kalerkantho

মঙ্গলবার । ৩ কার্তিক ১৪২৮। ১৯ অক্টোবর ২০২১। ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

বেজসের চোখ এখন মহাকাশে

স্পেস ট্যুরিজম হবে ৩০০ কোটি ডলারের

মুহাম্মদ শরীফ হোসেন   

১৯ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বেজসের চোখ এখন মহাকাশে

পৃথিবী জয়ের পর এবার মহাশূন্যে দৃষ্টি দিয়েছেন বিশ্বের শীর্ষ ধনী জেফ বেজস। তাঁর গড়া অ্যামাজন এখন বিশ্বের সবচেয়ে বড় ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান। যার কল্যাণে ২০০ বিলিয়ন ডলার সম্পদের মালিকানায় তিনি এখন বিশ্বের সবচেয়ে বড় ধনী। ওই প্রতিষ্ঠানের সিইও পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর মাত্র দুই সপ্তাহের মাথায় তিনি আগামীকাল ২০ জুলাই মহাকাশ ভ্রমণে যাচ্ছেন। তাঁর আরেক প্রতিষ্ঠান ব্লু অরিজিনের পুনর্ব্যবহার উপযোগী রকেট ‘নিউ শেপার্ড’-এ করে তিনি রওনা দিচ্ছেন।

অ্যামাজনের আয় দিয়েই ২০০০ সালে ব্লু অরিজিন প্রতিষ্ঠা করেছিলেন বেজস। ব্যাবসায়িক উদ্দেশ্যে গড়ে তোলেন রকেট প্রযুক্তি। আরেক বিলিয়নেয়ার রিচার্ড ব্র্যানসন গত ১১ জুলাই মহাকাশ ঘুরে এসেছেন। দ্বিতীয় বিলিয়নেয়ার হিসেবে এখন নিজের রকেটে মহাকাশে যাচ্ছেন জেফ বেজস। নিউ শেপার্ড ইতিমধ্যে মহাকাশে ১৫টি পরীক্ষামূলক ফ্লাইট পরিচালনা করেছে মানুষ ছাড়া। গত জুনেই বেজস ঘোষণা দিয়েছিলেন ২০ জুলাই কয়েকজন ক্রু নিয়ে তিনি নিউ শেফার্ডে মহাকাশ ভ্রমণে যাচ্ছেন। তাঁর এ যাত্রা সাধারণ মানুষ লাইভ সম্প্রচার দেখতে পাবে।

এই রকেটের সঙ্গে থাকা ক্যাপসুলে একসঙ্গে ছয়জন যাত্রী যাওয়ার সুযোগ থাকলেও বেজসের সঙ্গে উদ্বোধনী যাত্রায় তিনজন সঙ্গী থাকবেন বলে জানা যায়। তাঁরা হলেন তাঁর ভাই মার্ক বেজস, ৮২ বছর বয়স্ক পাইলট ওয়ালি ফাংক এবং ১৮ বছর বয়সী হাই স্কুল গ্র্যাজুয়েট ওলিভার ডায়মেন। বেজসের সঙ্গে মহাকাশ ভ্রমণে ব্লু অরিজিনের টিকিট নিলামে জয়ী এই কিশোরকে দিতে হবে ২৮ মিলিয়ন ডলার।

তাঁদের এই মহাকাশ যান দ্রুতবেগে মহাকাশে উঠবে এবং কিছু মুহূর্ত সেখানে কাটিয়ে নেমে যাবে। এতে সময় খরচ হবে মাত্র ১১ মিনিট। নিউ শেপার্ডের গতি শব্দের গতির চেয়ে প্রায় তিন গুণ। প্রতি ঘণ্টায় যার গতি হবে প্রায় দুই হাজার ৩০০ মাইল। এটি ক্রু ক্যাপসুল নিয়ে দ্রুত সরাসরি ওপরে উঠে যাবে। ক্যাপসুলটি কিছু মুহূর্তে ওপরে ভাসবে। সবাই ওজনহীনতা অনুভব করবেন। ভেতরে শূন্যে ভাসতে পারবেন এবং জানলা দিয়ে দেখতে পারবেন মহাকাশের অপরূপ দৃশ্য। বাণিজ্যিক মহাকাশ যাত্রায় অন্য দুই বিলিয়নেয়ার রিচার্ড ব্রানসন ও এলন মাস্কের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় রয়েছেন জেফ বেজস। সুইস ব্যাংক ইউবিএসের দাবি, এক দশকের মধ্যে তিন বিলিয়ন ডলারের বাজারে পরিণত হবে কমার্শিয়াল স্পেস ট্যুরিজম। রিচার্ড ব্রানসনের মহাকাশ প্রতিষ্ঠান ভার্জিন গ্যালাকটিক ইতিমধ্যে প্রায় ৬০০ অগ্রিম টিকিট বিক্রি করে ফেলেছে। তাদের প্রতি টিকিটের দাম আড়াই লাখ ডলারের আশপাশে। ওই অগ্রিম টিকিটগুলোর একটি কিনেছেন আরেক ধনকুবের ইলন মাস্ক। ব্লু অরিজিনের কয়েক শ টিকিটও বিক্রি হয়ে গেছে। যার দাম দুই লাখ ডলার।

২৭ বছর আগে গ্যারেজে গড়ে তোলা অ্যামাজনের বর্তমানে নির্বাহী চেয়ারম্যান হিসেবে আছেন জেফ বেজস। কিন্তু তিনি এখন মহাশূন্য নিয়েই ভাবছেন বেশি। বর্তমানে অ্যামাজনের বাজারমূল্য ১.৮ ট্রিলিয়ন ডলার। ২০২০ সালে কম্পানিটির রাজস্ব আসে ৩৮৬ বিলিয়ন ডলার। ই-কমার্স থেকে শুরু করে ক্লাউড কম্পিউটিং, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, স্ট্রিমিং মিডিয়াসহ আরো অনেক কিছু নিয়ে প্রতিষ্ঠানটি কাজ করছে। বেজস তাই নিশ্চিন্তেই এবার ব্লু অরিজিন দিয়ে মহাকাশ জয়ে নেমেছেন। এএফপি, সিএনএন মানি।



সাতদিনের সেরা