kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জুন ২০২২ । ১৪ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৭ জিলকদ ১৪৪৩

ক্রেন ও ফর্কলিফটের দাবি

বেনাপোলে পণ্য পরিবহন বন্ধ কাল থেকে

বেনাপোল প্রতিনিধি   

১৬ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বেনাপোল স্থলবন্দরে পর্যাপ্ত ক্রেন ও ফর্কলিফট না থাকায় পণ্য পরিবহন ব্যাহত হচ্ছে। পর্যাপ্ত ক্রেন ও ফর্কলিফটের দাবিতে আগামী ১৭ মে থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য পণ্য পরিবহন বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে বেনাপোল ট্রান্সপোর্ট এজেন্সি মালিক সমিতি। গতকাল রবিবার এ কথা জানিয়েছেন বেনাপোল ট্রান্সপোর্ট এজেন্সি মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক জি এম আজিম উদ্দিন গাজী।

তিনি বলেন, দেশের সর্ববৃহৎ বন্দর হওয়া সত্ত্বেও বেনাপোলে ভারী পণ্য ওঠানো-নামানোর জন্য পর্যাপ্ত ক্রেন ও ফর্কলিফট নেই।

বিজ্ঞাপন

বেনাপোল স্থলবন্দরে আমদানি ও রপ্তানি পণ্য লোড-আনলোড করতে হলে ৩০ থেকে ৩৫টি ক্রেন ও ফর্কলিফটের প্রয়োজন। কিন্তু এখানে ক্রেন আছে ছয়টি ও ফর্কলিফট আছে মাত্র ৯টি। আর যেগুলো আছে তার মধ্যে বেশির ভাগ নষ্ট। কয়েকটি ভালো থাকলেও পণ্য খালাস করতে গিয়ে বারবার নষ্ট হয়ে যায়। এই ক্রেন ও ফর্কলিফটের চালকরাও অদক্ষ। ফলে এ বন্দরে আমদানীকৃত ভারী পণ্য খালাস করতে দীর্ঘদিন সময় লেগে যাচ্ছে। এতে ব্যবসায়ীরা মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন এ বন্দর থেকে; যার ফলে আগামী ১৭ মে থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য পণ্য পরিবহন বন্ধের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। তিনি আরো বলেন, এ বিষয়ে বেনাপোল স্থলবন্দরের উপপরিচালক (ট্রাফিক) মামুন কবির তরফদারকে চিঠি দিয়ে বিষয়টি জানালেও তিনি বিষয়টি আমলে নেননি।

স্থলবন্দরের উপপরিচালক (ট্রাফিক) মামুন কবির তরফদার জানান, বিষয়টি নিয়ে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানানো হয়েছে। আশা করছি বিষয়টি সমাধান হয়ে যাবে। বেনাপোল বন্দর ব্যবহারকারী ব্যবসায়ী কামাল হোসেন জানান, এ বন্দরের প্রায় সব ক্রেন ও ফর্কলিফট অকেজো হয়ে গেছে। যে ক্রেন ও ফর্কলিফট একটু ভালো আছে সেগুলোও বারবার নষ্ট হয়ে যায়। ফলে তাঁদের প্রতিদিন বাড়তি ট্রাকভাড়া দিতে হচ্ছে। এতে ট্রান্সপোর্ট ও সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টদের লোকসানে পড়তে হচ্ছে।



সাতদিনের সেরা