kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ মাঘ ১৪২৭। ২৮ জানুয়ারি ২০২১। ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪২

ইউএস-বাংলার বহরে আসছে আরো চার উড়োজাহাজ

নতুন চার রুটে ফ্লাইটের পরিকল্পনা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৪ নভেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ইউএস-বাংলার বহরে আসছে আরো চার উড়োজাহাজ

সংবাদ সম্মেলনে ইউএস-বাংলার সিইওসহ অন্য কর্মকর্তারা

নতুন বছরের শুরুতে মধ্যপ্রাচ্যের অন্যতম গন্তব্য দুবাই ও আবুধাবিতে ফ্লাইট চালু করবে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনস। সেই সঙ্গে শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলম্বো ও মালদ্বীপের রাজধানী মালেতে ফ্লাইট চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিমান সংস্থাটি। বর্তমান ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার আন্তর্জাতিক রুটগুলোকে নির্বিঘ্ন করতে ইউএস-বাংলার বিমান বহরে আরো দুটি বোয়িং ৭৩৭-৮০০ এয়ারক্রাফট যুক্ত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে এয়ারলাইনস কর্তৃপক্ষ। এ ছাড়া বিমান বহরে দুটি ব্র্যান্ডনিউ এটিআর ৭২-৬০০ যুক্ত করে যশোর-চট্টগ্রাম, সৈয়দপুর-কক্সবাজার, সিলেট-চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন অভ্যন্তরীণ রুটের পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন ইউএস-বাংলার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ক্যাপ্টেন শিকদার মেজবাহউদ্দিন আহমেদ।

কক্সবাজারের একটি হোটেলে রবিবার এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ তথ্য জানান। এ সময় বিমান সংস্থাটির পরিচালক ফ্লাইট অপারেশনস ক্যাপ্টেন নুরুদ্দিন মাসুদ, ক্যাপ্টেন সাদাত, মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) কামরুল ইসলামসহ অন্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বর্তমান ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসের বিমান বহরে চারটি বোয়িং ৭৩৭-৮০০, ছয়টি ব্র্যান্ডনিউ এটিআর ৭২-৬০০সহ মোট ১৩টি এয়ারক্রাফট আছে। ছয়টি ব্যান্ডনিউ এটিআর ৭২-৬০০ ও তিনটি ড্যাশ৮-কিউ৪০০ এয়ারক্রাফট দিয়ে ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, সিলেট, যশোর, সৈয়দপুর, রাজশাহী ও বরিশাল রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করছে ইউএস-বাংলা। এ ছাড়া বোয়িং ৭৩৭-৮০০ দিয়ে ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার রুটেও ফ্লাইট পরিচালনা করছে।

সংবাদ সম্মেলন জানানো হয়, করোনাভাইরাসের করাল গ্রাসে এভিয়েশন ও ট্যুরিজম ইন্ডাস্ট্রি চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সারা বিশ্বের আকাশপথ অনেকটা লকডাউন অবস্থায় ছিল। গত ফেব্রুয়ারি-মার্চ মাস থেকে এভিয়েশন ইন্ডাস্ট্রিজ ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে। জুন-জুলাই পর্যন্ত প্রায় সব ধরনের আকাশপথের যোগাযোগব্যবস্থা বন্ধ ছিল। বর্তমানে স্বল্প পরিসরে আন্তর্জাতিক রুটগুলোতে নানাবিধ স্বাস্থ্যবিধির নির্দেশনা মেনে ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করেছে অন্যান্য এয়ারলাইনসের মতো ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসও।

ক্যাপ্টেন শিকদার মেজবাহউদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘গত ২৮ অক্টোবর থেকে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে এয়ার বাবল চুক্তির অধীনে আমরা ঢাকা থেকে কলকাতা ও চেন্নাই এবং চট্টগ্রাম থেকে চেন্নাই রুটে ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করেছি। আপনারা জেনে খুশি হবেন, গত ১৭ নভেম্বর থেকে প্রথমবারের মতো সিলেট থেকে সপ্তাহে দুটি ফ্লাইট মাসকাটে পরিচালনা শুরু করেছে ইউএস-বাংলা। বর্তমানে ঢাকা থেকে কলকাতা, চেন্নাই ছাড়াও মাসকাট, দোহা, সিঙ্গাপুর, কুয়ালালামপুর ও গুয়াংজু রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা