kalerkantho

বুধবার । ৮ বৈশাখ ১৪২৮। ২১ এপ্রিল ২০২১। ৮ রমজান ১৪৪২

ব্লুমবার্গে সাক্ষাৎকার

এলএনজিতে দুই বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করবে সামিট গ্রুপ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৮ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



এলএনজিতে দুই বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করবে সামিট গ্রুপ

ব্যাপক চাহিদায় বেড়েছে এলএনজির দাম। এ অবস্থায় সরবরাহ বাড়াতে বাংলাদেশসহ এই অঞ্চলের দেশগুলো মজুদ বাড়াচ্ছে। তাই ভারতীয় উপমহাদেশে এলএনজি আমদানি ও মজুদে ২.৩ বিলিয়ন ডলার প্রকল্পের দরপত্র দিচ্ছে বাংলাদেশের অন্যতম বৃহৎ শিল্পপ্রতিষ্ঠান সামিট গ্রুপ।

প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান মুহাম্মদ আজিজ খান এক সাক্ষাৎকারে বলেন, সামিট, জাপানের জেরা কম্পানি এবং মিত্সুবিশি করপোরেশন যৌথভাবে মাতারবাড়ীতে প্রথম উপকূলীয় আমদানি টার্মিনাল নির্মাণে দরপত্র জমা দিয়েছে। এই টার্মিনাল মজুদ করার পাশাপাশি বছরে ৭.৫ মিলিয়ন টন এলএনজি সরবরাহ করা যাবে। দরপত্রের ফলাফল এ বছরের শেষের দিকে জানা যাবে বলে তিনি মনে করেন।

সংস্থাটি ভাসমান স্টোরেজ রেসিফিকেশন ইউনিটগুলোর জন্য কয়েকটি মুখ্য প্রকল্পের ওপর নজরদারি করেছে। পায়রায় বছরে একটি ৭.৫ মিলিয়ন টন-এফএসআরইউ নির্মাণের জন্য বিড করা হচ্ছে। এটি শ্রীলঙ্কার কেরালাওয়ালপিতিয়ায় এক লাখ ৫৬ হাজার ঘনমিটার এফএসআরইউ তৈরির জন্য সিলোন বিদ্যুৎ বোর্ডের আহ্বান করা টেন্ডারে অংশ নিচ্ছে এবং মিত্সুবিশির সঙ্গে পাকিস্তানের একটি প্রকল্পের জন্য যৌথভাবে নিলাম করার জন্য কাজ করছে।

মুহাম্মদ আজিজ খানের দেওয়া পরিসংখ্যানের ভিত্তিতে ব্লুমবার্গ বলছে, উপকূলীয় টার্মিনালের জন্য আনুমানিক ৮০০ মিলিয়ন ডলার এবং একটি এফএসআরইউয়ের জন্য ৫০০ মিলিয়ন ডলারে সামিটের লক্ষ্য ছিল এলএনজি প্রকল্পে মোট ২.৩ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ। সরকার প্রাকৃতিক গ্যাসের দামে অস্থিরতার মুখোমুখি হওয়ায় স্টোরের চাহিদা বাড়ছে। জাপান-কোরিয়া চিহ্নিতকারী হিসেবে পরিচিত উত্তর এশিয়ার স্পট এলএনজির দাম জানুয়ারিতে ইউনিট প্রতি মিলিয়ন ৩২.৫০ ডলারে পৌঁছেছে, যা সর্বোচ্চ রেকর্ড এবং গত বছরের একই সময়ের চেয়ে ৫০০ শতাংশ বেশি। বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন জ্বালানি সংস্থাগুলো স্পেইকের মধ্যে এলএনজি কার্গো কেনার দরপত্র বাতিল করেছে।

মন্তব্য