kalerkantho

বুধবার । ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮। ১৯ মে ২০২১। ৬ শাওয়াল ১৪৪

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বললেন

আগামী বাজেট হবে গরিববান্ধব

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২২ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আগামী বাজেট হবে গরিববান্ধব

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, আগামী অর্থবছরের বাজেটে গরিবদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। আগামী বাজেটটি নিবেদিত থাকবে দেশের দরিদ্র মানুষের জন্য। বুধবার অর্থমন্ত্রীর সভাপতিত্বে ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিত সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান। এ সময় তিনি বলেন, গরিবদের মূল স্রোতে নিয়ে আসার জন্য সরকার কাজ করছে।

করোনা অতিমারিতে দেশে দরিদ্র মানুষের সংখ্যা বাড়ছে। সম্প্রতি দুটি গবেষণা প্রতিষ্ঠান বিষয়টি তুলে ধরেছে। এ বিষয়ে অর্থমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে গরিবদের বের করে নিয়ে আসা। যারা অতিরিক্ত গরিব তারা গরিব হবে। আর যারা গরিব আছে তাদের আমরা মূলস্রোতধারায় নিয়ে আসব। আমরা সেভাবেই কাজ করে যাচ্ছি। আর গবেষণার তথ্য পরিসংখ্যান ব্যুরো দেখবে। তাদের পর্যবেক্ষণ আমরা নেব। তবে সেটা এখনো তৈরি হয়নি।’

দরিদ্রদের মূলস্রোতে আনতে আগামী বাজেটে সামাজিক সুরক্ষা খাতে বরাদ্দ বাড়ানো হবে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমাদের আগামী বাজেট নিবেদিত থাকবে এ দেশের দরিদ্র মানুষের জন্য। তারাই অগ্রাধিকার পাবে। আমরা মানুষের জীবন-জীবিকার জন্য বাজেটে জায়গা করে দেব।’

গত বছর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৫০ লাখ দরিদ্র পরিবারকে নগদ সহায়তা দেওয়ার ঘোষণা দেন। কিন্তু অর্থ বিতরণে সমস্যা হওয়ায় তা আটকে যায়। এ বছর করোনা মহামারিতে কাজ হারানো ৩৩ লাখ ৩৯ হাজার দরিদ্র পরিবার আড়াই হাজার টাকা করে সহায়তা পাবেন। চলমান করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে বিভিন্ন পেশায় নিয়োজিত নিম্নআয়ের প্রায় ৩৩ লাখ ৩৯ হাজার পরিবারকে মোবাইল ফিন্যানশিয়াল সার্ভিসের মাধ্যমে সহায়তা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। গত বছর কভিডের শুরুর দিকে ঈদের আগেও একইভাবে মোবাইল ফিন্যানশিয়াল সার্ভিসের মাধ্যমে ৩৪ লাখ ৬ হাজার দরিদ্রকে ‘প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার’ দেওয়া হয়। সরকারের সিদ্ধান্ত অনুসারে মোবাইল ফিন্যানশিয়াল সার্ভিসের মাধ্যমে সব মিলে ৮৩৪ কোটি ৭৩ লাখ টাকা বিতরণ করা হবে।

এই সহায়তা শিগগিরই আবার হচ্ছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘গত বছর কিছুটা সমস্যা হয়েছিল। এর কারণ হলো, তাদের আইডি কার্ড বা যে মাধ্যম রয়েছে সেখানে আমরা সরাসরি টাকা পাঠিয়ে দিই। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রে সেখানে সমস্যা হয়। সে জন্য একটু দেরি হয়। কিন্তু আমরা কাজগুলো করছি। যাদের আমরা আড়াই হাজার টাকা করে দেব, তাদের টাকা সরাসরি পাঠিয়ে দেওয়া হবে। প্রধানমন্ত্রী ইতিবাচক সাড়া দিয়েছেন। এই আড়াই হাজার টাকা করে বিতরণের কাজ শিগগির শুরু হবে।’



সাতদিনের সেরা