kalerkantho

শুক্রবার । ১৩ ফাল্গুন ১৪২৭। ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১। ১৩ রজব ১৪৪২

অত্যাধুনিক প্রযুক্তির কেটিএম মোটরসাইকেল আনল রানার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



অত্যাধুনিক প্রযুক্তির কেটিএম মোটরসাইকেল আনল রানার

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রানার অটোমোবাইলসের এমডি ও সিইও রিয়াজুল চৌধুরীসহ প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা

বিশ্বের এক নম্বর প্রিমিয়াম মোটরসাইকেল ব্র্যান্ড কেটিএম দেশের শীর্ষস্থানীয় নির্মাতা প্রতিষ্ঠান রানার অটোমোবাইলস লিমিটেডের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে দেশে তাদের প্রথমবারের মতো দুটি মোটরসাইকেল মডেল আনুষ্ঠানিকভাবে উন্মোচন করেছে। গতকাল সোমবার ময়মনসিংহের ভালুকায় রানার অটোমোবাইলস লিমিটেডের কারখানায় আয়োজিত এক উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে কেটিএমের কেটিএম ১২৫ ডিউক এবং কেটিএম আরসি ১২৫ মডেল দুটি উন্মোচন করা হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অনুষ্ঠানে রানার অটোমোবাইলস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রিয়াজুল চৌধুরী, রানার অটোমোবাইলস লিমিটেডের পরিচালক আমিদ সাকিফ খানসহ প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, কেটিএমের ‘রেডি টু রেস’ দর্শনের সঙ্গে ডিউক এবং আরসি বাংলাদেশের মোটরসাইকেলপ্রেমীদের প্রত্যাশা পূরণে সক্ষম হবে। সিগনেচার ‘ডিউক অ্যাটিটিউড’ যুক্ত কেটিএম ১২৫ ডিউক, বিশ্বজুড়ে ১২৫ সিসি বিভাগে অন্যতম জনপ্রিয় মোটরসাইকেল হয়ে উঠেছে। ডিউকের বিশেষত্ব হলো, এটি গতি এবং দক্ষতার সঙ্গে চালককে রাস্তায় বাইক চালানোর অসাধারণ অভিজ্ঞতা দেয়। কেটিএম ১২৫ ডিউকের রয়েছে লিকুইড-কুলড, ফুয়েল ইঞ্জেক্টেড ইঞ্জিন, যা ৯২৫০ আরপিএমে দেয় ১৪.৫ এইচপি ক্ষমতা এবং ৮০০০ আরপিএমে দেয় ১২ নিউটন মিটার। এর অ্যালুমিনিয়াম সিলিন্ডারের ভেতরের দেয়ালে নিকাসিল কোটিং দেওয়া হয়েছে। কেটিএম ডিউক ১২৫ দুটি ভিন্ন ভেরিয়েন্টে আকর্ষণীয় রঙে পাওয়া যাচ্ছে। কেটিএম আরসি ১২৫ মোটোজিপি চ্যাম্পিয়নশিপে অংশ নেওয়া কেটিএম ফ্যাক্টরি রেসিং টিমের আরসি১৬ দ্বারা অনুপ্রাণিত। এতে আরো রয়েছে শীর্ষমানের এবিএস সিস্টেম, শক্তিশালী ফেয়ারিং এবং লিন ফরওয়ার্ড স্টাইলের অ্যারোডাইনামিক স্টাইল। কেটিএম ১২৫ ডিউক দুই ভেরিয়েশনে বাজারে পাওযা যাবে, যার মধ্যে একটির মূল্য চার লাখ ৮০ হাজার এবং অন্যটির তিন লাখ ৫০ হাজার টাকা। কেটিএম আরসি ১২৫ মডেলের মোটরসাইকেলের দাম নির্ধারণ করা হয়েছে চার লাখ ৭০ হাজার টাকা। রিয়াজুল চৌধুরী বলেন, ‘বাংলাদেশে কেটিএম ডিউক এবং কেটিএম আরসির যাত্রা শুরু করতে পেরে আমরা অত্যন্ত আনন্দিত। এই উদ্যোগ বাইকিং অভিজ্ঞতার নতুন অধ্যায়ের সূচনা হবে।’

আমিদ সাকিফ খান বলেন, ‘কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশের মোটরসাইকেলের বাজার সমৃদ্ধ হচ্ছে। কেটিএম এই উঠতি বাজারে নিজেদের উপস্থিতি জানান দিতে পেরে খুশি এবং আগামী দিনগুলোতে মানের নিশ্চয়তা এবং গ্রাহকসেবার অনুকরণীয় প্রদর্শন করার জন্য আন্তরিকভাবে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।’

অস্ট্রিয়ান মোটরসাইকেল প্রতিষ্ঠান কেটিএমের যাত্রা শুরু হয় ১৯৩৪ সালে। কয়েক দশক ধরে মোটরসাইকেল ক্রীড়াশিল্পের অন্যতম প্রধান নাম কেটিএম।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা