kalerkantho

শনিবার ।  ২১ মে ২০২২ । ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৯ শাওয়াল ১৪৪৩  

মাটির গর্ভে ট্রিলিয়ন ডলারের খনিজ সম্পদ

সম্পদ থেকেও গরিব আফগানরা

বাণিজ্য ডেস্ক   

২৪ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



সম্পদ থেকেও গরিব আফগানরা

আফগানিস্তান ছাড়তে কাবুল বিমানবন্দরে ভিড় লেগেই আছে। ছবি : এএফপি

কাবুলে তালেবান নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠার পরই আফগানিস্তানের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ৯.৫ বিলিয়ন ডলারের রিজার্ভ আটকে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। সাহায্য প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছে জার্মানি, কানাডাসহ আরো অনেক ইউরোপীয় দেশ। দারিদ্র্য, বেকারত্ব আর দুর্বল অবকাঠামোর আফগানিস্তানের জন্য এটি বড় সংকটেরই পূর্বভাস বলা যায়। তবে পশ্চিমারা যখন মুখ বাঁকা করে চেয়ে আছে তখন তালেবানকে কাছে টানছে প্রতিবেশী চীন।

বিজ্ঞাপন

বিশ্লেষকরা বলছেন, চীনের এই আগ্রহের বড় কারণ দেশটির মাটির গর্ভে লুকিয়ে থাকা ট্রিলিয়ন ডলারের খনিজ সম্পদ। বিশ্ব অর্থনীতিতে নির্মল জ্বালানি আর প্রযুক্তিগত উন্নয়নের যে প্রতিযোগিতা চলছে তাতে এ সম্পদের যথেষ্ট প্রয়োজন রয়েছে। সে সুযোগই কাজে লাগাতে চাইছে চীন। বিশ্লেষকদের মতে, এতে ভাগ্য খুলে যেতে পারে দরিদ্র আফগানদেরও। দেশটি বাণিজ্যিক যোগাযোগেও এশিয়ার গুরুত্বপূর্ণ অবস্থানে রয়েছে।

জানুয়ারি মাসে দেওয়া যুক্তরাষ্ট্রের জিওলজিক্যাল সার্ভের (ইউএসজিএস) এক প্রতিবেদনে বলা হয়, আফগানিস্তানে এক ট্রিলিয়ন ডলারের উত্তোলনযোগ্য খনিজ সম্পদ রয়েছে। যদিও আফগান কর্মকর্তাদের মতে, এ সম্পদ তার তিন গুণ। খনিজ সম্পদের মধ্যে রয়েছে সোনা, অ্যালুমিনিয়াম, তামা, আকরিক লোহা, লিথিয়ামসহ দুর্লভ মৃত্তিকা।

বর্তমানে স্মার্টফোন, উচ্চ প্রযুক্তি থেকে শুরু করে শিল্পে সোনার ব্যবহার উল্লেখযোগ্য। আর রিজার্ভ হিসেবে এর রয়েছে অন্য রকম চাহিদা। বৈদ্যুতিক তারসহ শিল্প উত্পাদনে বহুল ব্যবহৃত তামার দাম এ বছরই এক লাফে বেড়ে প্রতি টন ১০ হাজার ডলার ছাড়িয়েছে। লিথিয়াম হচ্ছে ইলেকট্রিক গাড়ির ব্যাটারি, সৌর প্যানেল ও বায়ুবিদ্যুৎ উত্পাদনে ব্যবহৃত গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। আন্তর্জাতিক জ্বালানি সংস্থার হিসাবে, বিশ্ব নবায়নযোগ্য জ্বালানির দিকে ঝোঁকায় ২০৪০ সাল নাগাদ লিথিয়ামের চাহিদা ৪০ গুণ বাড়বে। ‘দ্য রেয়ার মেটালস ওয়ার’ বইয়ের লেখক গুয়েলাম পিটরন বলেন, ‘লিথিয়ামের ওপর ভাসছে আফগানিস্তান, এখনো পর্যন্ত যা উত্তোলন করা হয়নি। ’ আছে নিওডিমাম, প্রেসিওডিমাম, ডিসপ্রোসিয়ামসহ বহু দুর্লভ মৃত্তিকা। যা স্মার্টফোন, টিভি, ফাইবার অপটিক তৈরির কাজে লাগে। এ ছাড়া দেশটিতে বর্তমানে ট্যালক, মার্বেল, কয়লা ও লোহার খনিতে কাজ চলছে।

২০ বছর আগে আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন ন্যাটোর ঢুকে পড়ার কারণ হিসেবে বলা হয়েছিল ‘সন্ত্রাস দমন’। তবে যুক্তরাষ্ট্রের নীতিনির্ধারকরা ভেবেছিলেন, হয়তো তালেবানকে হারিয়ে আফগানিস্তানের খনিজ সম্পদও দখল করা যাবে। মাঠ পর্যায়ের ক্রমাগত যুদ্ধ পরিস্থিতি তাদের সেই সুযোগ দেয়নি। নতুন বাস্তবতায় চীন, রাশিয়া ও তুরস্ক কাজ করতে আগ্রহী তালেবানের সঙ্গে।

তালেবানের উদ্দেশে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহৎ অর্থনীতির দেশ চীন বলেছে, আফগানিস্তানের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ ও সহযোগিতামূলক সম্পর্কের জন্য তারা প্রস্তুত। চীনের রাষ্ট্রীয় সংস্থা এমসিসি (মেটালুরজিক্যাল গ্রুপ করপোরেশন) ২০০৭ সালে মেস এয়াংকের সবচেয়ে বড় তামার মজুদ ৩০ বছরের জন্য লিজ নিয়েছিল। তা থেকে ১১.৫ মিলিয়ন টনের সম্পদ উত্তোলন করার অধিকার পায় প্রতিষ্ঠানটি। চীনা ট্যাবলয়েড গ্লোবাল টাইমসের মতে, অব্যবহৃত হিসাবে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহৎ তামার মজুদ ওই খনিতে রয়েছে। নিরাপত্তাগত কারণে সেখানে এখনো ঠিকভাবে কাজ শুরু করা যায়নি। এতে আরো বলা হয়, পরিস্থিতি স্থিতিশীল হয়ে উঠলে আফগানিস্তানের ওই খনি থেকে উত্তোলন শুরু করবে চীনা প্রতিষ্ঠান।

যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসনাল রিসার্চ সার্ভিসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০২০ সালের হিসাব অনুযায়ী ৯০ শতাংশ আফগান সরকার নির্ধারিত দারিদ্র্যসীমার নিচে বাস করছে। যাদের আয় দৈনিক দুই ডলারেরও কম। বিশ্বব্যাংক জানায়, দেশটির অর্থনীতি ভঙ্গুর এবং সাহায্যনির্ভর।

২০১০ সালে সায়েন্স ম্যাগাজিনকে যুক্তরাষ্ট্রের বিজ্ঞানী মিরজাদ বলেন, আফগানিস্তান যদি কিছু বছর শান্ত থাকে, খনিজ সম্পদগুলো উত্তোলন করা সম্ভব হয়, তাহলে এক দশকেই এটি এ অঞ্চলের অন্যতম ধনী রাষ্ট্রে পরিণত হবে। ইকোলজিক্যাল ফিউচারস গ্রুপের বিজ্ঞানী এবং নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ রড স্কোনেভার বলেন, ‘আফগানিস্তান নিশ্চিতভাবেই ঐতিহ্যবাহী মূল্যবান ধাতুর একটি দেশ। একই সঙ্গে একুশ শতকের অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য যে খনিজ সম্পদ প্রয়োজন সেটিও তাদের বিপুল পরিমাণ রয়েছে। ’ তিনি বলেন, ‘শিল্পসমৃদ্ধ চীনও তাদের অর্থনীতিকে সবুজ জ্বালানিতে নিচ্ছে। আর আফগানিস্তানের লিথিয়াম এবং অন্যান্য মূল্যবান ধাতু এ উন্নয়নের জন্য অপরিহার্য। যা তাদের দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনায় গুরুত্বপূর্ণ ফ্যাক্টর। ’ এসব কারণেই চীন সরকার তালেবানের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছে।

সূত্র : রয়টার্স, এএফপি, আলজাজিরা।



সাতদিনের সেরা