kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ১৯ চৈত্র ১৪২৬। ২ এপ্রিল ২০২০। ৭ শাবান ১৪৪১

সেমিনারে অর্থমন্ত্রী

নারীদের গৃহস্থালীর কাজ অন্তর্ভুক্ত করতে হবে জিডিপিতে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যেসব কাজে নারীরা সম্মান পায় না, পরিচিতি পায় না সেগুলোকে কিভাবে মূল্যায়নে আনা যায় তা দেখতে হবে। নারীদের অমূল্যায়িত কাজ মোট দেশজ উৎপাদনে (জিডিপি) অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। বৃহস্পতিবার রাজধানীর ব্র্যাক সেন্টার ইন-এ আয়োজিত ‘পলিসি ডায়ালগ-ফরমাল রিকগনিশন অব উইমেন্স অ্যান্ড অ্যাকাউন্টেড কন্ট্রিবিউশন’ শীর্ষক সেমিনারে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে ব্র্যাকের চেয়ারম্যান ড. হোসেন জিল্লুর রহমান, ইউএনডিপির দারিদ্র্য বিমোচন বিভাগের সাবেক পরিচালক ড. সেলিম জাহান, মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক শাহীন আনাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে অর্থমন্ত্রী বলেন, নারীরা অনেক এগিয়ে গেছে। গ্রামে মুদি, চায়ের দোকান চালায় মহিলারা। অর্থনীতির ভাষায়, যেসব কাজ টাকায় পরিমাপ করা যায় না সেগুলো জিডিপিতে কোনো অবদান রাখতে পারে না। অর্থাৎ নারীরা গৃহস্থালি কাজ করলে তাতে যেহেতু অর্থ লেনদেন হয় না তাই এটি জিডিপিতে কোনো ভূমিকা রাখে না। তাই নারীদের যেসব কাজ টাকার অঙ্কে পরিমাপ করতে পারি সেগুলোকে জিডিপিতে অন্তর্ভুক্ত করার উদ্যোগ নেওয়া হবে। আগামী বাজেটে এর একটি প্রতিফলন থাকবে। আন্তর্জাতিকভাবে যেসব স্বীকৃত পদ্ধতি আছে সেগুলো মেনেই হিসাব করতে হবে। মন্ত্রী আজকের অবস্থানের জন্য তাঁর নিজের মাকে স্মরণ করেন। তিনি বলেন, ‘আমার মা আমাকে জন্ম দিয়েছেন, লালন-পালন করেছেন। জন্মের পর থেকে বড় হওয়ার প্রতিটি ক্ষেত্রে সহায়তা দিয়েছেন। আমৃত্যু নানাভাবে অব্যাহত সহায়তা করেছেন আমার। সেই মায়ের কাজেরও স্বীকৃতি দিতে পারছি না।’

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীও নারী ক্ষমতায়নে কাজ করে যাচ্ছেন। এ জন্য নারীর ক্ষমতায়নে পরিবর্তন হতে শুরু করেছে। নতুন চাকরি, শিক্ষাক্ষেত্রে, সংসদ সদস্য নির্বাচনে নারীরা এগিয়ে যাচ্ছে। জাতিসংঘে ভাষণ দেওয়ার সুযোগ হলে নারীদের কাজের স্বীকৃতি নিয়ে সুস্পষ্ট বক্তব্য দেব।’

নারীদের অস্বীকৃত ও অমূল্যায়িত কাজকে কিভাবে মূল্যায়ন করা যায় সে বিষয়ে ব্র্যাকের চেয়ারম্যান ড. হোসেন জিল্লুর রহমানকে একটি সুপারিশমালা দেওয়ার কথা বলেন অর্থমন্ত্রী। তিনি বলেন, আগামী বাজেটে উনার সুপারিশমালার একটি অধ্যায় থাকবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা