kalerkantho

বুধবার । ১৮ ফাল্গুন ১৪২৭। ৩ মার্চ ২০২১। ১৮ রজব ১৪৪২

সেমিনারে ড. মিজানুর রহমান

বীমা দাবি ফেরতে দেরি করলে ব্যবস্থা নিতে হবে

জিডিপিতে বীমার অবদান কমে ০.৫৭ শতাংশ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৫ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বীমা দাবি ফেরতে দেরি করলে ব্যবস্থা নিতে হবে

দুর্নীতিগ্রস্ত ও গ্রাহকের বীমা দাবির টাকা দিতে দেরি করা কম্পানিগুলোর বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে হবে বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষেরই (আইডিআরএ)। গতকাল রবিবার ঢাকার পল্টনের বাণিজ্য প্রতিদিন আয়োজিত এক সেমিনারে এ কথা বলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমান।

ইকোনমিক রিপোর্টার্স ফোরামে ‘চ্যালেঞ্জিং অ্যান্ড অপরচুনিটিস অব ইনস্যুরেন্স সেক্টর ইন বাংলাদেশ’ সেমিনারে আরো উপস্থিত ছিলেন আইডিআরএর চেয়ারম্যান ড. এম মোশারফ হোসেন এফসি, বাংলাদেশ ইনস্যুরেন্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি শেখ কবির হোসেন, বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মো. সায়েদুর রহমান এবং বাণিজ্য প্রতিদিনের সম্পাদক এ কে এম রাশেদ শাহরিয়ার।

অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমান আরো বলেন, দেশের জিডিপিতে বীমার অবদান মাত্র ০.৫৭ শতাংশ। অথচ ২০০৯ সালেও বীমার অবদান ছিল ০.৯ শতাংশ। উন্নত দেশের অর্থনীতিতে বীমার অবদান ৯.৬ শতাংশ।

তিনি বলেন, দুর্নীতি ও অনিয়মের কারণে বীমা খাতে জনগণের বিরূপ মনোভাব তৈরি হয়েছে। ফলে এসব সমস্যা নিরসনে গবেষণার দরকার নেই বরং আইডিআরএর সঠিক ও কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া জরুরি।

প্রিমিয়াম জমা দেওয়ার পরিমাণ আগের থেকে বাড়লেও জিডিপি বৃদ্ধির সঙ্গে সেটি সেভাবে বাড়েনি। ভারতে বীমা খাতের প্রবৃদ্ধি ৩.৬৯ শতাংশ, থাইল্যান্ডে ৫.২৯ শতাংশ, চীনে ৪.৫৭ শতাংশ, ইন্দোনেশিয়াতে ২.৩৬ শতাংশ। প্রতিটা বীমা কম্পানিকে পরিশোধিত মূলধন বৃদ্ধি করতে হবে। দেশের জনসংখ্যার ৮ শতাংশও বীমার আওয়তায় এখনো আসেনি। কম্পিহেনসিভ বীমা বাধ্যতামূলক করা প্রয়োজন।

আইডিআরএর চেয়ারম্যান ড. এম মোশারফ হোসেন এফসি বলেন, ‘কোনো গ্রাহক সঠিক সময়ে বীমা দাবি ফেরত না পেলে সেটি নিয়ে জনমনে বিরূপ মনোভাব তৈরি হয়। ফলে আমরা দ্রুত চেষ্টা করছি জনগণের মধ্যে একটা ইতিবাচক মনোভাব তৈরি করার। কারণ ভবিষ্যতে জীবনের ঝুঁকি মোকাবেলা করবে এই বীমা।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা