kalerkantho

শনিবার । ৩ আশ্বিন ১৪২৮। ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১০ সফর ১৪৪৩

মাতারবাড়ী দ্বিতীয় জেটিতে ভিড়েছে ‘হরিজন-৯’

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

১৬ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মাতারবাড়ী দ্বিতীয় জেটিতে ভিড়েছে ‘হরিজন-৯’

কক্সবাজারের মাতারবাড়ী কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য নতুন নির্মিত দ্বিতীয় জেটিতে গতকাল বৃহস্পতিবার ভিড়েছে একটি বাণিজ্যিক জাহাজ। পানামার পতাকাবাহী জাহাজটির নাম ‘হরিজন-৯’; এসেছে সিঙ্গাপুর বন্দর থেকে। জাহাজটিতে কয়লাবিদ্যুৎ কেন্দ্রের নির্মাণসামগ্রী রয়েছে। মাতারবাড়ী বিদ্যুেকন্দ্রের একটি জেটিতে এত দিন ভিড়ত একটি কনটেইনার জাহাজ। ২০২০ সালের ডিসেম্বর থেকে ওই জেটিতে মূলত বিদ্যুেকন্দ্রের নির্মাণসামগ্রীর জাহাজ ভিড়ত। এখন সেই বহরে নতুন একটি জেটি যোগ হওয়ায় একসঙ্গে দুটি জেটিতে পণ্য ওঠানামা করা সম্ভব হবে।

চট্টগ্রাম বন্দরের সহকারী হারবার মাস্টার এবং মাতারবাড়ী জেটিতে জাহাজ ভেড়ানোর মূল সমন্বয়কারী ক্যাপ্টেন আতাউল হাকিম সিদ্দিকী বলেন, ‘এত দিন মাতারবাড়ীর অয়েল জেটিতে জাহাজ ভিড়ত। গতকাল থেকে দ্বিতীয় জেটিতে জাহাজ ভেড়ানো শুরু হলো। এই দিনটি সত্যিই গৌরবের।’ তিনি জানান, আগামী ১৭ জুলাই প্রথম জেটিতে ভিড়বে আরেকটি জাহাজ ‘থরো লিগ্যাসি’। ডিসেম্বর নাগাদ আরো বেশি পণ্যবাহী জাহাজ ভেড়ানো যাবে।

ক্যাপ্টেন আতাউল হাকিম সিদ্দিকী আরো বলেন, ‘এখন পর্যন্ত আমরা সর্বোচ্চ ১৩৫ মিটার জাহাজ ভিড়িয়েছি জেটিতে। জেটিতে প্রবেশের চ্যানেল দিয়ে আমরা এখনই চাইলে আরো বড় জাহাজ ভেড়াতে পারি, কিন্তু বিদ্যুেকন্দ্রের চাহিদা অনুযায়ী তার দরকার পড়ে না। কারণ এখনই এসব জেটিতে অন্য আমদানিকারকের পণ্য নামানোর সুযোগ নেই।’ ‘হরিজন-৯’ জাহাজের শিপিং এজেন্ট এনসিয়েন্ট স্টিমশিপ কম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোরশেদ হারুণ বলেন, ‘গতকাল প্রথম কয়লা জেটিতে সফলভাবে জাহাজ ভেড়াতে পেরেছে বন্দরের হারবার ও মেরিন বিভাগ। জাহাজটিতে জাপানের সুমিতমো করপোরেশন কয়লাবিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্ট নিয়ে এসেছে সিঙ্গাপুর থেকে।’



সাতদিনের সেরা