kalerkantho

সোমবার । ১৩ আশ্বিন ১৪২৭ । ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০। ১০ সফর ১৪৪২

লেনদেন ও মূল্যসূচকে বড় উত্থান

পুঁজিবাজারে সাড়ে চার ঘণ্টা লেনদেন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৭ আগস্ট, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



পুঁজিবাজারে সাড়ে চার ঘণ্টা লেনদেন

ঊর্ধ্বমুখী ধারায় মধ্যস্থতাকারী প্রতিষ্ঠান ও বিনিয়োগকারীর চাহিদার পরিপ্রেক্ষিতে পুঁজিবাজারের লেনদেনের সময় আধাঘণ্টা বাড়ানো হয়েছে। স্বাভাবিক সময়ে সকাল সাড়ে ১০টা থেকে আড়াইটা পর্যন্ত লেনদেন হয়। তবে এখন থেকে দেশের দুই পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) শেয়ার লেনদেন হবে সকাল ১০টা থেকে বেলা আড়াইটা পর্যন্ত।

করোনার কারণে অর্থনৈতিক মন্দাবস্থা কাটতে শুরু করায় পুঁজিবাজারে বিনিয়োগকারীর অংশগ্রহণ বাড়ছে। এতে শেয়ার লেনদেন ও মূল্যসূচক ক্রমাগত ঊর্ধ্বমুখী হয়েছে। গত ২৫ দিনে পুঁজিবাজারের মূলধন বেড়েছে ২১ হাজার ৯১০ কোটি টাকা আর সূচক বেড়েছে ৩৭৮ পয়েন্ট। মূলধন বৃদ্ধি ৭.০৩ শতাংশ আর সূচকে প্রবৃদ্ধি ৯.৪৮ শতাংশ।

ডিএসইর এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী লেনদেনের সময়সূচির পরিবর্তন আনা হয়েছে। আগামী রবিবার থেকে পুঁজিবাজারে লেনদেন হবে সকাল ১০টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত। চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জও (সিএসই) এক বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানিয়েছে।

করোনাভাইরাস পরিস্থিতির ভয়াবহতায় গত মার্চ থেকে মে পর্যন্ত টানা ৬৬ দিন লেনদেন বন্ধ ছিল। পুঁজিবাজার মধ্যস্থতাকারী প্রতিষ্ঠান ও বিনিয়োগকারীর চাহিদা অনুযায়ী ডিএসই ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ সময় বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর আগে ৮ জুলাই লেনদেনের সময়সূচি নির্ধারণ করা হয় সকাল সাড়ে ১০টা থেকে থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত। এর আগে করোনার সময় গত ১৯ মার্চ লেনদেনের সময়সূচি সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত নির্ধারণ করা হয়। ১৮ জুন লেনদেনের সময়সূচি পুনর্নির্ধারণ করা হয় সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা।

দিনের লেনদেন : সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস গতকাল বৃহস্পতিবার ডিএসইর লেনদেন হয় ৮০০ কোটি টাকা। আর সূচক বেড়েছে ৫৭ পয়েন্ট। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ৭৭০ কোটি ৬০ লাখ টাকা। আর সূচক বেড়েছিল ৮ পয়েন্ট।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, লেনদেন শুরুর পর শেয়ার কেনার চাপে সূচক বাড়ে। বেলা বাড়লে শেয়ার কেনার পরিমাণও বাড়ে। এতে দিনের সূচকে বড় উত্থানে লেনদেন শেষ হয়েছে। দিনশেষে সূচক দাঁড়িয়েছে

৪৩৬৪ পয়েন্ট। ডিএস-৩০ মূল্যসূচক ২৩ পয়েন্ট বেড়ে ১৪৭৫ পয়েন্ট ও ডিএসইএস শরিয়াহ সূচক ১৩ পয়েন্ট বেড়ে ১০১১ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। লেনদেন হওয়া কম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ২১৯টির, দাম কমেছে ৭৯টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৫৫টির।

অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) লেনদেন ও মূল্যসূচকে বড় উত্থান হয়েছে। বৃহস্পতিবার লেনদেন হয়েছে ৪৯ কোটি এক লাখ টাকা। আর সূচক বেড়েছে ১০১ পয়েন্ট। লেনদেন হওয়া ২৬৫ কম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ১৫৯টির, দাম কমেছে ৫০টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৫৬টির। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ১৭ কোটি ৪০ লাখ টাকা আর সূচক বেড়েছিল ২৫ পয়েন্ট।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা