kalerkantho

শুক্রবার । ২৩ শ্রাবণ ১৪২৭। ৭ আগস্ট  ২০২০। ১৬ জিলহজ ১৪৪১

এনবিআরে বৈঠক

পোশাক খাতে নীতি সহায়তা চান ব্যবসায়ীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৩ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চলতি অর্থবছরের শুরু থেকেই আমদানীকৃত পণ্যের এইচএস কোডজনিত জটিলতা দেখা দিয়েছে। এতে আমদানীকৃত পণ্যের শুল্ককরের পরিমাণ নিয়ে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) ও আমদানিকারক ব্যবসায়ীদের মধ্যে মতবিরোধ দেখা দেয়। এ সমস্যা সমাধানে গতকাল রাজধানীর সেগুনবাগিচায় এনবিআর প্রধান কার্যালয়ে এনবিআর চেয়ারম্যানের দপ্তরে এনবিআরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এবং তৈরি পোশাক খাতের ব্যবসায়ীরা বৈঠক করেন।

বৈঠকে এনবিআর চেয়ারম্যান রাহমাতুল মুনিম, এনবিআর সদস্য সৈয়দ গোলাম কিবরীয়া, ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, তৈরি পোশাক খাতের ব্যবসায়ীদের সংগঠন বিজিএমইএর সভাপতি রুবানা হক উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে তৈরি পোশাক খাতের উৎসে করের পরিমাণ, পণ্য ছাড়করণ জটিলতা এবং ভ্যাট আদায়ে এনবিআরের পদক্ষেপ নিয়েও কথা হয়। 

শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন বলেন, ‘করোনায় তৈরি পোশাক খাত ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এটি দেশের রপ্তানি আয়ের প্রধান খাত। এ খাতে সক্ষমতা আনতে সরকারের নীতি সহায়তা দিতে হবে। ব্যবসায়ীরা আয় করতে পারলেই রাজস্ব পরিশোধ করতে পারবেন। এ জন্য ব্যবসায়ীদের হয়রানি করা যাবে না।’ তিনি বলেন, পণ্য আমদানির আগে যে হিসাব দেওয়া হয়, আমদানির পরে অনেক ক্ষেত্রে পণ্যের পরিমাণে সামান্য এদিক-ওদিক হতে পারে। ১০ মিটার কাপড় আনার কথা বলা হলে দেখা গেল বিক্রেতা প্রতিষ্ঠান ১১ মিটার পাঠিয়েছে। আবার অনেক ক্ষেত্রে এক মিটার কম পাঠানোও হতে পারে। এ সামান্য কমবেশি নিয়ে যদি এনবিআর বিভিন্ন আইনি পদক্ষেপ নেয়, তবে তাতে ব্যবসায়ীরা ভোগান্তিতে পড়বেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা