kalerkantho

বুধবার । ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২ ডিসেম্বর ২০২০। ১৬ রবিউস সানি ১৪৪২

সৈয়দপুর বিমানবন্দর ব্যবহার করতে চায় নেপাল

বাণিজ্য বাড়াতে এফটিএ করতে চায় দুই দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সৈয়দপুর বিমানবন্দর ব্যবহার করতে চায় নেপাল

ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসারে নেপাল বাংলাদেশের সৈয়দপুর বিমানবন্দর ব্যবহার করার প্রস্তাব দিয়েছে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। তিনি বলেছেন, বাংলাদেশ এ বিষয়ে চিন্তাভাবনা করছে। নেপালের বিরাগনগর থেকে সৈয়দপুরের বিমানবন্দরের ফ্লাইং টাইম প্রায় ২৫ মিনিট। এ বিমানবন্দর তারা ব্যবহার করতে পারলে যোগাযোগ সহজ হবে।

গতকাল সোমবার সচিবালয়ে সফররত নেপালের পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রদীপ কুমার গাওয়ালির সঙ্গে মতবিনিময় শেষে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. মো. জাফর উদ্দীন এবং রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর ভাইস চেয়ারম্যান (সচিব) ফাতেমা ইয়াসমিনও এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

সৈয়দপুর বিমানবন্দর নেপাল কবে নাগাদ ব্যবহার করতে পারবে জানতে চাইলে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘এটা উনাদের চাহিদা। আমি আজকে উনাদের বললাম, আমি এ বিষয়ে ইমিডিয়েটলি সিভিল এভিয়েশন ও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে কথা বলব। আজকে প্রস্তাবের পর মনে হয়েছে এটা আমাদের ও উনাদের জন্য ভালোই হবে। প্রতিদিন এখন মোট ১০টা ফ্লাইট সৈয়দপুর যাচ্ছে। উনারা যদি একটা-দুইটা ফ্লাইট শুরু করে তাহলে যোগাযোগটা বাড়বে।’

নেপালের সঙ্গে মুক্ত বাণিজ্য চুক্তির (এফটিএ) কথা উল্লেখ করে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, নেপাল বাংলাদেশের বন্ধু রাষ্ট্র। এফটিএ স্বাক্ষরের জন্য কাজ চলছে। উভয় দেশ এই ব্যাপারে একমত হয়েছে। এ জন্য প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি চলছে।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, আগামী ৩ ও ৪ মার্চ ঢাকায় বাংলাদেশ ও নেপালের মধ্যে সচিব পর্যায়ে বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে এফটিএ স্বাক্ষর ও উভয় দেশের বাণিজ্য বৃদ্ধির বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হবে। উভয় দেশের যোগাযোগব্যবস্থা উন্নত করার জন্য সড়ক, নৌ এবং আকাশপথ চালু করার বিষয়ে কাজ চলছে।

 

নেপাল বাংলাদেশের সমুদ্রবন্দর ব্যবহারেরও সুযোগ পাবে উল্লেখ করে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, গত অর্থবছরে বাংলাদেশ নেপালে তিন কোটি ৮০ লাখ ডলার মূল্যের পণ্য রপ্তানি করেছে, একই সময়ে আমদানি করেছে এক কোটি ৮১ লাখ ডলার মূল্যের পণ্য। বাংলাদেশ এখন পাটজাত পণ্য, ব্যাটারি, তৈরি পোশাক, টয়লেট্রিজ পণ্য, ওষুধসহ বেশ কিছু পণ্য নেপালে রপ্তানি করছে।

নেপালের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, নেপাল বাংলাদেশকে খুবই গুরুত্ব দেয়। উভয় দেশের মানুষ ও জীবনযাত্রার মধ্যে অনেক মিল রয়েছে। দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে অর্থনৈতিকভাবে বাংলাদেশ দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে, নেপাল তার পরই অবস্থান করছে। বাংলাদেশের সঙ্গে নেপালের বাণিজ্য ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক বৃদ্ধি এবং পর্যটক বিনিময়ের বিপুল সম্ভাবনা রয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা