kalerkantho

সোমবার । ৭ আষাঢ় ১৪২৮। ২১ জুন ২০২১। ৯ জিলকদ ১৪৪২

জিপেক বাজেট পর্যালোচনা

বরাদ্দের সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করতে জোর তদারকি প্রয়োজন

বাণিজ্য ডেস্ক   

১১ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বরাদ্দের সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করতে জোর তদারকি প্রয়োজন

এবারের বাজেটে কর হ্রাসের মাধ্যমে বিনিয়োগ উৎসাহিত করা এবং কর্মসংস্থান সৃষ্টির পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে; যা বাস্তবায়িত হলে অর্থনীতিতে আয় বাড়বে, ফলে ভোগ ও চাহিদা বাড়বে, অর্থনীতি সবল হবে এবং কাঙ্ক্ষিত প্রবৃদ্ধি অর্জিত হবে। তাই এবারের বাজেট ‘প্রবৃদ্ধি অর্জনযোগ্য’ বাজেট। বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান গভর্ন্যান্স পলিসি এক্সপ্লোর সেন্টার (জিপেক) গতকাল বৃহস্পতিবার প্রস্তাবিত বাজেট নিয়ে এক ভার্চুয়াল পর্যালোচনা সভার আয়োজন করে। সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন।

‘জিপেক বাজেট পর্যালোচনা ২০২১-২২’ শীর্ষক ওয়েবিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন জিপেকের সিনিয়র রিসার্চ ফেলো (অনারারি) ও বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. মোরশেদ হোসেন। স্বাগত বক্তব্য দেন জিপেকের নির্বাহী পরিচালক ড. মিজানুর রহমান। ওয়েবিনারটি সঞ্চালনা করেন বেসিক ব্যাংকের পরিচালক ও জিপেক চেয়ারপারসন রাজীব পারভেজ।

উপস্থাপিত প্রবন্ধে বলা হয়, বাংলাদেশে করোনার মধ্যে অর্থনীতি সবল রাখতে বাজেট ঘাটতি ধরা হয়েছে জিডিপির ৬.২ শতাংশ। তবে এ ঘাটতি পূরণ করা সম্ভব। বাংলাদেশকে বৈদেশিক ঋণ দিতে অনেক দেশই আগ্রহী হওয়ায় বাংলাদেশ সহজে বৈদেশিক ঋণ গ্রহণ করতে পারবে।

বলা হয়, ভূমিহীন ও প্রান্তিক কৃষকদের জন্য ‘শস্য বীমা’ বা ‘কৃষি বীমা’, ‘গবাদি পশু বীমা’ চালু করতে হবে। ‘সর্বজনীন পেনশন স্কিম’ চালু করা যেতে পারে। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের সাবেক অতিরিক্ত সচিব ও জিপেকের উপদেষ্টা মো. আবদুল কাইয়ুমের সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশ নেন ভোরের কাগজ সম্পাদক শ্যামল দত্ত, এফবিসিসিআইয়ের সহসভাপতি আমিন হেলালি প্রমুখ।