kalerkantho

সোমবার । ৬ আশ্বিন ১৪২৭ । ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০। ৩ সফর ১৪৪২

সেমিনারে তৌফিক-ই-এলাহী

জ্বালানি ব্যবহারে সাশ্রয়ী হতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১০ আগস্ট, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘গভীর সমুদ্রে গ্যাস পাওয়া গেলেও ১০ বছর অপেক্ষা করতে হবে। এ জন্য বিকল্প চিন্তাও একই সঙ্গে করতে হবে। জ্বালানি ব্যবহারে আমাদের সাশ্রয়ী হতেই হবে। তাহলে আমরা কম গ্যাস দিয়ে বেশি লোককে সেবা দিতে পারব। প্রতিবেশী সব দেশের চেয়ে বাংলাদেশ ভালো রয়েছে। জ্বালানি নীতি সরকারের সার্বিক চিন্তার মধ্যে রাখতে হবে। আমরা মানুষের উন্নয়ন চাই। আমরা গ্যাস ও বায়ুর সম্পদের মূল্যায়ন করেছি’—গতকাল রবিবার ‘জাতীয় জ্বালানি নিরাপত্তা দিবস’ উপলক্ষে আয়োজিত ভার্চুয়াল সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-এলাহী চৌধুরী।

কয়লা উত্তোলনের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘কয়লা তুলতে গেলে জমি আর ফেরত পাব না। কয়লা আমি বাইরে থেকেও আনতে পারব; কিন্তু জমি বাইরে থেকে আমদানি করতে পারব না, এগুলো ভাবতে হবে। আফটার মাইনিং কী হবে সেগুলো ভাবতে হবে। এ জন্য আমরা একটি সমীক্ষা করেছি। এই সমীক্ষায় অনেক সমস্যা আমাদের সামনে এসেছে। এগুলো বিবেচনায় নিয়েই কাজ করতে হচ্ছে।’

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, ‘৯ আগস্ট আমাদের জন্য একটি বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ দিন। যুদ্ধবিধ্বস্ত একটি দেশে পাঁচটি গ্যাসক্ষেত্র কিনে নেন বঙ্গবন্ধু। তাঁর স্বনির্ভর জ্বালানি খাতের দর্শন অনুসরণ করেই বর্তমান সরকার কাজ করছে। এতে আমাদের নিজস্ব গ্যাস উৎপাদন বেড়েছে। এ ছাড়া জ্বালানির সংস্থান নিশ্চিত করতে আমদানি করা হচ্ছে। এতে আমাদের রপ্তানি বাড়ছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমরা সম্পদের সুষ্ঠু পরিকল্পনা করছি। এখন বৈশ্বিক জ্বালানি খাতে পরিবর্তন হচ্ছে। বর্তমান সময়ে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনায় যাওয়াটা ঝুঁকিপূর্ণ। তাই জ্বালানি ক্ষেত্রে স্বল্পমেয়াদি, কিছু মধ্যমেয়াদি, কিছু ক্ষেত্রে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা নিয়েছি। এলপিজিকে ৭৫ শতাংশ ঘরে পৌঁছে দিতে পেরেছি। দুই-তিন বছরের মধ্যে ভালো পরিস্থিতির দিকে যেতে পারব।’ বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি শহীদুজ্জামান সরকার বলেন, ‘জ্বালানি নিরাপত্তায় সরকার কাজ করে যাচ্ছে। তবে জ্বালানি নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হলে আমদানিনির্ভরতা কমাতে হবে।’

অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন রূপান্তরিত প্রাকৃতিক গ্যাস কম্পানির সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী মো. কামরুজ্জামান। সভাপতিত্ব করেন জ্বালানি বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. আনিসুর রহমান।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা