kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৭ ফাল্গুন ১৪২৭। ২ মার্চ ২০২১। ১৭ রজব ১৪৪২

লেনদেনের প্রথম দিন

এক লাফে ৫০% দর বাড়ল এনার্জিপ্যাকের

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



লেনদেনের শুরুর দিনেই ৫০ শতাংশ দাম বেড়েছে এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশনের। গতকাল মঙ্গলবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেন শেষে কম্পানিটির শেয়ার ৪৬ টাকা ৫০ পয়সায় হাতবদল হয়। আইপিওতে বাংলাদেশের পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত জ্বালানি খাতের কম্পানিটির শেয়ার ৩১ টাকায় বিক্রি হয়। সে হিসেবে প্রথম দিনে বিনিয়োগকারীরা ৫০ শতাংশ বেশি দামে তা বিক্রি করতে পেরেছেন। তালিকাভুক্তির পর প্রথম ও দ্বিতীয় দিনের লেনদেনে এখন নতুন কম্পানির শেয়ারের দাম সর্বোচ্চ ৫০ শতাংশই বাড়তে পারে।

এই দিনে পাঁচবারে এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশন লিমিটেডের মোট ৮০৫টি শেয়ার হাতবদল হয়েছে, টাকার অঙ্কে যার দাম ৩৭ হাজার ৪৩৩ টাকা। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) কম্পানিটি ‘এন’ ক্যাটাগরিতে লেনদেন হয়। লেনদেনের কোড ‘EPGL’। কম্পানি কোড ১৫৩২২। সাধারণ বিনিয়োগকারীরা এনার্জিপ্যাকের শেয়ারটি ৩১ টাকায় পেয়েছিলেন। যেসব বিনিয়োগকারী লটারিতে জিতেছেন, তাঁরা প্রত্যেকে ২০০টি করে শেয়ার পেয়েছেন। গত বছেরের ৭ অগাস্ট ১৫০ কোটি টাকা তোলার প্রাথমিক অনুমোদন পায় এনার্জিপ্যাক। চূড়ান্ত অনুমোদনের পর বুকবিল্ডিং পদ্ধতিতে পুঁজিবাজারে আসতে চাওয়া এনার্জিপ্যাকের নিলাম হয়। তার মাধ্যমে এনার্জিপ্যাকের শেয়ারের দাম ঠিক হয়েছে। গত বছরের ২১ অক্টোবর চূড়ান্ত অনুমোদনের পর ৭ থেকে ১৩ ডিসেম্বর এনার্জিপ্যাকের আইপিও পেতে আবেদন করেন সাধারণ বিনিয়োগকারীরা।

আইপিওর মাধ্যমে ১৫০ কোটি টাকা সংগ্রহ করে এনার্জিপ্যাক মূলত এলপিজি প্রকল্পের ব্যবসা সম্প্রসারণ করবে; ব্যাংকঋণ পরিশোধেও কিছু অর্থ ব্যয় করবে। ২০১৯ সালের ৩০ জুনের আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী, এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশনের শেয়ারপ্রতি সম্পদ মূল্য ৩০ টাকা ২০ পয়সা এবং শেয়ারপ্রতি মুনাফা তিন টাকা ১৩ পয়সা। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে কম্পানিটি মুনাফা করে ৪৭ কোটি ৯৯ লাখ টাকা। তার আগের দুই বছরে মুনাফা ছিল যথাক্রমে ৪৫ ও ৩০ কোটি টাকা। এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশনের আইপিওর ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে লংকাবাংলা ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা