kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮। ৩০ জুলাই ২০২১। ১৯ জিলহজ ১৪৪২

ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিনের নতুন প্রডাকশন লাইন উদ্বোধন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৫ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিনের নতুন প্রডাকশন লাইন উদ্বোধন

ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিন কারখানায় নতুন প্রডাকশন লাইনের উদ্বোধন করেন প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক তাহমিনা আফরোজ তান্না

ওয়াশিং মেশিনের নতুন আরেকটি প্রডাকশন লাইন চালু করল ওয়ালটন। যেখানে তৈরি হবে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির টপ লোডিং ওয়াশিং মেশিন। এর ফলে ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিন কারখানায় প্রডাকশন লাইনের সংখ্যা দাঁড়াল দুটিতে। পাঁচ লাখ বর্গফুট আয়তনের ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিন কারখানায় মাসিক উৎপাদনক্ষমতা বর্তমানে ৫০ হাজার ইউনিট। কর্মীর সংখ্যা এক হাজারেরও বেশি। একই সঙ্গে অত্যাধুনিক ফিচারের ‘এটিজি৮০’ মডেলের নতুন একটি ওয়াশিং মেশিন উদ্বোধন করা হয়।

গত শনিবার গাজীপুরের চন্দ্রায় ওয়ালটন হাইটেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের কারখানায় নতুন প্রডাকশন লাইন এবং নতুন মডেলের ওয়াশিং মেশিনের উদ্বোধন করেন প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক তাহমিনা আফরোজ তান্না। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ওয়ালটন হাইটেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর আলমগীর আলম সরকার, নির্বাহী পরিচালক কর্নেল শাহাদাত আলম (অব.), তাপস কুমার মজুমদার, ইউসুফ আলী, ইয়াসির আল ইমরান, হোম অ্যাপ্লায়েন্সের সিইও আল-ইমরান, সিওও সাইফুল ইসলাম, আরঅ্যান্ডডি হেড মনিরুজ্জামান কার্জন, ওয়াশিং মেশিনের আরঅ্যান্ডডি ইনচার্জ খায়রুল বাশার, ব্র্যান্ড ম্যানেজার খন্দকার আশিকুল হাসান, সিনিয়র অপারেটিভ ডিরেক্টর মোহসিন আলী মোল্লা।

ওয়ালটন হাইটেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের পরিচালক তাহমিনা আফরোজ তান্না বলেন, ওয়াশিং মেশিন অত্যন্ত প্রয়োজনীয় একটি গৃহস্থালি পণ্য হিসেবে স্বীকৃতি পাচ্ছে। কভিড-১৯ দুর্যোগে এই পণ্যটির প্রয়োজনীয়তা আরো বেশি অনুভূত হচ্ছে। বাংলাদেশে বিশ্বমানের ওয়াশিং মেশিন উৎপাদনে ওয়ালটন ব্যাপক সাফল্য দেখাচ্ছে। এ ধরনের অত্যাধুনিক পণ্য যুগের সঙ্গে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। প্রকৌশলী আল-ইমরান জানান, ওয়ালটন হোম অ্যাপ্লায়েন্সের যাত্রা শুরু ২০১৪ সালে। আর ২০১৭ সালে ওয়াশিং মেশিন উৎপাদন ও বাজারজাত শুরু করে ওয়ালটন। ওয়াশিং মেশিন উৎপাদনে ওয়ালটনের রয়েছে সুদক্ষ ও মেধাবী প্রকৌশলীদের সমন্বয়ে শক্তিশালী আরঅ্যান্ডডি বিভাগ। বাংলাদেশে একমাত্র ওয়ালটন কারখানায় রয়েছে ওয়াশিং মেশিনের পারফর্ম্যান্স টেস্টিং ল্যাব, ফাইভস্টার এনার্জি রেটিং এবং পাঁচ বছরের সার্ভিস সুবিধা। বিশ্বমানের পণ্য তৈরি ও সাশ্রয়ী দামে সরবরাহ করায় দেশের বাজারে প্রতিনিয়ত বাড়ছে ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিনের চাহিদা। ভারত, নেপাল, ইয়েমেন, পূর্ব তিমুরসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে সেসব রপ্তানি করছে ওয়ালটন।

কর্তৃপক্ষ জানায়, বর্তমানে ২৯টি মডেলের সেমি-অটোমেটিক এবং অটোমেটিক টপ ও ফ্রন্ট লোডিং ওয়াশিং মেশিন উৎপাদন ও বাজারজাত করছে ওয়ালটন।