kalerkantho

বুধবার । ৩১ আষাঢ় ১৪২৭। ১৫ জুলাই ২০২০। ২৩ জিলকদ ১৪৪১

কালের কণ্ঠর বিজনেস শো

এবারের বাজেট গতানুগতিক হওয়া উচিত নয়

বাণিজ্য ডেস্ক   

৪ জুন, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



এবারের বাজেট গতানুগতিক হওয়া উচিত নয়

এবারের বাজেটটি অস্বাভাবিক একটি সময়ে ঘোষণা হতে যাচ্ছে। এ বাজেটের বড় একটি সমস্যা দেখা দেবে অর্থায়ন নিয়ে। সব বাজেটেই অর্থায়ন এবং বাস্তবায়ন নিয়ে একটা সমস্যা থাকেই। কিন্তু এবারের পরিস্থিতিটা ভিন্ন। অন্যান্য বাজেটে ডেফিসিটটা (ঘাটতি) ৫ শতাংশের মতো থাকে প্রবৃদ্ধির কিন্তু এবার সেটা সে পর্যায়ে থাকবে না সংগত কারণেই। বৈশ্বিক এ মন্দার সময়ে বাজেট বড় হলেও (পাঁচ লাখ ৬০ হাজার টাকা প্রস্তাবিত) তাতে তৃপ্ত হওয়ার মতো কিছু নেই। কারণ বহুমাত্রিক সমস্যাও রয়েছে। দেশে দারিদ্র্যের হার প্রায় দ্বিগুণ হয়েছে। সমস্যার সমাধানে অপ্রদর্শিত টাকা মেইনস্ট্রিমে আনাসহ সরকারের নানামুখী তৎপরতা দেখাতে হবে। গত মঙ্গলবার রাতে কালের কণ্ঠের নিয়মিত ফেসবুক লাইভ বিজনেস শোতে অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন এফবিসিসিআইয়ের সাবেক প্রেসিডেন্ট মীর নাসির হোসাইন এবং বেসরকারি গবেষণা সংস্থা সাউথ এশিয়ান নেটওয়ার্ক অন ইকোনমিক মডেলিংয়ের (সানেম) নির্বাহী পরিচালক সেলিম রায়হান। শোটি সঞ্চালনা করেন কালের কণ্ঠের সিনিয়র বিজনেস এডিটর ফারুক মেহেদী।

মহামারির এ সময়টাতে দাতা সংস্থাগুলো থেকে ঋণ এনে বাজেট বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে আইএমএফ এবং ওয়ার্ল্ড ব্যাংকের মতো প্রতিষ্ঠানগুলোতে বাংলাদেশের মতো আরো অনেক দেশের চাহিদা থাকবে। সে ক্ষেত্রে বাংলাদেশের করণীয় কী—এর জবাবে মীর নাসির বলেন, ‘ইতোমধ্যে বাংলাদেশের একটা অবস্থান কিন্তু অর্থনীতিতে তৈরি হয়েছে। সবাই যাবে দাতাদের কাছে। কিন্তু তাদের কাছে আমার দেশের যে আস্থা তৈরি হয়েছে সেটাকে কাজে লাগিয়ে ঋণ আনতে হলে সংশ্লিষ্টদের প্রঅ্যাকটিভ হতে হবে। তাতে লজ্জার কী আছে?’

সেলিম রায়হান বলেন, ‘সরকার স্বাভাবিক সময়ে যেভাবে ব্যয় করেছে তা অনেকটা ক্রাইসিস টাইমের মতো। সরকার ব্যাংকিং সেক্টর থেকে নরমাল টাইমেই প্রচুর ঋণ নিয়েছে।’         

অনুলিখন : কামাল হোসাইন

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা