kalerkantho

বুধবার । ৪ কার্তিক ১৪২৮। ২০ অক্টোবর ২০২১। ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

৪৭ কোটি টাকা মুনাফা করেছে রবি

বাণিজ্য ডেস্ক   

২৯ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



৪৭ কোটি টাকা মুনাফা করেছে রবি

দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম মোবাইল অপারেটর রবি চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে ৪৭ কোটি টাকা কর-পরবর্তী মুনাফা করেছে, যা আগের বছরের একই প্রান্তিকের তুলনায় প্রায় ১৯ শতাংশ কম। ২০২০ সালের এপ্রিল-জুন সময়ে রবির কর-পরবর্তী মুনাফা ছিল ৫৮ কোটি ৪০ লাখ টাকা। এ বছর জানুয়ারি-মার্চ সময়ে তা কমে ৩৪ কোটি ৩০ লাখ টাকা কর-পরবর্তী মুনাফা হয়। সে হিসেবে চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকের তুলনায় কর-পরবর্তী মুনাফা বেড়েছে রবির।

ছয় মাসের হিসাবে, অর্থাৎ জানুয়ারি-জুন সময়ে রবি শেয়ারপ্রতি মুনাফা করেছে ১৫ পয়সা। আগের বছর এই সময় তাদের শেয়ারপ্রতি মুনাফা ১৬ পয়সা ছিল।

গতকাল বুধবার এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে রবির দ্বিতীয় প্রান্তিকের আর্থিক ফলাফল প্রকাশ করে বলা হয়, স্থিতিশীল ঊর্ধ্বগামী রাজস্ব এবং দক্ষ ব্যয় ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে বছরের প্রথম ছয় মাসে তাদের কর-পরবর্তী মুনাফা পৌঁছেছে ৮১ কোটি টাকায়, যা গত অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় তিন কোটি ৭০ লাখ টাকা বেশি। এ বছর এপ্রিল-জুন সময়ে রবির ফোরজি গ্রাহক বৃদ্ধির পাশাপাশি ডাটা সেবা থেকে রাজস্ব আয় বৃদ্ধি পেয়েছে। দ্বিতীয় প্রান্তিকে ডাটা সেবায় রাজস্ব আয় গত প্রান্তিকের তুলনায় ৩.৬ শতাংশ এবং গত বছরের একই প্রান্তিকের তুলনায় ২১.৯ শতাংশ বেড়েছে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।

এপ্রিল-জুন সময়ে রবির ফোরজি গ্রাহকসংখ্যা আগের প্রান্তিকের তুলনায় ৭.৫ শতাংশ বেড়েছে। আর ২০২০ সালের একই প্রান্তিকের তুলনায় বেড়েছে ৬৫ শতাংশ। রবির পাঁচ কোটি ১৮ লাখ গ্রাহকের মধ্যে প্রায় দুই কোটি গ্রাহক ফোরজি সেবার আওতায় এসেছে। মোট গ্রাহকের মধ্যে ৭২.৪ শতাংশই ইন্টারনেট ব্যবহার করে। গ্রাহকের প্রতি মাসে ডাটা ব্যবহারের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩.৯ গিগাবাইটে। রবির এমডি ও সিইও মাহতাব উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘জাতীয় কল সেন্টার ৩৩৩তে সহযোগিতা করতে পেরে আমরা গর্বিত, যা কভিড হেল্পলাইন হিসেবে নাগরিকদের সেবা দেওয়ার জন্য ব্যবহার করা হয়েছে। এ ছাড়া রবির টেন মিনিট স্কুলের মাধ্যমে আমরা প্রতিদিন সব বয়সের ৩০ লাখের বেশি শিক্ষার্থীকে মানসম্পন্ন শিক্ষা কনটেন্ট সরবরাহ করছি।’



সাতদিনের সেরা