kalerkantho

বুধবার । ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৮ ডিসেম্বর ২০২১। ৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

বঙ্গবন্ধু শিল্প পুরস্কার পাচ্ছে ২৩ প্রতিষ্ঠান

♦ বৃহত্ শিল্প, মাঝারি শিল্প, ক্ষুদ্রশিল্প, মাইক্রোশিল্প, হাইটেকশিল্প, হস্ত ও কারুশিল্প এবং কুটির শিল্প—এই সাত ক্যাটাগরিতে পুরস্কার দেওয়া হবে।
♦ দুই ক্যাটাগরিতে যৌথভাবে দুটি প্রতিষ্ঠান নির্বাচিত হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৮ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বঙ্গবন্ধু শিল্প পুরস্কার পাচ্ছে ২৩ প্রতিষ্ঠান

শিল্প ক্ষেত্রে অবদানের জন্য সাত ক্যাটাগরিতে প্রতিটিতে তিনজন করে মোট ২১ জন শিল্পোদ্যোক্তা ও প্রতিষ্ঠানকে ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প পুরস্কার-২০২০’ প্রদান করা হচ্ছে আজ বৃহস্পতিবার। তবে এবার দুটি ক্যাটাগরিতে যৌথভাবে দুটি করে প্রতিষ্ঠান নির্বাচিত হওয়ায় মোট ২৩ প্রতিষ্ঠানকে এই পুরস্কার দেওয়া হবে। রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে প্রথমবারের মতো শিল্প মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে এই পুরস্কার তুলে দেওয়া হবে। গতকাল বুধবার এ উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন ও শিল্পসচিব জাকিয়া সুলতানা। 

বৃহৎ শিল্প, মাঝারি শিল্প, ক্ষুদ্রশিল্প, মাইক্রোশিল্প, হাইটেকশিল্প, হস্ত ও কারুশিল্প এবং কুটির শিল্প—এই সাত ক্যাটাগরিতে পুরস্কার দেওয়া হবে। ১ জুলাই থেকে পরের বছর ৩০ জুন সময়ের জন্য এই পুরস্কার প্রদান করা হবে প্রতিবছরই। এ বছর বৃহৎ শিল্প ক্যাটাগরিতে চারটি, মাঝারি শিল্প ক্যাটাগরিতে চারটি, ক্ষুদ্রশিল্প ক্যাটাগরিতে তিনটি, মাইক্রোশিল্প ক্যাটাগরিতে তিনটি, হাইটেকশিল্প ক্যাটাগরিতে তিনটি, হস্ত ও কারুশিল্প ক্যাটাগরিতে তিনটি এবং কুটির শিল্প ক্যাটাগরিতে তিনটি পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে।

বৃহৎ শিল্প ক্যাটাগরির প্রথম স্থানে স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস, দ্বিতীয় স্থানে জজ ভুঞা টেক্সটাইল মিলস, তৃতীয় স্থানে যৌথভাবে আদুরী অ্যাপারেলস ও ইউনিভার্সেল জিন্স রয়েছে। মাঝারি শিল্প ক্যাটাগরির প্রথম স্থানে যৌথভাবে অকো টেক্স ও ফরচুন শুজ, দ্বিতীয় স্থানে রহিমআফরোজ রিনিউএবল এনার্জি, তৃতীয় স্থানে মাধবী ডায়িং মিলস। ক্ষুদ্রশিল্প ক্যাটাগরিতে প্রথম স্থানে আমান প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রিজ, দ্বিতীয় স্থানে এসআর হ্যান্ডিক্রাফটস, তৃতীয় স্থানে আলিম ইন্ডাস্ট্রিজ। মাইক্রোশিল্প ক্যাটাগরির প্রথম স্থানে মেসার্স কারুকলা, দ্বিতীয় স্থানে ট্রিম টেক্স বাংলাদেশ এবং তৃতীয় স্থানে জনতা ইঞ্জিনিয়ারিং।

হাইটেক শিল্প ক্যাটাগরির প্রথম স্থানে সার্ভিস ইঞ্জিন, দ্বিতীয় স্থানে সুপার স্টার ইলেকট্রনিকস এবং তৃতীয় স্থানে মীর টেলিকম। হস্ত ও কারুশিল্প ক্যাটাগরির প্রথম স্থানে ক্লাসিক্যাল হ্যান্ডমেইড প্রডাক্টস বিডি, দ্বিতীয় স্থানে আয়োজন, তৃতীয় স্থানে সোনালি নকশী কাঁথা মহিলা উন্নয়ন সংস্থা। কুটির শিল্প ক্যাটাগরির প্রথম স্থানে আর্টস অ্যান্ড ক্রাফট, দ্বিতীয় স্থানে রংমেলা নারী কল্যাণ সংস্থা (আরএনকেএস) এবং তৃতীয় স্থানে অগ্রজ।

প্রথম পুরস্কার হিসেবে প্রত্যেককে তিন লাখ টাকা ও ২৫  গ্রাম স্বর্ণখচিত ক্রেস্ট, দ্বিতীয় পুরস্কার হিসেবে দুই লাখ টাকা ও ২০ গ্রাম স্বর্ণখচিত ক্রেস্ট এবং তৃতীয় পুরস্কার হিসেবে এক লাখ টাকা ও ১৫ গ্রাম স্বর্ণখচিত ক্রেস্ট দেওয়া হবে। স্বর্ণের ক্রেস্টগুলো ১৮ ক্যারেট মানের স্বর্ণ দিয়ে নির্মিত।

শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর দেখানো পথে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্ব বজায় রাখতে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী উন্নয়নকে দৃঢ় করেছেন।’ তিনি আরো বলেন, ‘শিল্প মন্ত্রণালয়ের অনেক দায়িত্ব আছে। কভিডের মধ্যেও আমরা কাজ করেছি এবং বর্তমানেও করছি। ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ উন্নত দেশে যাওয়ার জন্য যেসব কাজ করার দরকার, তা যথাযথভাবে পালন করা হচ্ছে।’

শিল্পসচিব জাকিয়া সুলতানা বলেন, ‘এই পুরস্কার দেওয়ার লক্ষ্য হচ্ছে, বেসরকারি খাতকে সমৃদ্ধ করা এবং বিনিয়োগকে উৎসাহী করা। উদ্যোক্তারা যদি উৎসাহী হয়ে এই খাতে আরো বেশি বিনিয়োগ করে সেদিকে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।’   



সাতদিনের সেরা