kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জুন ২০২২ । ১৪ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৭ জিলকদ ১৪৪৩

ইলেকট্রনিকস খাতের বিকাশে নীতিমালা চান উদ্যোক্তারা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৬ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মানসম্মত পণ্য তৈরি করতে পারলে বিশ্ববাজারে ইলেকট্রিক্যাল পণ্যের বাজার ধরা সম্ভব। ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিকস খাতের প্রসারের জন্য কমপ্লায়েন্স নিশ্চিত করতে একটি নীতিমালা চেয়েছেন খাতসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।

এফবিসিসিআইয়ের কার্যালয়ে ‘ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিকস মার্চেন্ডাইজ’ বিষয়ক এফবিসিসিআই স্ট্যান্ডিং কমিটির সভায় এ প্রস্তাব দেন ব্যবসায়ী নেতারা। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন।

বিজ্ঞাপন

সভায় এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, ‘একসময় ইলেকট্রিক্যাল পণ্য আমদানি করতে হতো আমাদের। এখন প্রায় ৮০ শতাংশই দেশে তৈরি হয়। ছোট-বড় সব কম্পানিই দেশের অর্থনীতিতে অবদান রাখছে। ছোট ব্যবসায়ীদের টিকিয়ে রাখতে সরকারও যথেষ্ট নিরাপত্তা দিচ্ছে। তাদের জন্য নীতিমালা তৈরিতে সহযোগিতা করতে হবে আমাদের। শুধু নিজস্ব ব্যবসার উন্নতি হিসাব না করে পুরো খাতের উন্নয়নে কাজ করতে হবে। ’ এ সময় ব্যাকওয়ার্ড লিংকেজ প্রতিষ্ঠায় জোর দিতে ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

এফবিসিসিআইয়ের সিনিয়র সহসভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু বলেন, ইলেকট্রিক্যালসহ যেসব খাতের পণ্য দেশের বাইরে রপ্তানি করে রাজস্ব আয় করা সম্ভব, সেসব খাতকে পূর্ণ সহযোগিতা করতে হবে।

বক্তারা উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, দেশের দু-একটি বড় কম্পানির আগ্রাসী মনোভাব, হঠকারী ব্যাবসায়িক নীতি ছোট উদ্যোক্তাদের সংকটে ফেলছে। দেশের একটি বড় কম্পানি বাজারে বিশাল অঙ্কের বাকি দিচ্ছে, আগ্রাসী বাজারজাতকরণ নীতি অনুসরণ করছে এবং তারা এককভাবে বাজার নিয়ন্ত্রণ করবার চেষ্টা করছে। অন্যদিকে ছোট ও মাঝারি ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিকস শিল্প উদ্যোক্তারা বাজারে বিপুল পরিমাণ বাকি টাকা তুলতে ব্যর্থ হন, ব্যাংক ঋণ পরিশোধ না করতে পারায় খেলাপিতে পরিণত হচ্ছেন।

 



সাতদিনের সেরা