ের সঙ্গে যোগাযোগ করলেও কোনো জবাব পায়নি। এ বিষয়ে রিজার্ভ ব্যাংক অব ইনডিয়াও (আরবিআই) কোনো উত্তর দেয়নি।

এরই মধ্যে আরবিআই পণ্য আমদানির মূল্য পরিশোধে রুপি ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে। এতে রাশিয়ার সঙ্গে ভারতের নিজস্ব মুদ্রায় বাণিজ্য বাড়বে বলে আশা করা হচ্ছে।

রুপিকে নতুন গুরুত্বে নিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়ে আরবিআই জানায়, রুপির মাধ্যমেই যাতে আন্তর্জাতিক লেনদেন করা যায়, তেমন ব্যবস্থা চালু করা হচ্ছে। অর্থাৎ চীন, রাশিয়ার পর তারাও ডলারকে পাশ কাটানোর নীতি গ্রহণ করেছে। আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে রুপির ব্যবহারসংক্রান্ত নির্দেশনাও জারি করেছে আরবিআই। বলা হয়েছে, আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে, বিশেষ করে রপ্তানিতে গতি আনতেই এ উদ্যোগ।  

ভারতে কয়লা ক্রয়ের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট দুই ব্যবসায়ী জানান, ডলারের বিকল্প মুদ্রায় ক্রয় আরো বাড়বে। কারণ, ব্যাংক ও ব্যবসায়ীরা পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞা এড়িয়ে বাণিজ্যের নতুন নতুন উপায় খুঁজছেন।

রুবলে রাশিয়ার গ্যাস কিনবে তুরস্ক : এ সপ্তাহে তুরস্কের পত্রিকা ডেইল সাবাহর এক প্রতিবেদনে বলা হয়, রাশিয়ার মুদ্রা রুবল দিয়ে তুরস্ক গ্যাস কিনবে বলে জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়িপ এরদোয়ান। রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে বৈঠকের পর এমন সিদ্ধান্তের কথা জানান তিনি। রাশিয়া থেকে আমদানি করা গ্যাসের আংশিক দাম রুবল দিয়ে মেটাবে তুরস্ক। রাশিয়া জানিয়েছে, পুতিনের সঙ্গে এরদোয়ান চার ঘণ্টা বৈঠক করেছেন। তবে তুরস্ক গ্যাসের দামের কতটুকু রুবলে পরিশোধ করবে তা জানায়নি কোনো পক্ষই।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এরদোয়ানের এই সিদ্ধান্ত যুক্তরাষ্ট্র খুব ইতিবাচকভাবে নেবে না। রাশিয়া ইউক্রেন আক্রমণ করার পর যুক্তরাষ্ট্র তাদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। তারা চায়, বাকি দেশগুলোও যেন এই নিষেধাজ্ঞা মেনে চলে।



সাতদিনের সেরা