kalerkantho

শুক্রবার । ৩ বৈশাখ ১৪২৮। ১৬ এপ্রিল ২০২১। ৩ রমজান ১৪৪২

সোনালী ব্যাংকে মুজিব কর্নার উদ্বোধন

মালয়েশিয়ার সঙ্গে একই কাতারে দেশ : অর্থমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মালয়েশিয়ার সঙ্গে একই কাতারে দেশ : অর্থমন্ত্রী

সোনালী ব্যাংকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মুর‌্যাল ও মুজিব কর্নার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে অতিথিরা। ছবি : কালের কণ্ঠ

মুজিব শতবর্ষে দেশের সবচেয়ে বড় ব্যাংক রাষ্ট্রায়ত্ত সোনালী ব্যাংকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল ও মুজিব কর্নার উদ্বোধন করা হয়েছে। রাজধানীর মতিঝিলে সোনালী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের নিচতলায় (স্থানীয় কার্যালয়) বৃহৎ পরিসরে এই মুজিব কর্নার স্থাপন করা হয়েছে। এই কর্নারের পরিকল্পনা ও বাস্তবায়ন করেছেন একুশে পদকপ্রাপ্ত শিল্পী ও আকাশ মিডিয়া লাইনের এমডি পাভেল রহমান। গতকাল মঙ্গলবার ভার্চুয়ালি এই কর্নারের উদ্বোধন করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. আসাদুল ইসলাম, সোনালী ব্যাংকের চেয়ারম্যান জিয়াউল হাসান সিদ্দিকী ও আকাশ মিডিয়া লাইনের এমডি পাভেল রহমান। সভাপতিত্ব করেন সোনালী ব্যাংকের এমডি মো. আতাউর রহমান প্রধান।

অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত থেকে উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা লাভ করেছে। আমরা দরিদ্রতম দেশের মানুষ ছিলাম, আমাদের মিসকিন বলা হতো। এখন আর আমাদের মিসকিন বলবে না। আজকে আমরা মালয়েশিয়ার সঙ্গে একই কাতারে আছি, এটা আমাদের গর্ব। বঙ্গবন্ধু আমাদের সব ভালো কাজের অনুপ্রেরণার উৎস।’ তিনি বলেন, ‘রাষ্ট্রীয় খাতের ব্যাংকগুলোর সার্বিক উন্নয়নে কাজ করেছে সরকার। এরই অংশ হিসেবে ব্যাংকগুলোকে ঢেলে সাজানো হয়েছে। প্রতিবছর মূলধন ঘাটতি মেটাতে রাষ্ট্রীয় খাতের ব্যাংকগুলোর বাজেট থেকে যে অর্থ চাইত, এটা থেকে ব্যাংকগুলো সরে আসাকে ইতিবাচক বলেও মন্তব্য করেন অর্থমন্ত্রী। বঙ্গবন্ধু কখনো নীতির সঙ্গে আপস করেননি উল্লেখ করে অর্থমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শুধু একটি নাম নয়, একটি দর্শন। বঙ্গবন্ধু চেয়েছিলেন, এ দেশের মানুষের ভৌগোলিক স্বাধীনতা, রাজনৈতিক মুক্তি একটি ভূখণ্ড। একটি মানচিত্র দিয়ে গেছেন তিনি। বাঙালি জাতির অর্থনৈতিক মুক্তির জন্য জীবন উৎসর্গ করে গেছেন। তাঁরই দেখানো পথে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অসমাপ্ত কাজগুলো করছেন।’

ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ সিনিয়র সচিব বলেন, ‘বাংলাদেশে করোনাকালীন পরিস্থিতি এখনো চলমান। শেষ হয়ে যায়নি। অর্থনীতির টালমাটাল পরিস্থিতি সামাল দিতে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া প্রণোদনা প্যাকেজসহ সঠিক সময়ে নেওয়া সিদ্ধান্ত কার্যকর ছিল। দেশকে এগিয়ে নিতে ব্যাংকগুলোকে কাজ করতে হবে। বঙ্গবন্ধুর দেখানো নীতি আলোকে।’

সোনালী ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান জিয়াউল হাসান সিদ্দিকী বলেন, ‘আমরা চেষ্টা করেছি এখানে বঙ্গবন্ধু অমর বাণী তুলে ধরতে। এখানে আমরা তুলে ধরেছি সরকারি চাকরিজীবীদের উদ্দেশে জাতির পিতার দেওয়া ভাষণ। এখানে তরুণ প্রজন্ম যেন জাতির পিতাকে উপলব্ধি করতে পারে, জানতে পারে এ জন্য তাঁর দেওয়া বক্তব্য, ছবিসহ নানা বিষয় তুলে ধরেছি।’

সোনালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বলেন, ‘করোনাকালে দেশের ব্যাংক খাত অর্থনৈতিক স্থবিরতা কাটাতে সরকারের নিয়ামক হিসেবে কাজ করেছে। ফলে বিশ্ব অর্থনীতির ভঙ্গুরতা সত্ত্বেও বাংলাদেশ পিছিয়ে পড়েনি। আর্থিক খাতের সাইবার নিরাপত্তা নিশ্চিতে প্রযুক্তির ওপর গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।’

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, মুজিব কর্নারে স্থান পেয়েছে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালের পাশাপাশি নানা সময়ের দুর্লভ কিছু স্থিরচিত্র। রাখা হয়েছে বঙ্গবন্ধুর লেখা এবং বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে লেখা বই। এর মাধ্যমে ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পাশাপাশি দর্শনার্থীরা জাতির পিতার সঙ্গে পরিচিত হওয়ার সুযোগ পাবে।

মন্তব্য