kalerkantho

সোমবার । ৯ কার্তিক ১৪২৮। ২৫ অক্টোবর ২০২১। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

প্রণোদনা ঋণের সদ্ব্যবহার নিশ্চিতে নিয়মিত মনিটরিং

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৭ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রণোদনা ঋণের সদ্ব্যবহার নিশ্চিতে নিয়মিত মনিটরিং

সরকারের প্রণোদনা প্যাকেজের আওতায় বিতরণ করা কিছু ঋণের অপব্যহারের প্রমাণ পেয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এমন অবস্থায় এই ঋণের সদ্ব্যবহার নিশ্চিতকরণে নিয়মিত মনিটরিংয়ের জন্য ব্যাংকগুলোকে নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। গত রবিবার রাতে এসংক্রান্ত নির্দেশনা দিয়ে একটি চিঠি দেশের সব তফসিলি ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের চিঠিতে বলা হয়েছে, লক্ষ করা যাচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংক ঘোষিত প্রণোদনা প্যাকেজের আওতায় প্রদত্ত ঋণের যথাযথ খাতে ব্যবহার না হয়ে কিছু ঋণ অনুৎপাদনশীল খাতে যাচ্ছে। আবার কোনো কোনো ক্ষেত্রে প্রণোদনা ঋণের টাকা নিয়ে ঋণগ্রহীতারা আগের ঋণের দায় পরিশোধ করছেন। এ ছাড়া মঞ্জুরীকৃত ঋণের টাকা ছাড়করণেও কোনো কোনো ব্যাংক সময়ক্ষেপণ করছে বলে অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। প্রণোদনা প্যাকেজের ঋণ বিতরণে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা যথাযথভাবে পরিপালন করা না হলে প্রণোদনা প্যাকেজের মূল উদ্দেশ্যই ব্যাহত হবে, যা কোনোভাবেই কাঙ্ক্ষিত নয়। এমন অবস্থায় প্রণোদনা ঋণের সদ্ব্যবহার নিশ্চিতকরণে নিয়মিত মনিটরিংয়ের পাশাপাশি মঞ্জুরীকৃত ঋণ যথাসময়ে ছাড়করণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আপনাদের নির্দেশনা প্রদান করা যাচ্ছে। এ ছাড়া প্রণোদনা প্যাকেজের আওতায় বিতরণ করা ঋণ যাতে অনুৎপাদনশীল খাতে ব্যবহৃত না হয় সে লক্ষ্যে প্রতিটি ব্যাংককে নিজ নিজ অভ্যন্তরীণ নিরীক্ষা বিভাগ দ্বারা যাচাই করে ঋণের সদ্ব্যবহারের বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে।

করোনা মহামারিতে অর্থনৈতিক ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে গত বছর প্রায় সোয়া এক লাখ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করে সরকার। এর মধ্যে ১০টি প্যাকেজের আওতায় সিএমএসএমই, বৃহৎ শিল্প ও সেবা, রপ্তানিমুখী শিল্প ও কৃষি খাতে ভর্তুকি সুদে বিতরণের জন্য ৯৩ হাজার ৯৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। এদিকে দ্বিতীয় দফায় প্রণোদনা ঋণের ৫৩ হাজার কোটি টাকা বিতরণের জন্য ব্যাংকগুলোকে চিঠি দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। কোন ব্যাংক কত টাকা ঋণ দিতে পারবে, তা-ও নির্দিষ্ট করে দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।



সাতদিনের সেরা