kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৪ চৈত্র ১৪২৬। ৭ এপ্রিল ২০২০। ১২ শাবান ১৪৪১

সেমিনারে বিএসইসি চেয়ারম্যান

বিএসইসি একদিকে শক্তিশালী অন্যদিকে অসহায়

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান ড. এম খায়রুল হোসেন বলেছেন, ‘নিয়ন্ত্রক সংস্থা একদিকে শক্তিশালী, অন্যদিকে অসহায়। কম লোকবল প্রসঙ্গ তুলে ধরতে গিয়ে তিনি এই অসাহয়ত্বের কথা তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, একটা রেগুলেটরে (বিএসইসি) মাত্র ৮৪ জন অফিসার। আর পিয়ন ও দারোয়ান মিলে ১৬০ জন। নিয়ন্ত্রক সংস্থার কাজের পরিধি (এরিয়া অব কাভারেজ) বাংলাদেশ ব্যাংকের চেয়েও অনেক বড়। তারা শুধু ব্যাংক ও নন-ব্যাংক ফিন্যানশিয়াল ইনস্টিটিউশন নিয়ে কাজ করে। সেখানে লোকবল সাত থেকে আট হাজার। যদিও ব্যাংক, নন-ব্যাংক ফিন্যানশিয়াল ইনস্টিটিউশন, মার্চেন্ট ব্যাংক, ব্রোকারেজ হাউস, স্টক এক্সচেঞ্জ, অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট, ফান্ড ম্যানেজার ও ক্রেডিট রেটিং কম্পানি থেকে শুরু করে অতালিকাভুক্ত কম্পানি নিয়ে কাজ করতে হয়। অথচ লোকবল মাত্র ৮৪ জন। অর্গানোগ্রাম হচ্ছে, যা চূড়ান্ত পর্যায়ে। কিন্তু এখনো লোকবল নিয়োগ করার পর্যায়ে আমরা পৌঁছাইনি।

গতকাল বুধবার সকালে আগারগাঁওয়ের বিএসইসি মাল্টিপারপাস হলে ‘ফিন্যানশিয়াল স্টেটমেন্ট অ্যানালিসিস অ্যান্ড ডিটেকশন অব ফ্রড’ বিষয়ক সেমিনারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও বাংলাদেশ একাডেমি অব সিকিউরিটি মার্কেটিংয়ের (বিএএসএম) ডিজি মাহবুবুল আলম, বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ফরহাদ আহমেদ, বিএসইসির পরিচালক কামরুল আনাম খান, এফআরসির নির্বাহী পরিচালক মোহাম্মদ মহিউদ্দিন আহমেদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন চৌধুরী, সিডিবিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও শুভ্র কান্তি চৌধুরী ও সিএমজেএফের সভাপতি হাসান ইমাম রুবেল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা