kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জুন ২০২২ । ১৪ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৭ জিলকদ ১৪৪৩

অবণ্টিত লভ্যাংশ জমা না দেওয়া কম্পানির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৬ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অবণ্টিত লভ্যাংশ জমা না দেওয়া কম্পানির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা

পুঁজিবাজার স্থিতিশীলকরণ তহবিল (সিএমএসএফ) গঠনের এক বছর পর এখন পর্যন্ত মাত্র ৭৯৮ কোটি টাকার নগদ অর্থ ও শেয়ার তহবিলে হস্তান্তও করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার পর্যন্ত এই তহবিলে বিভিন্ন কম্পানির অবণ্টিত ক্যাশ ডিভিডেন্ডের ৪৬০ কোটি টাকা হস্তান্তর করা হয়েছে। এর বাইরে অবণ্টিত বা অদাবিকৃত যে বোনাস শেয়ার হস্তান্তর করা হয়েছে বাজারমূল্যে তার দাম ছিল ৩৩৮ কোটি টাকা। সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা থাকার পরও তালিকাভুক্ত সব কম্পানি তাদের অবণ্টিত ডিভিডেন্ড তহবিলে হস্তান্তর না করায় সম্প্রতি এক বৈঠকে অসন্তোষ প্রকাশ করেছে এই কমিটি।

বিজ্ঞাপন

যেসব কম্পানি তহবিলে অবণ্টিত ডিভিডেন্ড দেয়নি, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে শেয়ারবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসির সঙ্গে আলোচনা করে ব্যবস্থা নেওয়ার পরিকল্পনা করছে তহবিলের ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ। সিএমএসএফের অডিট অ্যান্ড অ্যাকাউন্টস ম্যানেজমেন্ট কমিটি (এএএমসি) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

অবণ্টিত ডিভিডেন্ড ব্যবস্থাপনায় স্বচ্ছতা আনতে তালিকাভুক্ত সব কম্পানি থেকে অর্থ ও শেয়ার নিয়ে এই বিশেষ তহবিল গঠন করেছে বিএসইসি। তহবিলটি পরিচালনায় প্রধানমন্ত্রীর সাবেক মুখ্য সচিব এবং জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান নজিবুর রহমানের নেতৃত্বে একটি পর্ষদ রয়েছে।

শেয়ারবাজারের উন্নয়ন ও তারল্য সংকট দূর করতে ২০ হাজার কোটি টাকার স্থিতিশীল তহবিল গঠন করেছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। তালিকাভুক্ত বিভিন্ন কম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের অবণ্টিত নগদ ও বোনাস লভ্যাংশ বা বিতরণ না হওয়া যেকোনো তহবিল বা অমীমাংসিত শেয়ার বা দাবি না করা শেয়ার বা ফেরত না দেওয়া পাবলিক সাবস্ক্রিপশনের অর্থ দিয়ে এ তহবিল গঠন করা হয়েছে।

তবে আগের নির্দেশনা অনুযায়ী এখনো অনেক কম্পানি তাদের অবণ্টিত লভ্যাংশ তহবিলে জমা দেয়নি। তাই ওই কম্পানিগুলোকে ৩১ মার্চের মধ্যে অবণ্টিত লভ্যাংশ তহবিলের ব্যাংক ও বিও হিসাবে জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে বিএসইসি। সব শেষ এ সময়ের মধ্যে অবণ্টিত লভ্যাংশ স্থিতিশীল তহবিলে স্থানান্তর না করলে কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে কমিশন।

এদিকে বাজারে পতন ঠেকাতে এই তহবিল থেকে এখন পর্যন্ত ১৫০ কোটি টাকার শেয়ার কেনা হয়েছে বলে জানিয়েছে অডিট কমিটি। সরকারি বিনিয়োগ প্রতিষ্ঠান আইসিবির মাধ্যমে এই বিনিয়োগ করা হয়েছে।

 



সাতদিনের সেরা