kalerkantho

রবিবার । ১১ আশ্বিন ১৪২৮। ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৮ সফর ১৪৪৩

অনিয়ম ভুয়া করোনা সনদ প্রদান

প্রাভা হেলথের কার্যক্রম স্থগিতের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



প্রাভা হেলথের কার্যক্রম স্থগিতের নির্দেশ

ভুয়া করোনা সদন দেওয়াসহ নানা অনিয়ম পাওয়ার কথা জানিয়ে প্রাভা হেলথের সব কার্যক্রম সাময়িক বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। গতকাল সোমবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক (হাসপাতাল-ক্লিনিকসমূহ) ডা. মো. ফরিদ হোসেন মিঞা এসংক্রান্ত একটি চিঠি পাঠিয়েছেন।

সূত্র জানায়, প্রাভা হেলথের বিরুদ্ধে ভুল রিপোর্ট দেওয়া ছাড়াও আরো কয়েকটি অনিয়ম পাওয়া গেছে। কমিটির সদস্যরা প্রতিষ্ঠান পরিদর্শনের সময় এই অনিয়মগুলো দেখতে পান। এর আগে প্রাভা হেলথ করোনা টেস্টের ভুল রিপোর্ট দিয়েছে—এমন অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে তদন্ত শুরু করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এ জন্য একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে তারা। সাবেক আইনমন্ত্রী ব্যারিস্টার শফিক আহমেদের ছেলে মাহফুজ শফিকের অভিযোগ আমলে নিয়ে এই তদন্ত শুরু করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

ভুক্তভোগী মাহফুজ শফিক তখন জানান, গত ৭ জুলাই বিকেলে তাঁর স্ত্রী ফারজানা রহমান, দুই মেয়ে বায়না শফিক ও জেইন শফিকের করোনা পরীক্ষার নমুনা দেওয়া হয়। কারণ এর দুই দিন পর ৯ জুলাই তাঁদের যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার কথা ছিল। বিদেশগামী যাত্রীদের করোনা পরীক্ষা বাধ্যতামূলক হওয়ায় তাঁরা এই বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে নমুনা দেন। ৭ জুলাই রাতে তাঁর স্ত্রীর ফোনে এসএমএস আসে তিনি করোনায় আক্রান্ত। কিছুক্ষণ পর পৃথক এসএমএসে তাঁদের দুই মেয়েও পজিটিভ বলে জানানো হয় প্রাভা হেলথের পক্ষ থেকে। কিন্তু মেয়েদের পজিটিভ আসার বিষয়টি একটু সন্দেহ হলে প্রাভার সঙ্গে যোগাযোগ করেন মাহফুজ শফিক। তখন তারা জানায়, তাদের প্রতিষ্ঠানের মেশিন একদম নতুন ও অত্যাধুনিক, তাই ভুল হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই।

মাহফুজ শফিকের বাবা শফিক আহমেদের বয়স ৮৫ বছর এবং মা ডাকসুর সাবেক ভিপি অধ্যাপক মাহফুজা খানমের বয়স ৭৬ বছর। তাঁরা সবাই একসঙ্গে থাকেন বলে তিনি তাঁদের নিয়ে শঙ্কিত হয়ে পড়েন। একই সঙ্গে তিনি নিজেও আক্রান্ত কি না, সেটা জানতে বেসরকারি গ্রিন লাইফ হাসপাতালে নিজের নমুনা দেন। সেখানে তাঁর পরীক্ষার ফল নেগেটিভ এলে তিনি প্রাভা হেলথের রিপোর্ট নিয়ে অভিযোগ করেন। এরপর মাহফুজ শফিক গত ৮ জুলাই আইইডিসিআর পরিবারের সবাইসহ মোট ২০ জনের নমুনা দেন। ৯ জুলাই তাঁরা সবাই নেগেটিভ বলে জানানো হয়।

প্রাভা হেলথের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বরাবর পাঠানো ওই চিঠিতে বলা হয়েছে, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের গঠিত তদন্ত কমিটি ওই প্রতিষ্ঠানটি পরিদর্শন করে বিভিন্ন অনিয়ম দেখতে পেয়েছে, যা অগ্রহণযোগ্য। এ অবস্থায় তদন্ত কমিটির দেওয়া প্রতিবেদনের আলোকে প্রতিষ্ঠানটির কার্যক্রম সাময়িক স্থগিত করা হলো। প্রত্যেক বিদেশগামী যাত্রীর করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষার জন্য সরকার নির্ধারিত ফি সর্বোচ্চ দুই হাজার ৫০০ টাকা নেওয়ার কথা থাকলেও প্রাভা হেলথ নিবন্ধন ফির নামে অতিরিক্ত ১৫০ টাকা আদায় করছিল। প্রাভা হেলথ তাদের ওয়েবসাইটে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে তাদের ‘পার্টনার’ বলে দাবি করছে।



সাতদিনের সেরা