kalerkantho

বুধবার । ১১ কার্তিক ১৪২৮। ২৭ অক্টোবর ২০২১। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

চলচ্চিত্রশিল্পে হাজার কোটি টাকার তহবিল

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চলচ্চিত্রশিল্পে হাজার কোটি টাকার তহবিল

চলচ্চিত্রশিল্পকে টেনে তুলতে এক হাজার কোটি টাকার একটি পুনরর্থায়ন তহবিল গঠন করছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এই তহবিল থেকে বিদ্যমান সিনেমা হলগুলো সংস্কার ও আধুনিকায়ন এবং নতুন সিনেমা হল নির্মাণে সাড়ে ৪ শতাংশ থেকে ৫ শতাংশ সুদে দীর্ঘমেয়াদি ঋণ পাবেন সংশ্লিষ্টরা। গতকাল রবিবার এসংক্রান্ত তহবিল গঠন ও পরিচালনার নীতিমালা জারি করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

গত ১৭ জানুয়ারি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সিনেমা হলের জন্য এই তহবিল গঠনের ঘোষণা দেন। সে অনুযায়ী গত ২৬ জানুয়ারি কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের সভায় এই তহবিল গঠনসংক্রান্ত প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়।

নীতিমালায় বলা হয়েছে, সুস্থ জাতি গঠনে নির্মল বিনোদনের ভূমিকা অনস্বীকার্য। বিনোদন জগতের সর্ববৃহত্ মাধ্যম চলচ্চিত্র এবং সিনেমা হলগুলোকে কেন্দ্র করেই মূলত চলচ্চিত্রশিল্প বিকশিত হয়। নব্বইয়ের দশকে এ দেশে প্রায় ১৪০০টি সিনেমা হল ছিল। কিন্তু নানা প্রতিবন্ধকতার কারণে এই সংখ্যা ক্রমান্বয়ে হ্রাস পাচ্ছে। দেশের সিনেমাপ্রেমী দর্শকদের সুস্থ ধারার বিনোদন উপহার দেওয়ার লক্ষ্যে বিদ্যমান সিনেমা হলগুলো সংস্কার এবং আধুনিক মানের নতুন সিনেমা হল নির্মাণ করা প্রয়োজন। এ ক্ষেত্রে সিনেমা হল মালিকদের স্বল্প সুদে দীর্ঘমেয়াদি ঋণ প্রদান করা হলে সিনেমা হল মালিকরা নতুন নতুন সিনেমা হল নির্মাণের পাশাপাশি বিদ্যমান হলগুলো সংস্কার ও আধুনিক যন্ত্রপাতি সংযোজন করতে সক্ষম হবে। সার্বিক বিষয় বিবেচনায় সিনেমা হল মালিকদের অনুকূলে ঋণ বিতরণের জন্য এক হাজার কোটি টাকার পুনরর্থায়ন স্কিম গঠন করা হয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নিজস্ব উৎস থেকে এই তহবিল গঠন করা হয়েছে। এই তহবিলের নাম দেওয়া হয়েছে সিনেমা হল মালিকদের অনুকূলে মেয়াদি ঋণসুবিধা প্রদানের জন্য পুনরর্থায়ন স্কিম। এই স্কিমের আওতায় অংশগ্রহণকারী তফসিলি ব্যাংক বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে দেড় শতাংশ সুদে পুনরর্থায়ন সুবিধা গ্রহণ করতে পারবে। তবে গ্রাহক পর্যায়ে মেট্রোপলিটন এলাকায় ৫ শতাংশ এবং মেট্রোপলিটন এলাকার বাইরে সাড়ে ৪ শতাংশ হারে সুদ ধার্য করতে পারবে তফসিলি ব্যাংক। পুনরর্থায়ন ঋণ এক বছরের গ্রেস পিরিয়ডসহ ত্রৈমাসিক কিস্তিতে সর্বোচ্চ আট বছর মেয়াদে গ্রাহককে পরিশোধ করতে হবে। এই স্কিমের আওতায় গ্রাহক পর্যায়ে ঋণ বিনিয়োগ বিতরণ উত্তর অংশগ্রহণকারী ব্যাংককে পুনরর্থায়ন সুবিধা প্রাপ্তির লক্ষ্যে ২০২২ সালের ৩১ মার্চের মধ্যে আবেদন করতে হবে।



সাতদিনের সেরা