kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৭ মাঘ ১৪২৭। ২১ জানুয়ারি ২০২১। ৭ জমাদিউস সানি ১৪৪২

সোনার দাম দুই দফায় ভরিতে কমল ৩৬৭৩ টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩ ডিসেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সোনার দাম দুই দফায় ভরিতে কমল ৩৬৭৩ টাকা

জুয়েলারি দোকানে সোনার অলংকার দেখছেন গ্রাহকরা। ছবি : কালের কণ্ঠ

এক সপ্তাহের ব্যবধানে দেশে সোনার দাম ভরিতে এক হাজার ১৬৬ টাকা কমিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। বিশ্ববাজারে সোনার দর নিম্নমুখী অব্যাহত থাকায় দেশের বাজারেও দাম কমানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন তাঁরা। গতকাল থেকে দেশে সোনার নতুন দাম কার্যকর হয়। এর আগে মঙ্গলবার রাতে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে একটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তি পাঠায়। এর ফলে ভালো মানের অর্থাৎ ২২ ক্যারেট সোনার অলংকারের দাম হয়েছে ভরিপ্রতি ৭২ হাজার ৬৬৭ টাকা। গত মঙ্গলবার পর্যন্ত প্রতি ভরি ২২ ক্যারেট সোনার দাম ছিল ৭৩ হাজার ৮৩৩ টাকা। এর আগে গত ২৫ নভেম্বর সোনার দাম ভরিতে দুই হাজার ৫০৭ টাকা কমিয়েছিল সমিতি। সব মিলিয়ে এক সপ্তাহে সোনার দাম ভরিতে কমেছে তিন হাজার ৬৭৩ টাকা। তবে রুপার দামে কোনো পরিবর্তন আসেনি। ভালো মানের প্রতি ভরি রুপার দাম এক হাজার ৫১৬ টাকা।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় শঙ্কিত বৈশ্বিক অর্থনীতি, ডলার ও তেলের দরপতন, আন্তর্জাতিক ও দেশীয় বাজারে সোনার দরের উত্থান-পতন সত্ত্বেও ব্যবসার অচল অবস্থা কাটাতে ও ভোক্তাসাধারণের কথা চিন্তা করে এক সপ্তাহের মধ্যে টানা দ্বিতীয়বারের মতো সোনার দাম কমানো হচ্ছে। সোনার নতুন দর কার্যকর হওয়ায় গতকাল বুধবার থেকে ২১ ক্যারেট সোনা ৬৯ হাজার ৫১৭ টাকা, ১৮ ক্যারেট ৬০ হাজার ৭৬৯ টাকা এবং সনাতন পদ্ধতির সোনার অলংকারের ভরি বিক্রি হয় ৫০ হাজার ৪৪৭ টাকায়। মঙ্গলবার পর্যন্ত ২১ ক্যারেট সোনা বিক্রি হতো ৭০ হাজার ৬৮৪ টাকা, ১৮ ক্যারেট ৬১ হাজার ৯৩৬ টাকা এবং সনাতন পদ্ধতির সোনা বিক্রি হয়েছে ৫১ হাজার ৬১৩ টাকায়।

কয়েক মাস ধরেই আন্তর্জাতিক বাজারে সোনার দর ছিল ঊর্ধ্বমুখী। সেই কারণে দেশের বাজারেও দফায় দফায় দাম বাড়িয়েছেন ব্যবসায়ীরা। গত ২৩ জুন সোনার দাম ভরিতে পাঁচ হাজার ৮২৫ টাকা, ২৪ জুলাই দুই হাজার ৯১৬ টাকা এবং ৬ আগস্ট চার হাজার ৪৩৩ টাকা বাড়ায় জুয়েলার্স সমিতি। তারপর দুই দফায় কমে চার হাজার ৯৫৮ টাকা।

নভেম্বর মাসজুড়েই বিশ্ববাজারে কমেছে সোনার দাম। অথচ কয়েক মাস আগেই নিরাপদ বিনিয়োগ হিসেবে পরিচিত এই ধাতুর দাম বলা যায় আকাশ ছুঁয়ে ফেলে। যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যকার উত্তেজনা, করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় দফা ঢেউ ও ডলারের দাম কমে যাওয়ায় মানুষ সোনাকে নিরাপদ বিনিয়োগ বলে মনে করেছিল। তবে করোনার টিকা আসা ও মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন নিয়ে জটিলতা কেটে যাওয়ায় পরিস্থিতি বদলে যায়। গত ২০ নভেম্বর বিশ্ববাজারে প্রতি আউন্স (২৮.৩৫ গ্রাম) সোনার দাম ছিল এক হাজার ৮৭১ ডলার। মঙ্গলবার সেটি আরো কমে এক হাজার ৮১১ ডলার হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা