kalerkantho

শুক্রবার । ২২ শ্রাবণ ১৪২৮। ৬ আগস্ট ২০২১। ২৬ জিলহজ ১৪৪২

‘আর্থিক খাতকে আরো এগিয়ে নেবে বন্ড’

দেশে প্রথম আন্তর্জাতিক গ্যারান্টেড বন্ডের মাধ্যমে প্রাণ গ্রুপের অর্থ সংগ্রহের উদযাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান

বাণিজ্য ডেস্ক   

১৬ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



‘আর্থিক খাতকে আরো এগিয়ে নেবে বন্ড’

দেশের বিনিয়োগ পরিস্থিতি আরো এক ধাপ এগিয়ে নেবে চালু হওয়া প্রথম বাংলাদেশি বন্ড। সোমবার ভার্চুয়াল মাধ্যমে দেশে প্রথম আন্তর্জাতিক গ্যারান্টেড বন্ডের মাধ্যমে প্রাণ গ্রুপের অর্থ সংগ্রহের উদযাপন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, দীর্ঘমেয়াদি পুঁজি সংগ্রহে ব্যাংকের বাইরে বিকল্প উৎস হিসেবে বন্ড মার্কেট অত্যন্ত শক্তিশালী একটি খাত। বন্ড মার্কেটে আন্তর্জাতিক গ্যারান্টার ও অর্থ সংস্থানকারী প্রতিষ্ঠান এলে এ মার্কেট শক্তিশালী হবে। অন্যরাও বন্ড মার্কেটে আসতে উৎসাহ পাবে।

সম্প্রতি প্রাণ অ্যাগ্রো লিমিটেড বন্ডের মাধ্যমে ২১০ কোটি টাকার অরূপান্তরযোগ্য ও রিডেমবল বন্ডের লেনদেন সফলভাবে সম্পন্ন করেছে। এটি প্রথম ব্লেন্ডেড ফিন্যান্স স্ট্রাকচারড বন্ড এবং আন্তর্জাতিক গ্যারান্টেড প্রথম বাংলাদেশি বন্ড। এ বন্ডে বিনিয়োগ করেছে একটি আন্তর্জাতিক বীমা কম্পানি ও প্রাইভেট প্লেসমেন্টের আওতায় প্রথম ডিজিটাইড বন্ড। বন্ডের অর্থ কৃষির সাপ্লাই চেইন এবং স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক বাজারে প্রাণ অ্যাগ্রো লিমিটেডের কর্মকাণ্ড সম্প্রসারণে ব্যবহার করা হবে। প্রাণ অ্যাগ্রোর পক্ষ থেকে এই লেনদেন সফলভাবে সম্পন্ন হওয়ায় ভার্চুয়াল মাধ্যমে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

বাংলাদেশে নিযুক্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট চ্যাটারটন ডিকসন বলেন, ‘যুক্তরাজ্য সব সময় বাংলাদেশের দীর্ঘমেয়াদি উন্নয়ন সহযোগী। বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য বন্ড মাকের্টের উন্নয়ন প্রয়োজন। এ মার্কেট বড় হলে আমাদের বিনিয়োগকারীরা আরো আগ্রহী হবে।’

বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) নির্বাহী চেয়ারম্যান মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, প্রাণ অ্যাগ্রোর বন্ড ইস্যু অন্যদের জন্য অনুপ্রেরণামূলক। এটি দেশীয় প্রতিষ্ঠানগুলোকে দীর্ঘমেয়াদি পুঁজি সংগ্রহে উৎসাহ দেবে। বিডা সব সময় দেশে ‘ডুয়িং বিজনেস’ সহজ করার জন্য কাজ করে যাচ্ছে।

বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম বলেন, ‘প্রাণের এই বন্ড অনুমোদন করতে পেরে আমি অত্যন্ত আনন্দিত। আমি আশা করি, অন্যরা প্রাণকে অনুসরণ করবে। আমরা বিভিন্ন ধরনের বন্ড এনেছি এবং বন্ড মার্কেটকে সামনে এগিয়ে নিতে কাজ করছি।’ এ সময় তিনি আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান গ্যারন্টকোকে বন্ড মার্কেটে আরো কাজ করার আহ্বান জানান। প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী আহসান খান চৌধুরী বলেন, ‘বন্ড মার্কেট দেশে এখনো সেভাবে গড়ে উঠতে পারেনি। তবে আমাদের সিকিউরিটি অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন এটি নিয়ে কাজ করছে। আমি আশা করি বন্ড মার্কেট বাংলাদেশে অনেক দূর এগিয়ে যাবে এবং কম্পানিগুলো এখান থেকে প্রয়োজনীয় অর্থের জোগান পাবে।’ অনুষ্ঠানটি সঞ্চলনা করেন প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের পরিচালক (করপোরেট ফিন্যান্স) উজমা চৌধুরী।

 



সাতদিনের সেরা