kalerkantho

শনিবার । ৯ মাঘ ১৪২৭। ২৩ জানুয়ারি ২০২১। ৯ জমাদিউস সানি ১৪৪২

বাণিজ্য ঘাটতি কমেছে

লেনদেন ভারসাম্যে ৪০০ কোটি ডলারের বড় উদ্বৃত্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৪ ডিসেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বৈদেশিক লেনদেনের চলতি হিসাবের ভারসাম্যে বড় ধরনের উদ্বৃত্ত দেখা দিয়েছে। চলতি অর্থবছরের প্রথম চার (জুলাই-অক্টোবর) এই উদ্বৃত্তের পরিমাণ ৪০০ কোটি (চার বিলিয়ন) ডলার ছাড়িয়ে গেছে। অথচ গত অর্থবছরের একই সময় পর্যন্ত ১৫০ কোটি ডলারের মতো ঘাটতি ছিল এই হিসাবে। অন্যদিকে এই সময়ে বাণিজ্য ঘাটতির পরিমাণও কমে এসেছে। যদিও আগের মাসের সঙ্গে তুলনা করলে অক্টোবরে প্রায় ১০০ কোটি ডলারের বেশি বাণিজ্য ঘাটতি বেড়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের হালনাগাদ প্রতিবেদন পর্যালোচনায় এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, করোনাভাইরাসে আমদানি ব্যয় কমে আসা, প্রবাসী আয়ে ঝোড়ো গতি ও রপ্তানি আয়ে প্রবৃদ্ধি চলতি হিসাবের ভারসাম্যে বড় উদ্বৃত্ত তৈরিতে ভূমিকা রেখেছে। চলতি ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রথম চার মাসে (জুলাই-অক্টোবর) চলতি হিসাবের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৪০৫ কোটি ৪০ লাখ ডলার। জুলাই-সেপ্টেম্বর সময়ে উদ্বৃত্ত ছিল ৩৫৭ কোটি ৬০ লাখ ডলার। গত ২০১৯-২০ অর্থবছরের জুলাই-অক্টোবর সময়ে লেনদেন ভারসাম্যে কোনো উদ্বৃত্ত ছিল না; বরং ১৫২ কোটি ১০ লাখ ডলার ঘাটতি ছিল। আর গত ২০১৯-২০ অর্থবছরে পুরো সময়ে এই ঘাটতির পরিমাণ ছিল ৪৮৪ কোটি ৯০ লাখ ডলার। এর আগে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে এই ঘাটতি ছিল আরো বেশি, ৫১০ কোটি ২০ লাখ ডলার। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ঘাটতি ছিল ৯৫৬ কোটি ৭০ লাখ ডলার। নিয়মিত আমদানি-রপ্তানিসহ অন্যান্য আয়-ব্যয় চলতি হিসাবের অন্তর্ভুক্ত। এই হিসাব উদ্বৃত্ত থাকার অর্থ হলো, নিয়মিত লেনদেনে দেশকে কোনো ঋণ করতে হচ্ছে না। আর ঘাটতি থাকলে সরকারকে ঋণ নিয়ে তা পূরণ করতে হয়।

বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদন অনুযায়ী, জুলাই-অক্টোবর সময়ে বিভিন্ন পণ্য রপ্তানি করে বাংলাদেশ এক হাজার ২৫৪ কোটি ৮০ লাখ ডলার আয় করেছে। আর আমদানিতে ব্যয় করেছে এক হাজার ৫৭৮ কোটি ৪০ লাখ ডলার। এই হিসাবেই এই চার মাসে পণ্য বাণিজ্যে সামগ্রিক ঘাটতির পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩২৩ কোটি ৬০ লাখ ডলার। এই চার মাসে রপ্তানি আয় বেড়েছে ১.১০ শতাংশ। আর আমদানি ব্যয় কমেছে ১৩ শতাংশ। অন্যদিকে গত বছরের জুলাই-অক্টোবর সময়ে সেবা খাতে ঘাটতি ছিল ১১১ কোটি ৩০ লাখ ডলার। আর এ বছরের একই সময়ে তা কমে ৬৮ কোটি ১০ লাখ ডলারে নেমে এসেছে। মূলত বীমা, ভ্রমণ ইত্যাদি খাতের আয়-ব্যয় হিসাব করে সেবা খাতের বাণিজ্য ঘাটতি পরিমাপ করা হয়।

এই চার মাসে দেশে সরাসরি বিদেশি বিনিয়োগ কমেছে প্রায় ৫০ শতাংশ। এই সময়ে দেশে নিট এফডিআই এসেছে ১৫ কোটি ৩০ লাখ ডলার। গত অর্থবছরের একই সময়ে যা ছিল ৩০ কোটি ৭০ লাখ ডলার।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা