kalerkantho

বৃহস্পতিবার ।  ১৯ মে ২০২২ । ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩  

চট্টগ্রাম-মধ্যপ্রাচ্য ফ্লাইট বাড়লেও ভাড়া কমছে না

৩৫ হাজার টাকা থেকে ভাড়া বেড়ে এখন এক লাখ টাকা

আসিফ সিদ্দিকী, চট্টগ্রাম   

২৮ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চট্টগ্রাম-মধ্যপ্রাচ্য ফ্লাইট বাড়লেও ভাড়া কমছে না

চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাই, আবুধাবি, শারজাহ রুটে সপ্তাহে ২৬টি ফ্লাইট চালাচ্ছে দেশি-বিদেশি চারটি বিমান সংস্থা। এই রুটে সর্বশেষ যুক্ত হয়েছে দেশি বেসরকারি বিমান সংস্থা ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনস। চট্টগ্রাম থেকে ভায়া হয়েও মধ্যপ্রাচ্যের সেই তিনটি স্থানে যাওয়ার সুযোগ আছে একাধিক বিমান সংস্থার। এত ফ্লাইট যুক্ত হওয়ার পরও ভাড়া হাতের নাগালে আসেনি।

বিজ্ঞাপন

এত দিন এই রুটে একচেটিয়া ব্যবসা করছিল শারজাহভিত্তিক বিমান সংস্থা ‘এয়ার অ্যারাবিয়া’। গত সপ্তাহে তারা ফ্লাইট সংখ্যা বাড়িয়ে ১০ থেকে ১৪টিতে উন্নীত করেছে। দুবাইভিত্তিক বিমান সংস্থা ‘ফ্লাই দুবাই’ সপ্তাহে সাতটি ফ্লাইট চালাচ্ছে চট্টগ্রাম-দুবাই রুটে। বাংলাদেশ বিমান নানা জটিলতার পর এখন মাত্র দুটি ফ্লাইট চালাচ্ছে একই রুটে। সর্বশেষ এই তালিকায় যুক্ত হয়েছে দেশি ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনস; সপ্তাহে চট্টগ্রাম-শারজাহ রুটে তিনটি ফ্লাইট দিয়ে, কিন্তু ভাড়া কমার কোনো লক্ষণই নেই।

করোনা মহামারি শুরুর কয়েক মাস আগেও চট্টগ্রাম-দুবাই (ওয়ানওয়ে) যেতে ভাড়া ছিল ৩৫ হাজার টাকা। আসা-যাওয়া মিলিয়ে ৪৫-৫০ হাজার টাকায় টিকিট কেনা যেত। সেটি বাড়তে বাড়তে এখন শুধু যাওয়ার ভাড়াই এক লাখ টাকা ছুঁয়েছে।

বিমান সংস্থাগুলোর ফ্লাইট ভাড়া যাচাই করে দেখা গেছে, ১ ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রাম-দুবাই রুটে ‘ফ্লাই দুবাই’য়ের একমুখী ভাড়া এক লাখ এক হাজার টাকা। একই দিন চট্টগ্রাম-শারজাহ রুটে ‘এয়ার অ্যারাবিয়া’র ভাড়া প্রায় এক লাখ টাকা। সর্বশেষ যাত্রা শুরু করা ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসের ওই দিন কোনো টিকিটই অবিক্রীত নেই। এই রুটে অবশ্য বাংলাদেশ বিমানের ভাড়া বাড়তি ফ্লাইট পরিচালনার পরও না কমাটা অবিশ্বাস্য এবং জুলুম বলছে ট্রাভেল এজেন্সিগুলো।

জানতে চাইলে হজ এজেন্সিস অ্যাসোসিয়েশন (হাব) চট্টগ্রাম সভাপতি শাহ আলম বলছেন, ‘বিদেশি বিমান সংস্থাগুলো এর মাধ্যমে টাকা পাচার করছে কি না, খতিয়ে দেখা উচিত। ’



সাতদিনের সেরা