kalerkantho

সোমবার । ২৭ জুন ২০২২ । ১৩ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৬ জিলকদ ১৪৪৩

ডলারে বিনিয়োগে ছড়ানো হয়েছে গুজব

পুঁজিবাজারে দরপতনে সূচক কমল ১.৪৬ শতাংশ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



পুঁজিবাজারে দরপতনে সূচক কমল ১.৪৬ শতাংশ

পুঁজিবাজারে টানা তৃতীয় দিন বড় দরপতন হলো। পুঁজিবাজারসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, ডলারের বিপরীতে টাকার দর হারানোর পরিপ্রেক্ষিতে গুজব ছড়ানো হয়েছে। বলা হচ্ছে, ডলারে বিনিয়োগ এখন বেশি লাভজনক। যদিও শেয়ারবাজারের টাকা ডলারের বাজারে যাওয়ার যুক্তিসংগত কোনো কারণ নেই বলে মনে করছেন বাজারসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।

বিজ্ঞাপন

প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচক ডিএসইএক্স গতকাল ৯৩.৫৮ পয়েন্ট বা ১.৪৬ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ছয় হাজার ৩০৯.৯১ পয়েন্টে। ডিএসইর এই সূচকটি কমে ১০ মাস তিন দিন বা ২০২ কার্যদিবস আগের অবস্থানে নেমেছে। এর আগে ২০২১ সালের ১৪ জুলাই সূচকটি আজকের চেয়ে কম অর্থাৎ ছয় হাজার ৩০৭ পয়েন্টে অবস্থান করছিল।

ডিএসইর অপর সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ১৭.২৬ পয়েন্ট বা ১.২২ শতাংশ এবং ডিএসই-৩০ সূচক ২৭.১৮ পয়েন্ট বা ১.১৪ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে এক হাজার ৩৯১.৫০ পয়েন্টে এবং দুই হাজার ৩৩৬.৪৮ পয়েন্টে।

ডিএসইতে আজ টাকার পরিমাণে লেনদেন হয়েছে ৭৬২ কোটি ৯৩ লাখ টাকার, যা আগের কার্যদিবস থেকে ১৬ কোটি ৮৩ লাখ টাকা কম। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৭৭৯ কোটি ৭৬ লাখ টাকার।

ডিএসইতে আজ ৩৮১টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৪২টির বা ১১.০২ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিটের দর বেড়েছে। দর কমেছে ৩১০টির বা ৮১.৩৬ শতাংশের এবং ২৯টির বা ৭.৬১ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, চামড়া, সিরামিক, সিমেন্ট, আবাসন ও ভ্রমণ খাতের সব কম্পানি দর হারিয়েছে। প্রধান খাতগুলোর মধ্যে বস্ত্রে তিনটির দর বৃদ্ধির বিপরীতে ৫৫টি, সাধারণ বীমা খাতে দুটি কম্পানির দর বৃদ্ধির বিপরীতে ৩৬টি, জীবন বীমায় দুটির বিপরীতে ১১টি, প্রকৌশল খাতে তিনটির বিপরীতে ৩৭টি, ওষুধ ও রসায়ন খাতে তিনটির বিপরীতে ২৭টি, ব্যাংকে পাঁচটির বিপরীতে ২০টি, আর্থিক খাতে তিনটির বিপরীতে ১৬টি কম্পানি দর হারিয়েছে। অন্যদিকে মাত্র একটি কম্পানির দর দিনের দর বৃদ্ধির সর্বোচ্চ সীমা ছুঁতে পেরেছে। সেটি হলো এস আলম কোল্ড রোল স্টিল।

চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই এদিন ১৭০.০১ পয়েন্ট বা ০.৯০ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ১৮ হাজার ৫৭৫.১৫ পয়েন্টে। সিএসইতে হাতবদল হওয়া ২৯৪টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ারের দর বেড়েছে ৫৩টির, কমেছে ২১৪টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৭টির দর। আজ সিএসইতে ২২ কোটি ৩৬ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

এদিকে পুঁজিবাজারে গতি আনতে গত মঙ্গলবার কয়েকটি পদেক্ষেপ নিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি ও আইসিবি। উভয় প্রতিষ্ঠানের বৈঠকের পর একটি বিজ্ঞপ্তি আসে যে ব্যাংকঋণ পরিশোধের সময় পিছিয়ে দিতে আবেদন করা হয়েছে। পাশাপাশি পুঁজিবাজার স্থিতিশীলতা তহবিল থেকে আইসিবিকে আরো টাকা দেওয়া হবে। কিন্তু এসব খবরেও বিনিয়োগকারীদের মধ্যে আস্থা ফিরে আসছে না।

বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. রেজাউল করিম বৈঠক সম্পর্কে সাংবাদিকদের জানান, ক্যাপিটাল মার্কেট স্ট্যাবিলাইজেশন ফান্ড থেকে এরই মধ্যে প্রাপ্ত এবং ভবিষ্যতে প্রাপ্ত অর্থ সেকেন্ডারি মার্কেটে বিনিয়োগের মাধ্যমে শেয়ারবাজারে সাপোর্ট অব্যাহত রাখা হবে। আগামী কয়েক দিন আইসিবি ও আইসিবির সাবসিডিয়ারি প্রতিষ্ঠানের ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারী এবং অন্য স্টেকহোল্ডারদের সিকিউরিটিজ বিক্রয়ে নিরুৎসাহ করার উদ্যোগ নেওয়া হবে।

প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) কাছ থেকে ৫০০ কোটি টাকার মেয়াদি আমানত প্রদানের অনুরোধ জানিয়ে আইসিবি কর্তৃক চিঠি পাঠানো হয়েছে। এই অর্থ যাতে আইসিবি পায়, সে ব্যাপারে উদ্যোগ নেওয়া হবে।

আইসিবির কাছে থাকা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের মেয়াদ পূর্ণ হয়ে যাওয়া এফডিআর নবায়ন করারও উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এরই মধ্যে এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছে চিঠি পাঠিয়েছে আইসিবি। ফলে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের এফডিআরের অর্থ ফেরত দেওয়ার জন্য আইসিবি গত কয়েক দিন শেয়ার বিক্রি করে যে অর্থ সংগ্রহ করেছে, সে অর্থ আবার বাজারে ফিরে আসবে। রাজধানীর মতিঝিলে আইসিবির প্রধান কার্যালয়ে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন বিএসইসির কমিশনার অধ্যাপক শেখ শামসুদ্দিন আহমেদ।



সাতদিনের সেরা