kalerkantho

শনিবার । ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৪ ডিসেম্বর ২০২১। ২৮ রবিউস সানি ১৪৪৩

‘মোবাইল ব্যাংকিংয়ে প্রতিষ্ঠানের ২৫% অর্থ জমা থাকে’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৫ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মোবাইল ব্যাংকিং নিয়ে শঙ্কার কোনো কারণ নেই উল্লেখ করে বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর আহমেদ জামাল বলেন, ‘এই সেবার নিরাপত্তার জন্য মোবাইল আর্থিকসেবা (এমএফএস) প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে ২৫ শতাংশ অর্থ বাংলাদেশ ব্যাংকে জমা থাকে।’ গতকাল বুধবার রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে ‘মোবাইল ফিন্যানশিয়াল সার্ভিসের গুরুত্ব ও ভবিষ্যৎ সম্ভাবনা’ নিয়ে বাংলাদেশ উন্নয়ন পরিষদ আয়োজিত এক গোলটেবিল বৈঠকে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি। তিনি বলেন, “এমএফএস, পেমেন্ট সার্ভিস প্রভাইডার (পিএসপি) এবং পেমেন্ট সিস্টেম অপারেটরগুলোর (পিএসও) পরিশোধ ও লেনদেন নিষ্পত্তিসেবা দেওয়ার প্রক্রিয়ায় গ্রাহক বা মার্চেন্টের অর্থ কিছু সময়ের জন্য আমাদের জিম্মায় থাকে। ট্রাস্ট্র কাম সেটেলমেন্ট অ্যাকাউন্টে (এমএফএসের) আট হাজার কোটি টাকা জিম্মায় আছে। তা ছাড়া সেবা দেওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর ধারণ করা অর্থের নিরাপত্তা এবং সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলোর স্বার্থরক্ষার জন্য ‘গাইডলাইনস ফর ট্রাস্ট ফান্ড ম্যানেজমেন্ট ইন পেমেন্ট অ্যান্ড সেটেলমেন্ট সার্ভিসেস’ শীর্ষক নীতিমালা প্রণয়ন করা হয়েছে। সুতরাং গ্রাহকদের কোনো সমস্যা হবে না মোবাইল ব্যাংকিংয়ে।” এ সময় তিনি জনসাধারণকে সচেতন হওয়ার পরামর্শ দেন। এর আগে অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার অনিক আর হক। গোলটেবিল বৈঠকে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, ‘দেশের আর্থিক অন্তর্ভুক্তির উদ্যোগের বড় চালিকাশক্তি এমএফএস। এর মাধ্যমে প্রায় ১০ কোটির বেশি এমএফএস অ্যাকাউন্ট এবং দুই হাজার কোটি টাকা দৈনিক লেনদেন হয়। এর মধ্যে ৪৭ শতাংশই নারী। এটা আমাদের জন্য দারুণ খবর।’ পল্লী কর্মসহায়ক ফাউন্ডেশনের (পিকেএসএফ) চেয়ারম্যান ও অর্থনীতিবিদ ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।



সাতদিনের সেরা