kalerkantho

শনিবার । ৯ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৪ জুলাই ২০২১। ১৩ জিলহজ ১৪৪২

নতুন ১৬ ব্রোকারেজ হাউস অনুমোদন

বাণিজ্য ডেস্ক   

২৩ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) নতুন ১৬টি ব্রোকারেজ হাউসকে লেনদেন পরিচালনার অনুমোদন দিয়েছে। এগুলো হলো বি রিচ, এম্পেরর সিকিউরিটিজ অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট, বি অ্যান্ড বিএসএস ট্রেডিং ইন্টারন্যাশনাল, ব্রিজ স্টক অ্যান্ড ব্রোকারেজ, এনওয়াই ট্রেডিং, কলম্বিয়া শেয়ার অ্যান্ড সিকিউরিটিজ, এমকেএম সিকিউরিটিজ, স্মার্ট শেয়ার অ্যান্ড সিকিউরিটিজ, বিনিময় সিকিউরিটিজ, রিলিফ এক্সচেঞ্জ, আমার সিকিউরিটিজ, ব্যাঙজি (বিজি) জিও টেক্সটাইল, মিনহার সিকিউরিটিজ, বিপ্লব হোল্ডিংস, অ্যাসোসিয়েটেড ক্যাপিটাল সিকিউরিটিজ ও রহিমা ইকুইটি ম্যনেজমেন্ট। গত সোমবার বিএসইসির সভায় ১৬টি নতুন ট্রেকের অনুমোদন দেওয়া হয়।

এ ব্যাপারে কমিশনার শেখ সামসুদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘আমরা চাচ্ছি, বাংলাদেশের পুঁজিবাজারে ব্রোকারেজ হাউসের সংখ্যাটা বাড়াতে। যারা এত দিন কাজ করেনি তাদেরকে আমরা বিদায় করে দেব।’ গত বছর ট্রেডিং রাইট এনটাইটেলমেন্ট সার্টিফিকেট (ট্রেক) বিধিমালা, ২০২০ অনুমোদন দেয় বিএসইসি। স্টক এক্সচেঞ্জগুলো ডিমিউচুয়ালাইজড হওয়ার আগে, অর্থাৎ ব্যবস্থাপনা থেকে মালিকানা পৃথক হওয়ার আগে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ এবং চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সদস্যরা ব্রোকারেজ হাউসের ব্যবসা করতে পারতেন।

যেহেতু ডিমিউচুয়ালাইজেশনের আগে ব্রোকাররাই ছিলেন স্টক এক্সচেঞ্জের মালিক, মালিকানা আলাদা হওয়ার পর ব্রোকারদের ব্যবসার জন্য, অর্থাৎ ট্রেডিং রাইটের জন্য আলাদা আইন করা দরকার হয়ে পড়ে। সেই পরিপ্রেক্ষিতে এই আইন করে বিএসইসি।