kalerkantho

বুধবার । ১১ কার্তিক ১৪২৮। ২৭ অক্টোবর ২০২১। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

এএএ ফিন্যান্সের সঙ্গে চুক্তি

পুঁজিবাজারে আসতে চায় সিনেসিস আইটি

বাণিজ্য ডেস্ক   

২৪ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পুঁজিবাজারে আসতে চায় সিনেসিস আইটি

গত রবিবার উভয় প্রতিষ্ঠানের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়

প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজারে আসতে চায় দেশের অন্যতম শীর্ষ তথ্য-প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান সিনেসিস আইটি লিমিটেড। এ লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠানটি এএএ ফিন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডের সঙ্গে ইস্যু ম্যানেজমেন্ট চুক্তি করেছে।

গত রবিবার সিনেসিস আইটি লিমিটেডের প্রধান কার্যালয়ে উভয় প্রতিষ্ঠানের মধ্যে এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। চুক্তির অধীনে সিনেসিস আইটি পুঁজিবাজার থেকে তহবিল উত্তোলনের জন্য এএএ ফিন্যান্স লিমিটেডকে ইস্যু ম্যানেজার হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে।

সিনেসিস আইটি লিমিটেডের পক্ষে স্বাক্ষর করেন প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সোহরাব আহমেদ চৌধুরী এবং এএএ ফিন্যান্সের পক্ষে স্বাক্ষর করেন কম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং সিইও মোহাম্মদ ওবাইদুর রহমান এফসিএস।

সোহরাব আহমেদ চৌধুরী বলেন, ‘এই চুক্তির মাধ্যমে দেশের সীমানা পেরিয়ে বহির্বিশ্বেও আমাদের সেবা সম্প্রসারিত করতে আইপিও অন্তর্ভুক্তির পথে আমাদের যাত্রা শুরু হলো। এএএ ফিন্যান্সের রয়েছে ১০০টিরও বেশি প্রতিষ্ঠানকে আইপিওতে অন্তর্ভুক্তির অভিজ্ঞতা। আশা করি, এই চুক্তির মাধ্যমে আমরা স্বল্প সময়ের মধ্যেই পুঁজিবাজারে অভিষিক্ত হব।’

মোহাম্মদ ওবাইদুর রহমান বলেন, ‘আমাদের বিশ্বাস, সিনেসিস আইটি পুঁজিবাজারে এলে দেশের পুঁজিবাজারের আরো সম্প্রসারণ হবে এবং এ ধরনের অন্য প্রতিষ্ঠানগুলো পুঁজিবাজারে আসতে আগ্রহী হবে।’

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন এএএ ফিন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার অ্যান্ড হেড অব ইস্যু ম্যানেজমেন্ট মোহাম্মদ খালিদ হোসেন, ডিরেক্টর আবদুস সালাম খান ও ম্যানেজার আহমেদ আশিকুর রহমান এবং সিনেসিস আইটি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সোহরাব আহমেদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদ, ডিরেক্টর আব্দুর রশিদ ও ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার এ কে এম করিম উশ শান।

সরকারি-বেসরকারি খাতের বেশ কিছু বড় প্রকল্পসহ দেশে-বিদেশে বড় তথ্য-প্রযুক্তি প্রকল্প বাস্তবায়নের সাফল্য রয়েছে সিনেসিস আইটির। এর মধ্যে সবচেয়ে আলোচিত প্রকল্প ন্যাশনাল ইকুইপমেন্ট আইডেন্টিটি রেজিস্টার (এনইআইআর), সেন্ট্রাল বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশন মনিটরিং প্ল্যাটফর্মসহ আরো কিছু বড় প্রকল্প বাস্তবায়নের অভিজ্ঞতা রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির। তথ্য-প্রযুক্তিতে অবদানের জন্য প্রতিষ্ঠানটি ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার, বেসিসের ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ড, আন্তর্জাতিক টেলিকমিউনিকেশন ইউনিয়নের (আইটিইউ) ওয়ার্ল্ড সামিট অন ইনফরমেশন সোসাইটি (উইসিস) পুরস্কারসহ অসংখ্য পুরস্কার পেয়েছে।