kalerkantho

সোমবার । ৩ মাঘ ১৪২৮। ১৭ জানুয়ারি ২০২২। ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

১৩ মাসে সর্বোচ্চ ঋণ প্রবৃদ্ধি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২ ডিসেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



করোনা পরিস্থিতির উন্নতিতে বেসরকারি খাতে ঋণেও গতি ফিরেছে। সর্বশেষ গত অক্টোবর মাসে এ খাতে বার্ষিক ঋণ প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৯.৪৪ শতাংশ, যা ১৩ মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ। আগের মাস সেপ্টেম্বরে বার্ষিক প্রবৃদ্ধি ছিল ৮.৭৭ শতাংশ। আর গত বছরের অক্টোবরে বার্ষিক প্রবৃদ্ধি হয়েছিল ৮.৬১ শতাংশ।

বিভিন্ন কারণে দীর্ঘদিন ধরেই বেসরকারি ঋণে মন্থরগতি চলছে। মহামারি করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে গত অর্থবছরের মে মাসে তা একেবারে তলানিতে নেমে যায়। ওই মাসে বার্ষিক ঋণ প্রবৃদ্ধি হয় মাত্র ৭.৫৫ শতাংশ, যা বাংলাদেশের ইতিহাসে সর্বনিম্ন। যদিও করোনার ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে সরকার ঘোষিত প্রণোদনার ঋণের ওপর ভর করে গত অর্থবছরের প্রথম কয়েক মাসে বেসরকারি খাতে ঋণ প্রবৃদ্ধিতে কিছুটা গতি এসেছিল।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য বলছে, করোনার প্রথম ঢেউয়ে ২০১৯-২০ অর্থবছরে বেসরকারি খাতে ঋণের প্রবৃদ্ধি ৮.৬১ শতাংশে নেমে আসে। এরপর সরকারের প্রণোদনার ঋণের ওপর ভর করে ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রথম মাস জুলাইয়ে এই প্রবৃদ্ধি বেড়ে ৯.২০ শতাংশ হয়। আগস্টে তা আরো বেড়ে ৯.৩৬ শতাংশে এবং সেপ্টেম্বরে ৯.৪৮ শতাংশে ওঠে। এরপর করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে সেই প্রবৃদ্ধি কমতে কমতে গত মে মাসে তা ৮ শতাংশের নিচে নেমে যায়। তবে করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় চলতি অর্থবছর থেকে ঋণ প্রবৃদ্ধিতে গতি আসতে শুরু করেছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদনে দেখা যায়, গত অর্থবছরের শেষ মাস থেকে টানা বাড়ছে বেসরকারি খাতের ঋণ প্রবৃদ্ধি। গত জুন মাসে এ খাতে বার্ষিক ঋণ প্রবৃদ্ধি হয় ৮.৩৫ শতাংশ। এরপর চলতি অর্থবছরের জুলাইতে তা ৮.৩৮ শতাংশ, আগস্টে ৮.৪২ শতাংশ, সেপ্টেম্বরে ৮.৭৭ শতাংশ এবং অক্টোবরে তা উঠেছে ৯.৪৪ শতাংশে। প্রাপ্ত তথ্য বলছে, গত অক্টোবর শেষে বেসরকারি খাতে ব্যাংকগুলোর বিতরণ করা ঋণস্থিতি দাঁড়িয়েছে ১২ লাখ ১৯ হাজার ৫৩৬ কোটি টাকা।



সাতদিনের সেরা