kalerkantho

বুধবার । ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ১ ডিসেম্বর ২০২১। ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩

ডলারের দাম নিয়ন্ত্রণে বিক্রি বাড়িয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক

তিন মাসে বিক্রি ১৪১ কোটি ডলার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৭ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ডলারের দাম নিয়ন্ত্রণে বিক্রি বাড়িয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক

ডলারের দাম নিয়ন্ত্রণের মধ্যে রাখতে বাজারে ডলার সরবরাহ বাড়িয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। গতকাল মঙ্গলবারও ব্যাংকগুলোর কাছে সাড়ে তিন কোটি ডলার বিক্রি করা হয়েছে। এই নিয়ে চলতি অক্টোবর মাসের প্রথম ২৬ দিনে বিক্রি করা হয়েছে প্রায় ৪৬ কোটি ৮০ লাখ ডলার। এটি সেপ্টেম্বর মাসের পুরো সময়ের চেয়ে ১৬ কোটি ৩০ লাখ ডলার বেশি। সব মিলিয়ে গত তিন মাসে প্রায় ১৪১ কোটি ৪০ লাখ ডলার বিক্রি করা হয়েছে। বাংলাদেশি টাকায় যার পরিমাণ প্রায় ১২ হাজার ১১০ কোটি টাকা।

রপ্তানি আয়ে ধীরগতি ও প্রবাসী আয়ের নিম্নমুখী প্রবণতার মধ্যে বিভিন্ন পণ্যের আমদানি অস্বাভাবিক গতিতে বাড়ছে। এতে বাজারে ডলারের সংকট তীব্র আকার ধারণ করছে। এই সংকট আন্ত ব্যাংকের চেয়ে খোলাবাজারে বেশি। ফলে খোলাবাজারে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে নগদ ডলারের দাম। ব্যাংকেও নগদ ডলারের দাম চড়া। তবে বাজারে সরবরাহ বাড়ানোর কারণে আন্ত ব্যাংকে ডলারের দাম গত এক সপ্তাহে নতুন করে বাড়েনি।

করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ার পর থেকে দেশে অস্বাভাবিক গতিতে বাড়ছে বিভিন্ন পণ্যের আমদানি। মূলধনী যন্ত্রপাতি, শিল্পের কাঁচামাল, শিল্পের মধ্যবর্তী পণ্য, খাদ্যপণ্য, জ্বালানি তেল—সব পণ্যের আমদানিই এখন বেশ ঊর্ধ্বমুখী। বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্যানুযায়ী, চলতি অর্থবছরের প্রথম দুই মাসে (জুলাই-আগস্ট) এক হাজার ৭৬ কোটি ডলারের পণ্য আমদানি হয়েছে। এই অঙ্ক ২০২০-২১ অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে ৪৫.৩১ শতাংশ বেশি। অন্যদিকে একই সময়ে এক হাজার ২১৩ কোটি ডলারের বিভিন্ন পণ্য আমদানির এলসি খোলা হয়েছে। এই অঙ্ক ২০২০-২১ অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে ৪৮.৬০ শতাংশ বেশি।

করোনার সময় দেশে রেমিট্যান্স অনেক বেড়েছিল। তবে করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তা আবার কমতে শুরু করেছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য বলছে, গত জুন থেকে প্রবাসী আয় কমছে। সেপ্টেম্বর মাসে দেশে যে পরিমাণ রেমিট্যান্স এসেছে তা আগের মাসের চেয়ে প্রায় ৪.৫০ শতাংশ এবং গত অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে প্রায় ২০ শতাংশ কম। চলতি মাসের প্রথম ১৪ দিনে দেশে রেমিট্যান্স এসেছে মাত্র ৮৮ কোটি ডলার।



সাতদিনের সেরা