kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ মাঘ ১৪২৭। ২৮ জানুয়ারি ২০২১। ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪২

জাপান-বাংলাদেশ বিনিয়োগ বাড়াতে সমঝোতা চুক্তি

আগামী ১০ বছর কিভাবে সমন্বয় করে অর্থনৈতিকভাবে নিজেদের সমৃদ্ধ করা যায় সেটিই চুক্তির মূল উদ্দেশ্য

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

২৪ নভেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জাপান-বাংলাদেশ বিনিয়োগ বাড়াতে সমঝোতা চুক্তি

বাংলাদেশের সঙ্গে জাপানের দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বাড়ানো; দুই দেশের অর্থনৈতিক সম্পর্কোন্নয়ন নিশ্চিত এবং একটি সমন্বিত উন্নয়ন পরিকল্পনা প্রণয়ন করতে জাপান-বাংলাদেশের মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে। গতকাল চট্টগ্রামে দেশের একমাত্র ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের বঙ্গবন্ধু কনফারেন্স হলে চট্টগ্রাম চেম্বার, ঢাকাস্থ জাপান এক্সটার্নাল ট্রেড অর্গানাইজেশন (জেটরো) এবং জাপান-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (জেবিসিসিআই) এই চুক্তি স্বাক্ষর করে। জাপান-বাংলাদেশ আগামী ১০ বছর কিভাবে সমন্বয় করে অর্থনৈতিকভাবে নিজেদের সমৃদ্ধ করতে চায়; সেটিই চুক্তির মূল উদ্দেশ্য।

অনুষ্ঠানে ভার্চুয়াল মিটিংয়ে যোগ দিয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি এমপি বলেছেন, জাপান বাংলাদেশের অকৃত্রিম ও দীর্ঘদিনের বন্ধু। উভয় দেশের মধ্যে আগামী দিনের দ্বিপক্ষীয় অধিকতর অর্থনৈতিক সম্পর্কোন্নয়নে এই সমঝোতা স্মারক সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি খাতে একটি সময়োপযোগী ও কার্যকর পদক্ষেপ হিসেবে কাজ করবে। তিনি বলেন, ২০২১-২২ সালে বে অব বেঙ্গল গ্রোথ সামিট আয়োজন বেসরকারি খাতের অংশগ্রহণের মাধ্যমে চট্টগ্রাম তথা বাংলাদেশকে ভবিষ্যৎ এশিয়ার প্রধান বিনিয়োগ কেন্দ্রে পরিণত করবে।

বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি বলেন, দুই দেশের বন্ধুত্বের সুবর্ণ জয়ন্তীর প্রাক্কালে ঐতিহাসিক এই সমঝোতা স্মারক সম্পর্কোন্নয়নে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। মাতারবাড়ী গভীর সমুদ্রবন্দর দুই দেশের বন্ধুত্বের নিদর্শন বা ফ্ল্যাগশিপ প্রজেক্ট। বিগ-বি ইনিশিয়েটিভের আওতায় ঢাকা থেকে বৃহত্তর চট্টগ্রাম হয়ে কক্সবাজার পর্যন্ত অনেক মেগা প্রকল্প বাস্তবায়নের সঙ্গে জাপান সরাসরি জড়িত। তিনি এই সমঝোতা সমর্থনে জাপান সরকারের দৃঢ় অঙ্গীকার ব্যক্ত করে আগামীতে জাপানে বাংলাদেশি পণ্যের এবং ব্যবসার রোড শো আয়োজনের প্রস্তাব করেন।

এই স্মারক ভবিষ্যৎ বাংলাদেশের নির্দেশক বলে অভিহিত করেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস।

চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেন, দুই দেশের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের ৫০ বছর পূর্তি সামনে রেখে বেসরকারি খাতের সহযোগিতার মাধ্যমে আগামী ১০ বছরের জন্য উন্নয়ন পরিকল্পনা প্রণয়নের লক্ষ্যে জেটরো ও জেবিসিসিআইর সঙ্গে চিটাগাং চেম্বার এই সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করছে। অনুষ্ঠানে জেটরোর ঢাকাস্থ কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ ও জেবিসিসিআই সভাপতি ইউজি অ্যান্ডো এই সমঝোতায় স্বাক্ষর করেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা