kalerkantho

মঙ্গলবার । ১১ কার্তিক ১৪২৭। ২৭ অক্টোবর ২০২০। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

করোনাতেও রেমিট্যান্সে রেকর্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



করোনাতেও রেমিট্যান্সে রেকর্ড

নগদ প্রণোদনায় ব্যাংকিং চ্যানেলে রেমিট্যান্স বাড়ছে। ছবি : কালের কণ্ঠ

এক মাসের হিসাবে গত সেপ্টেম্বরে প্রবাসী আয় ফের ২০০ কোটি ডলারের ঘর অতিক্রম করেছে। এ মাসে মোট রেমিট্যান্স এসেছে ২১৫ কোটি ডলার, যা একক মাস হিসেবে বাংলাদেশের ইতিহাসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। এটি গত অর্থবছরের একই মাসের চেয়ে সাড়ে ৪৫ শতাংশ এবং আগের মাসের চেয়ে সাড়ে ৯ শতাংশ বেশি। সব মিলে চলতি অর্থবছরের প্রথম তিন মাসে প্রায় ৬৭১ কোটি ডলারের রেমিট্যান্স এসেছে। এটি গত অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় সাড়ে ৪৮ শতাংশ বেশি। বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ২ শতাংশ নগদ প্রণোদনা ও হুন্ডি কমে আসায় ব্যাংকিং চ্যানেলে রেমিট্যান্স বাড়ছে। এমনকি করোনার মধ্যেই রেমিট্যান্সের এই ঊর্ধ্বগতি অব্যাহত আছে।

গত বছরের ১ জুলাই থেকে ব্যাংকিং চ্যানেলে রেমিট্যান্স পাঠালে ২ শতাংশ প্রণোদনা দেওয়া হচ্ছে। এই প্রণোদনা দেওয়ার ফলে ২০১৯-২০ অর্থবছরের শুরু থেকে প্রতি মাসেই রেমিট্যান্স বাড়তে থাকে। তবে বিশ্বে ছড়িয়ে পড়া মহামারি করোনার প্রভাবে গত অর্থবছরের ফেব্রুয়ারি, মার্চ ও এপ্রিলে রেমিট্যান্সের গতি নিম্নমুখী হয়ে পড়ে। রোজার ঈদের মাস মে থেকে আবার ঊর্ধ্বগতি ধারায় ফেরে রেমিট্যান্স এবং কোরবানির ঈদের পরও এই ঊর্ধ্বগতি ধারা বজায় রয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, সদ্যঃসমাপ্ত আগস্ট মাসে ১৯৬ কোটি ৩৯ লাখ ডলার দেশে পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। গত বছরের আগস্ট মাসে ১৪৪ কোটি ৪৭ লাখ ডলারের রেমিট্যান্স এসেছিল। এ ছাড়া অর্থবছরের প্রথম মাস জুলাইয়ে ২৬০ কোটি ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছিলেন প্রবাসীরা। বাংলাদেশের ইতিহাসে এর আগে কখনোই এক মাসে এত বেশি রেমিট্যান্স আসেনি।

২০১৯-২০ অর্থবছরে দেশে মোট এক হাজার ৮২০ কোটি ৩০ লাখ ডলারের রেমিট্যান্স আসে। ওই অঙ্ক ছিল আগের ২০১৮-১৯ অর্থবছরের চেয়ে ১০.৮৭ শতাংশ বেশি।

মন্তব্য