kalerkantho

রবিবার। ৫ আশ্বিন ১৪২৭ । ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০। ২ সফর ১৪৪২

ময়মনসিংহে জনপ্রিয় হচ্ছে হোম ডেলিভারি সার্ভিস

শিক্ষিত তরুণরা যুক্ত হচ্ছেন এ পেশায়

নিয়ামুল কবীর সজল, ময়মনসিংহ   

১০ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ময়মনসিংহে জনপ্রিয় হচ্ছে হোম ডেলিভারি সার্ভিস

খাবার তৈরিতে ব্যস্ত এক নারী

ময়মনসিংহ নগরীতে ধীরে ধীরে জনপ্রিয় হচ্ছে খাদ্যপণ্যের হোম ডেলিভারি সার্ভিস। তৈরি খাবার বা খাদ্যপণ্য বাসায় পৌঁছে দিয়ে অনেকেই করোনাকালটাকে কাজে লাগাচ্ছেন। অনেকে আবার এটিকে সেবা হিসেবেও নিচ্ছেন। বিশেষ করে ভালো মানের এবং বিষমুক্ত খাবার বা খাদ্যপণ্য ক্রেতার বাসায় পৌঁছে দেওয়ার বিষয়টিকেই প্রাধান্য দিচ্ছেন সংশ্লিষ্টরা। অনেক বেকার যুবক-যুবতী এ পেশায় যুক্ত হচ্ছেন। সে লক্ষ্যে তাঁরা ভালো বিনিয়োগও করছেন। আবার ক্রেতারাও এমন সার্ভিসে উপকৃত হচ্ছেন। বিশেষ করে ভালো ও খাঁটি মানের পণ্য পেয়ে অনেক ক্রেতাই এখন হোম ডেলিভারি সেবার দিকে ঝুঁকছেন।

মাহমুদা হোসেন মলি। পেশায় চারুকলা বিষয়ের শিক্ষক। নৃত্য শিক্ষক হিসেবেও তাঁর পরিচিতি। নগরীর মুসলিম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজে তিনি চাকরিরত। স্থানীয় সামাজিক-সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে তিনি পরিচিত মুখ। মাসখানেক আগে অনেকেই তাঁর কাছে ফোন করে তাঁদের খাবারের সমস্যার কথা বলতেন। কেউ কেউ আবার বাসায় কাজের মহিলা না থাকার বিড়ম্বনার কথাও জানাতেন। এ ছাড়া মেসের শিক্ষার্থীরাও কাজের বুয়ার অভাবে খাওয়ার কষ্টে আছেন। এসব জানার পর তিনি সিদ্ধান্ত নেন, লোকজনের বাসায় খাবার পাঠাবেন। খাবারের জন্য নামমাত্র মূল্য আর সার্ভিস চার্জ নেবেন। এরপর শুরু করলেন কাজ। বর্তমানে তিনি চালের রুটি, আটার রুটি, সবজি, সবজি খিচুড়ি, ভুনা খিচুড়ি, গরুর মাংস বিক্রি করছেন। রান্নাবান্না ও প্যাকেটজাত সবই তিনি নিজে করেন।

মলি জানান, যেহেতু তিনি একা কাজ করেন, তাই খুব বেশি খাবার তিনি বিক্রি করতে পারেন না। এ পর্যন্ত তিনি দৈনিক সর্বোচ্চ ৫০ থেকে সর্বনিম্ন ১০ জনের কাছে খাবার বিক্রি করেছেন।

প্রযত্নের কর্ণধার ইকবাল হোসেন জুপিটার দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে খাদ্যপণ্য এনে বিক্রি করছেন ময়মনসিংহ শহরে। তেল, ঘি, চাল, আটাসহ মোটামুটি সব দ্রব্যই তাঁর কাছে পাওয়া যায়। খাঁটি এবং মানসম্মত হওয়ায় নগরীর অনেকের কাছেই এখন জনপ্রিয় নাম ‘প্রযত্ন’।

তুহীন তালুকদার নামের এক ব্যাংক কর্মকর্তা বলেন, ‘প্রযত্নের কাছ থেকে এবার আম নিয়েছিলাম। খুবই স্বাদের ছিল সেই আম। এ ছাড়া তাদের ঘিও অসাধারণ।’ নিজের কৃষিজমির অনেক পণ্যও তিনি নগরীতে এনে পৌঁছে দিচ্ছেন। এ ছাড়া ফুলবাড়িয়ার লাল চিনি, ঘি, চেপাসহ মানসম্মত স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রীও তিনি বিক্রি করছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা