kalerkantho

রবিবার। ২৮ চৈত্র ১৪২৭। ১১ এপ্রিল ২০২১। ২৭ শাবান ১৪৪২

নারী-পুরুষ বৈষম্যে গচ্চা বিশ্বে ৭০ ট্রিলিয়ন ডলার

বাণিজ্য ডেস্ক   

৮ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নারী-পুরুষ বৈষম্যে গচ্চা বিশ্বে ৭০ ট্রিলিয়ন ডলার

নারী-পুরুষ লিঙ্গবৈষম্যের যে দেয়াল বিশ্বজুড়ে পর্বতের মতো দাঁড়িয়ে আছে তাতে ১৯৯০ সাল থেকে বিশ্বের ক্ষতি দাঁড়িয়েছে ৭০ ট্রিলিয়ন ডলার। লিঙ্গবৈচিত্র্য ও অন্তর্ভুক্তির অভাবে অর্থনীতিতে কী ক্ষতি হতে পারে তার একটি হিসাব নিরূপণ করেছেন বিওএফএ সিকিউরিটিজের একদল অর্থনীতিবিদ। এতে আরো দেখা যায়, বর্তমানে লিঙ্গবৈষম্য এবং ব্যবধান কমানোর যে প্রচেষ্টা তা বর্তমান গতিতে কমতে থাকলে সমতায় ফিরতে ২৫৭ বছর লেগে যাবে।

প্রতিবেদনে আরো উল্লেখ করা হয়, বিশ্বে যদি পুরোপুরি লিঙ্গসমতা প্রতিষ্ঠা করা যায় তবে ২০২৫ সাল নাগাদ বিশ্বে জিডিপি ২৮ ট্রিলিয়ন ডলার পর্যন্ত বাড়তে পারে। এবং লিঙ্গঅসমতার কারণে মানবসম্পদের যে অপচয় হচ্ছে তার পরিমাণ ১৬০.২ ট্রিলিয়ন ডলার।

প্রতিবেদনে বলা হয়, নারী-পুরুষের যে লিঙ্গঅসমতা, এই ব্যবধান গোছানো না গেলে অর্থনৈতিক ক্ষতি হতেই থাকবে। সঠিক কাজটি না করার কারণেই ১৯৯০ সাল থেকে গচ্চা দিতে হয়েছে ৭০ ট্রিলিয়ন ডলার। এমনকি অসমতার যে পাহাড় তা ভাঙতে হলে বর্তমান গতিতে ২৫৭ বছর লেগে যাবে। শুধু করোনা মহামারিতেই নারীদের আর্থিক ক্ষতি হয়েছে এক ট্রিলিয়ন ডলার।

প্রতিবেদনে বলা হয়, লিঙ্গ, বর্ণ ও জাতিগত পক্ষপাতিত্ব শ্রমবাজারে অব্যাহতভাবে বৈষম্য তৈরি করছে এবং অর্থনীতিকে সীমিত করে দিচ্ছে। যদি শিক্ষা ও নিয়োগের ক্ষেত্রে লিঙ্গ ও জাতিগত বৈষম্য দূর করা যেত তবে ২০১৯ সালেই ২.৬ ট্রিলিয়ন ডলারের বেশি অর্থনৈতিক আয় বাড়ত। স্বাস্থ্য, শিক্ষা, কারারুদ্ধকরণ এবং নিয়োগ সুযোগের ক্ষেত্রে জাতিগত বৈষম্য থেকে যে আয়ের ব্যবধান তৈরি হয়েছে তা যদি বন্ধ করা যায় তবে জিডিপি প্রবৃদ্ধি বার্ষিক ০.৫ শতাংশ হারে বাড়বে ২০৫০ সাল পর্যন্ত।

২০২০ সালের প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল এফপিএসই ১০০ কম্পানির মধ্যে কোনো কালো ঊর্ধ্বতন নির্বাহী কর্মকর্তা হয়নি ছয় বছরের মধ্যে। শুধু এসঅ্যান্ডপি ৫০০ এর একটি কম্পানির সিইও হিসেবে কালো নারী আছেন। এর মধ্যে মাত্র আট কম্পানির ব্যবস্থাপনা টিমে কমপক্ষে ৫০ শতাংশ নারী রয়েছেন। নাসদাকের ৭৫ শতাংশ কম্পানির বোর্ডে অন্তত একজন নারী নেই। বলা হয়, বর্ণ ও জাতিগত বৈষম্যের কারণে আগামী এক দশকে যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনৈতিক ক্ষতি হবে ১.৫ ট্রিলিয়ন ডলার। সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস।

মন্তব্য