kalerkantho

রবিবার । ১ কার্তিক ১৪২৮। ১৭ অক্টোবর ২০২১। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

রপ্তানিতে নগদ সহায়তা পাবে ৪২ পণ্য

নতুনভাবে যুক্ত চা, বাইসাইকেল, এমএস স্টিল ও সিমেন্ট শিট পাবে ৪ শতাংশ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২১ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রপ্তানিতে নগদ সহায়তা পাবে ৪২ পণ্য

২০২১-২২ অর্থবছরে বস্ত্র খাতের পাঁচটি উপখাতসহ ৪২টি পণ্য রপ্তানির বিপরীতে নগদ সহায়তা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। গত অর্থবছরের মতো এবারও ১ থেকে ২০ শতাংশ হারে নগদ সহায়তা পাবে সংশ্লিষ্ট পণ্যগুলো। এর মধ্যে নতুভাবে যুক্ত চারটি খাতের পণ্য পাবে ৪ শতাংশ হারে নগদ সহায়তা। এর মধ্যে রয়েছে দেশে উৎপাদিত চা, বাইসাইকেল ও এর পার্টস, এমএস স্টিল প্রডাক্টস ও সিমেন্ট শিট। গতকাল সোমবার বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে এসংক্রান্ত সার্কুলার জারি করা হয়েছে।

সার্কুলারে বলা হয়েছে, রপ্তানি মূল্য প্রত্যাবাসনের ৩৬০ দিনের মধ্যে নগদ সহায়তার আবেদন করা যাবে। কোনো একক ব্যক্তি অর্থবছরভিত্তিক সব প্রত্যাবাসন আয়ের বিপরীতে এক বা একাধিক আবেদন দাখিল করতে পারবে। এ ক্ষেত্রে নিরীক্ষা ফার্ম কর্তৃক নিরীক্ষার প্রচলিত ব্যবস্থা প্রযোজ্য হবে।

সার্কুলার অনুযায়ী, এবার বিশেষায়িত অঞ্চলের (বেজা, বেপজা ও হাইটেক পার্ক) বিদ্যমান সহায়তার আওতা বাড়ানো হয়েছে। বিদ্যমান সুবিধা ছাড়াও বিশেষায়িত অঞ্চলের ‘এ’ টাইপ ও ‘বি’ টাইপ প্রতিষ্ঠানের প্রক্রিয়াজাত কৃষিপণ্য রপ্তানির বিপরীতে ৪ শতাংশ হারে নগদ সহায়তা পাবে। আর বিশেষায়িত অঞ্চলের সব ক্যাটাগরিভুক্ত প্রতিষ্ঠান দেশের বাইরে অন্যান্য পণ্য রপ্তানির ক্ষেত্রে ১ শতাংশ হারে রপ্তানি সহায়তা পাবে।

চলতি অর্থবছরে ব্যক্তিপর্যায়ের ফ্রিল্যান্সারদের জন্য ৪ শতাংশ হারে নগদ সহায়তা প্রদানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে আবেদনকারী ফ্রিল্যান্সারদের সরকার প্রদত্ত রেজিস্টার্ড আইডি থাকতে হবে। ফ্লোট গ্লাস শিট, ওপাল গ্লাসওয়্যার, কাস্ট আয়রন ও অ্যালুমিনিয়াম ইঞ্জিনিয়ারিং পণ্য হালকা প্রকৌশল পণ্য খাতের আওতায় রপ্তানি ভতুর্কির জন্য বিবেচিত হবে। পাশাপাশি উচ্চ প্রযুক্তিসম্পন্ন পণ্য (কম্প্রেসর) এবং এইচসিএফসিমুক্ত রেফ্রিজারেটর ইলেকট্রনিক পণ্য হিসেবে কনজিউমার ইলেকট্রনিকস, ইলেকট্রিক্যাল হোম ও কিচেন অ্যাপ্লায়েন্স খাতের আওতায় রপ্তানি ভর্তুকি পাবে।



সাতদিনের সেরা